পার্বতীপুরে ল্যাম্পি স্কিন ভাইরাস মারাত্বক আকার ধারন করেছে


এম এ আলম বাবলু, পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ 

দিনাজপুরের পার্বতীপুরে ল্যাম্পি স্কিন ভাইরাস মারাত্বক আকার ধারন করেছে। এই ভাইরাসে হাজার হাজার গরু আক্রান্ত হওয়া ছাড়াও মৃত্যু বরণ করছে। গত কয়েক মাস ধরে গরু ল্যাম্পি স্কিন ভাইরাসে আক্রান্ত হতে শুরু করলেও বর্তমানে তা মারাত্বক আকারে চলে গেছে। এই ভাইরাসের কোনো নির্ধারিত চিকিৎসা না থাকায় ল্যাম্পি স্কিন ভাইরাসে আক্রান্ত গরুর মালিকের মধ্যে আতংক ছড়িয়ে পড়েছে। সরকারী প্রানী সম্পদ দপ্তর থেকে এই রোগের চিকিৎসায় নির্ধারিত কোন ঔষধ সরবরাহ না থাকায় এবং এলাকায় এ রোগ সম্পর্কে গনসচেতনতা ম‚লক কোন প্রচারনা কিংবা সচেতনতা ম‚লক কোন সভা-সমাবেশ না হওয়ায় বিশেষ করে গরুর মালিকেরা অনেকটাই দিশেহারা হয়ে পড়েছে। নিরুপায় হয়ে তারা পল্লি প্রানী চিকিৎসকদের সরনাপন্ন হচ্ছে। পল্লি চিকিৎসকেরা তাদের মন মত চিকিৎসা প্রদান করলেও অনেক গরু ইতোমধ্যে মারা গেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জনৈক পল্লি প্রানী চিকিৎসক জানান, ল্যাম্পি স্কিন ভাইরাসের নির্ধারিত কোন চিকিৎসা না থাকায় রোগ বুঝে তারা ঔষধ দিয়ে এই রোগ নিরাময়ের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমাদের চিকিৎসায় কিছু কিছু রোগাক্রান্ত গরু ভালো হচ্ছে। এই রোগে যেগুলো গরু জটিল ভাবে আক্রান্ত হচ্ছে ম‚লত সেগুলোই মারা যাচ্ছে। বেশির ভাগ ক্ষেত্রে ছোট আকারের অল্প বয়সের গরু বেশি মারা যাচ্ছে। 
জানা গেছে, ল্যাম্পি স্কিন ভাইরাসে আক্রান্ত গরুর গায়ে ছোট ছোট গুটি গুটি উঠে ও ফুলে যায়, পা ফুলে যায়, শরীরের বিভিন্ন স্থানে ঘা হয়। এই রোগে আক্রান্ত গরুর কোন নির্ধারিত চিকিৎসা না থাকলেও পল্লি প্রানী চিকিৎসকেরা এন্টিবায়োটিক, ব্যাথা নাশক ঔষধ ও প্যারাসিটামল দিয়ে থাকেন। 
পার্বতীপুর উপজেলার পৌরসভা ও ১০টি ইউনিয়নে ল্যাম্পি স্কিন ভাইরাস রোগ ছড়িয়ে পড়েছে। সব স্থানেই কম বেশি এই রোগে গরু আক্রান্ত হচ্ছে এবং মারা যাচ্ছে। আক্রান্ত গরু ও মারা যাওয়ার গরুর সঠিক কোন পরিসংখ্যান উপজেলা প্রানি সম্পদ দপ্তরে না থাকলেও ইতোমধ্যে আনুমানিক ২০ থেকে ২৫ হাজার গরু আক্রান্ত হয়েছে এবং আনুমানিক ৪ থেকে ৫শ গরু মারা গেছে। 
এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে পার্বতীপুর উপজেলা প্রানী সম্পদ কর্মকর্তা মোঃ আব্দুর রাজ্জাক জানান, গত কয়েকমাস ধরেই পার্বতীপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ল্যাম্পি স্কিন ভাইরাসে গরু আক্রান্ত হচ্ছে। এই রোগের নির্ধারিত কোন চিকিৎসা না থাকায় ম‚লত এই রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব হচ্ছে না। তাছাড়া এই রোগ প্রতিরোধের জন্য আমাদের কাছে তেমন কোন ঔষধও নেই। তবে রোগের ধরন বুঝে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ল্যাম্পি স্কিন ভাইরোসে কি পরিমান গরু আক্রান্ত হয়েছে এবং মারা গেছে তার কোন সঠিক পরিসংখ্যান আমাদের কাছে নেই। তবে এই রোগে বড় গরুর চেয়ে ছোট আকারের ও কম বয়সি গরু বেশি মারা যাচ্ছে। 

পুরোনো সংবাদ

দিনাজপুর 2699152929378534953

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item