সৈয়দপুরের কামারপুকুরে পাকা রাস্তার পাশ ঘেঁষে পুকুর খনন এক্সকেভেটর মালিকের ৫০ হাজার টাকা জরিমানা


তোফাজ্জল হোসেন  লুতু, সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:

নীলফামারীর সৈয়দপুর একটি এক্সকেভেটর মালিকের ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।  মঙ্গলবার দুপুরে ভ্রাম্যমান আদালতে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. রমিজ আলম এক্সকেভেটর মালিক মো. শাহীনের ওই অর্থদন্ড করেন। উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের ব্রহ্মত্তর গ্রামের ছালুয়াপাড়ায় ওই এক্সকেভেটটি দিয়ে পাকা রাস্তার পাশ ঘেঁষে গভীর করে একটি পুকুর খনন করা হচ্ছিল।  অর্থদন্ডপ্রাপ্ত এক্সকেভেটর  মালিক শাহীন  উপজেলারকামারপুকুর নিয়ামতপুর এলাকার মো. আজগার আলী ছেলে।

ভ্রাম্যমান আদালত সূত্রে জানা গেছে, সৈয়দপুর উপজেলার ১ নম্বর কামারপুকুর ইউনিয়নের ব্রহ্মত্তর  গ্রামে ছালুয়াপাড়ায় বেশ কয়েকদিন যাবৎ পাকা রাস্তার পাশে থাকা মৃত. গিয়াস উদ্দিন মাষ্টারে একটি পুকুর এক্সকেভেটর মেশিন গভীর খনন করে মাটি তুলে ট্রাক্টরে করে পাশের একটি ইটভাটা নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। এতে করে ওই পাকা রাস্তাটি মারাত্মক হুমকিতে পড়ে। এ অবস্থায় এলাকার মানুষের কাছ থেকে অভিযোগ পেয়ে সৈয়দপুর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি)  মো. রমিজ আলম থানা পুলিশ সদস্যদের নিয়ে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে সেখানে যান। এ সময় তিনি  ইউনিয়নের উল্লিখিত এলাকায় পাকা সড়কের পাশে পুকুর খননের ঘটনাটি হাতেনাতে ধরে ফেলেন। এ সময় সহকারি (ভূমি) কমিশনারের উপস্থিতি টের পেয়ে পুকুর মালিকের লোকজন দ্রুত সেখান থেকে দ্রুত সটকে পড়েন। পরে সেখানে  ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে  সরকারি পাকা রাস্তার পাশে পুকুর খননের দায়ে বালু ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন - ২০১০ এর ১৫ ধারায় এক্সকেভেটর মালিক মো. শাহীনের ৫০ হাজার টাকা জরিমান করা হয়। সহকারি কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. রমিজ আলম  ওই ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন। 

 ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনায় সৈয়দপুর উপজেলার কামারপুকুর ইউনিয়নের সহকারি ভূমি কর্মকর্তা কাজী মো. শরীফুল ইসলাম, থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. আনছার আলীসহ পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।


পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 2540604128549545948

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

ফেকবুক পেজ

কৃষিকথা

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item