কুড়িগ্রামে শিশু কর্মচারীর শরীরে গরম দুধ ঢেলে ঝলসে দিয়েছে চায়ের দোকানী

হাফিজুর রহমান হৃদয়, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ 

কুড়িগ্রামে চায়ের দোকানীর ঢেলে দেয়া গরম দুধে ঝলসে গেছে ওই দোকানের শিশু কর্মচারীর শরীর। এঘটনায় আটক চায়ের দোকানী আতিক মিয়াকে শনিবার (২১ মার্চ)  পুলিশ জেল হাজতে পাঠিয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, জেলার রাজারহাট উপজেলার ঘড়িয়ালডাঁঙ্গা ইউনিয়নের কাশিম বাজারের চায়ের দোকানী আতিক মিয়ার দোকানে প্রতি শুক্রবার সামান্য কয়েকটি টাকার বিনিময়ে কাজ করত পাশ্ববর্তী মুসরত নাখেন্দা গ্রামের হতদরিদ্র ফুলবাবুর শিশুপুত্র নুরনবী (১০)। সে পাশ্ববর্তী একটি মাদ্রাসার ৩য় শ্রেণীর ছাত্র। 

শুক্রবার দুপুরে ওই দোকানের মালিক আতিক মিয়া শিশুটিকে দ্রুত চা তৈরী করে দিতে বলেন। শিশুটি চা তৈরী করতে দেরী করায় দোকানের মালিক রেগে গিয়ে শিশুটির শরীরে গরম দুধ ঢেলে দেন। এতে করে শিশুটির ঘাড়, পিঠ ও নিম্নাংশ ঝলসে যায়। পরে শিশুটির অভিভাবকরা তাকে কুড়িগ্রাম সরকারী হাসপাতালে ভর্তি করেন। 
ঘটনার সময় লোকজন রাজারহাট থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ চায়ের দোকানী আতিক মিয়াকে আটক করে। পরে শুক্রবার রাতে নুরনবীর পিতা ফুলবাবু বাদী হয়ে রাজারহাট থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। 

আটক চায়ের দোকানী আতিক মিয়া উক্ত ইউনিয়নের পশ্চিম দেবত্তর গ্রামের মকবুল হোসেনের পুত্র বলে জানা গেছে।
রাজারহাট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃষ্ণ কুমার সরকার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, শনিবার আসামীকে জেল হাজতে প্রেরন করা হয়েছে

পুরোনো সংবাদ

নির্বাচিত 8008884458001469365

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item