করোনাকে ভুলে পার্বতীপুরে ঈদের কেনাকাটার ধুম॥ সামাজিক সুরক্ষা উপেক্ষিত

এম এ আলম বাবলু,পার্বতীপুর(দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ

করোনার এই মহা দূর্যোগেও ঈদকে সামনে রেখে রেলওয়ে জংশন খ্যাত ও খনিজ সম্পদে সমৃদ্ধ দিনাজপুরের পার্বতীপুর শহরের বস্ত্রবিতান, কসমেটিকস,খাদ্য সামগ্রী ও জুতাসহ বিভিন্ন ধরনের দোকানে কেনাকাটার ধুম পড়েছে৷ দোকান গুলোতে  উপচে পড়া ভিড়  পরিলক্ষিত হচ্ছে। দেশব্যাপী করোনা প্রভাবে কিছুদিন আগেও যেখানে পার্বতীপুরের এসব বাজারে ও দোকান ছিল সুনসান নীরবতা, সেখানে বর্তমান প্রেক্ষাপট সম্পূর্ণ আলাদা। করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দেশব্যাপী দিন দিন উদ্বিগ্ন হারে বাড়লেও এর তেমন কোনো প্রভাব পড়েনি এখানকার জন জীবনে। হাট বাজার গুলোতে মানুষের ভীড় দেখলে মনেই হয়না করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ব্যাপকতা ও এর প্রভাব তাদের উপড় পড়েছে৷ দেখলে মনে হয় করোনার  এই মহা দূর্যোগ সম্পর্কে সম্পূর্ণ উদাসীন ঈদের বাজার করতে আসা মানুষ গুলো৷
পার্বতীপুর উপজেলা শহরের  বাজার গুলো  ঘুরে দেখা যায়, এখানকার প্রতিটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আসা ক্রেতারা সামাজিক দূরত্ব উপেক্ষা ও কোনো প্রকার ব্যক্তিগত সুরক্ষা উপকরণ, মাস্ক, হ্যান্ড গ্লাভস ছাড়াই যত্রতত্র দলবেঁধে এক দোকান থেকে অন্য দোকানে ভিড় করে কেনাকাটা করছে। এতে রীতিমতো সামাজিক সুরক্ষা বিঘ্নিত হচ্ছে৷ দেশে করোনা সংকটের শুরু থেকে স্বল্পপরিসরে সীমিত সময়ের জন্য বাজার খোলা থাকলেও ঈদকে সামনে রেখে  ১০ মে থেকে প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত বাজার খোলা রাখার সরকারী নিদের্শনা জারীর পর শহরের বিভিন্ন দোকানপাটে  গ্রাহকদের নিযন্ত্রণহীন অবাধ বিচরন লক্ষ্য করা যাচ্ছে৷ ফলে সামাজিক সুরক্ষা উপেক্ষিত হওয়ায় করোনা সংক্রমণের ঝুঁকিও  বেড়ে যাওয়ার আশঙ্কা করা হচ্ছে। 

পার্বতীপুর শহরের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান গুলোতে 'স্বাস্থ্য বিধি না মানলে মৃত্যু ঝুঁকি আছে' শিরোনামে  সতর্কতামূলক স্টিকার লাগানো হলেও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার প্রবনতা লক্ষ্য করা যাচ্ছেনা৷ অথাৎ এগুলো কেউ মানছে না৷

সচেতন মহলের মতে, স্বাস্থ্যবিধি মেনে না চললে শুধু ক্রেতা-বিক্রেতা নয় সবার জন্য ভয়াবহ পরিস্থিতি অপেক্ষা করছে।

পুরোনো সংবাদ

দিনাজপুর 853132065934123506

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item