ডোমারে ৪ চোর আটক, চোরাইকৃত মালামাল উদ্ধার।


আনিছুর রহমান মানিক, ডোমার (নীলফামারী) প্রতিনিধি>>

নীলফামারীর ডোমারে ৪চোর আটকসহ চোরাইকৃত মালামালসহ উদ্ধার করেছে ডোমার থানা পুলিশ।

শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) রাতে ডোমার থানার এসআই শাহ আলম, কমলেশ, সাইফুল ও সঙ্গীয় ফোর্স উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে। আটককৃতরা হলেন, ছোট রাউতা গুচ্ছগ্রাম এলাকার মৃত আব্দুস সাত্তারের ছেলে মানিক ইসলাম (৩৬), ছোটরাউতা ডাঙ্গাপাড়া এলাকার ফজলুল হকের ছেলে সুমন (১৯), একই এলাকার এমদাদুল হকের ছেলে মহিবুল ইসলাম বাবু (১৯) ও তার ভাই রেজাউল করিম রাজু (২৬)। ডোমার থানা মামলা সুত্রে জানাযায়, গত ১৯ জানুয়ারি রাতে আন্ধারুমোড় এলাকার মরিয়ম চক্ষু হাসপাতালে চুরি হয়। যার কারনে উক্ত হাসপাতালের ম্যানেজার কোরবান আলী ডোমার থানায় সাধারণ ডায়রী নং- ১০৪৩, তারিখ- ২০/০১/২১ দায়ের করে। এরই সুত্র ধরে ১৩ ফেব্রুয়ারি বিকালে ছোট রাউতা গুচ্ছগ্রাম এলাকার মৃত আব্দুস সাত্তারের ছেলে মানিক ইসলাম (৩৬) কে আটক করে পুলিশ। তার দেয়া জবানবন্দি অনুযায়ী পুলিশ রেজাউল করিম রাজুর বাড়িতে অভিযান চালায় এবং তার বাড়ি থেকে মরিয়ম চক্ষু হাসপাতালে চুরি যাওয়া এলইডি টিভি, ওয়াটার পাম্প, গ্যাস সিলিন্ডার, চুলাসহ বিভিন্ন মালামাল উদ্ধার করে। এ দিকে গত ২৭/১২/২০ তারিখে আন্ধারুর মোড় এলাকার শমর কর্মকারের দোকান চুরি হয়। রাজুর বাড়ি থেকে শমর কর্মকারের দোকানে চুরি যাওয়া ২টি বাইসাইকেল, চুলা, গ্যাস সিলিন্ডার, তেল, সাবান উদ্ধার করে। অপরদিকে রাজুর বাড়ি তল্লাসি কালে ৮ পুড়িয়া হিরোইন উদ্ধার করে। যাহার ওজন ৩.৭০ গ্রাম। এবিষয়ে রাজুর স্ত্রী জেসমিন আক্তার (২২) কে আটক করে মাদকদ্রব নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা দায়ের করে পুলিশ। ডোমার থানার অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজার রহমান আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, আটকৃতরা একটি সংঘবদ্ধ চোর চক্রের সদস্য এবং রাজু ও তার স্ত্রী মাদক কারবারি। তাদের বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলা হয়েছে। রোববার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পঠানো হয়। ওই চক্রের বাকি আসামীদের গ্রেফতারের চেস্টা চলছে।


পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 2920092684341991276

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

ফেকবুক পেজ

কৃষিকথা

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item