দেবীগঞ্জে দিন ব্যাপি চলছে নতুন বাংলাদেশীদের বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান


মোঃ মোজাহারুল আলম জিন্নাহ্ রানা ,জেলা প্রতিনিধি,পঞ্চগড়ঃ

১৯৭৪ স্থলসীমান্ত চুক্তি (মুজিব-ইন্দিরা চুক্তি) বাস্তবায়নের অংশ হিসেবে ২০১৫ সালের ৩১ জুলাই মধ্যরাতে ভারত ও বাংলাদেশের মধ্যে বিনিময় হয় ১৬২টি ছিটমহলের। ফলে বাংলাদেশের অভ্যন্তরে থাকা ভারতীয় ১১১টি ছিটমহল বাংলাদেশের ভূ-খন্ড এবং ভারতের অভ্যন্তরে থাকা বাংলাদেশের ৫১টি ছিটমহল ভারতের ভূ-খন্ডে অন্তর্ভূক্ত হয়।এতে দুই দেশেরই মানচিত্র পায় পূর্ণতা আর ছিটমহলবাসী পায় দীর্ঘ ৬৮ বছরের অবরুদ্ধ জীবন থেকে মুক্তি। অবসান ঘটে দীর্ঘদিনের বঞ্চনা আর মানবিক সমস্যার।
দিনটির স্মরণে  উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় বিলুপ্ত ছিটমহলবাসীরা নানা আয়োজনে পালন করছে নতুন বাংলাদেশী  হওয়ার বর্ষপূর্তি।
দেবীগঞ্জ উপজেলার বিলুপ্ত বেউলাডাঙ্গা ছিটমহলে রাত ১২.০১ মিনিটে মোমবাতি জ্বালিয়ে এবং সকালে আনন্দ র‌্যালির পরপরই জাতীয় পতাকা উত্তলোনের পরে বেউলাডাঙ্গা সিরাজনগর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এবং বেউলাডাঙ্গা সিরাজনগর মাদ্রাসা মাঠে শুরু হয় আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতি অনুষ্ঠান ও খেলাধুলা চলবে দিনব্যাপি।
উক্ত আলোচনা সভায় বিলুপ্ত ছিটমহলের চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলামের সভাপত্বিতে প্রধান অতিথি ছিলেন দেবীগঞ্জ উপজেলা মাধ্যমিক কর্মকর্তা আবুল হোসেন।একই সময়ে বিলুপ্ত দহলা খাগড়াবাড়ীর অকরাবাড়ী ছিটমহলে এনবিএল হাজী লুৎফর রহমান উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে রাত ১২.০১ মিনিটে মোমবাতি জ্বালিয়ে এবং সকালে আনন্দ র‌্যালির পরপরই জাতীয় পতাকা উত্তলোনের পরে এনবিএল হাজী লুৎফর রহমান উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে শুরু হয় আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতি অনুষ্ঠান ও খেলাধুলা চলবে দিনব্যাপি।
উক্ত আলোচনা সভায় এনবিএল হাজী লুৎফর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরে-কুতুবে আলমের  সভাপত্বিতে প্রধান অতিথি ছিলেন দেবীগঞ্জ উপজেলা রিপোটার্স ক্লাবের সভাপতি নুরে আরিফ। এদিকে ৬৮ বছর পিছিয়ে পড়া ছিটমহলবাসীদের উন্নয়নে গত এক বছরে সরকার হাতে নিয়েছে ব্যাপক উন্নয়ন পরিকল্পনা। সাবেক কোর্ট ভাজিনি ছিটমহলে সকালে আনন্দ র‌্যালির পরপরই জাতীয় পতাকা  উত্তোলনের পরেবঙ্গ মাতা শেখ ফজিলাতুননেছা মুজিব উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে দিনব্যাপি চলছে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতি অনুষ্ঠান ও খেলাধুলা।
দেবীগঞ্জ উপজেলার  বিলুপ্ত ছিটমহলের বেউলাডাঙ্গা সিরাজনগর মাদ্রাসা সুপার হামজাদ আলী হামজা এবং এনবিএল হাজী লুৎফর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরে-কুতুবে আলম জানান, নতুন বাংলাদেশী হিসেবে এক বছর পূর্ণ হলো আজ। সে জন্য বাংলাদেশ-ভারত দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি । বিলুপ্ত ছিটমহলের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীরা উপবৃত্তির টাকা পায়নি ও পঞ্চম,অষ্টম,নবম শ্রেণীর রেজিস্ট্রেশন এখোনো পায়নি। ছিটমহলবাসীদের উন্নয়নে অনান্য খাত যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে শিক্ষা খাত সেভাবে এগিয়ে যাচ্ছেনা তাই ৬৮ বছর পিছিয়ে পড়া বিলুপ্ত ছিটমহলবাসীদের শিক্ষাখাতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সু-দৃষ্টি আশা করেন।





পুরোনো সংবাদ

পঞ্চগড় 2876729561553520558

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item