ঘটনা যত বড় যত গোপনীয়ই হউক উদঘাটনে পারদর্শী পুলিশ অফিসার বজলুর রশিদ

মোঃ আব্দুস সাত্তার, দিনাজপুর প্রতিনিধি ॥ দিনাজপুর কোতয়ালী থানা ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মোঃ বজলুর রশীদ বরাবরই একজন দায়িত্বশীল পুলিশ অফিসাস। জঙ্গী দমন, মাদক নিমূল চোরাচারান রোধ, হত্যা কান্ডের রহস্য উদঘাটনসহ বিভিন্ন চাঞ্চল্যকর ঘটনা তদন্তই যার নেশা।
সেই পুলিশ অফিসার মোঃ বজলুর রশীদ দুই বার" আইজিপি ব্যাজ "সহ পেয়েছেন অনেক সম্মাননা। পুলিশ বাহিনীর একজন চৌকশ অফিসার হিসাবে কতগুলো সম্মাননা পেয়েছেন তার সংখ্যা জানাতে না পারলেও শুধু পুলিশ বাহিনীর রেকর্ড বুকে ১১৭ টি সম্মাননার রেকর্ড রয়েছে। রয়েছে বিভিন্ন সংস্থা প্রতিষ্ঠানের অসংখ্য সম্মাননা ও পুরস্কার।
মোঃ বজলুর রশীদ বর্তমানে কোতয়ালী থানা ইন্সপেক্টর (তদন্ত) দায়ীত্ব পালন করছেন। তিনি দিনাজপুর গোয়েন্দা পুলিশেও কাজ করেছেন দীর্ঘদিন। দিনাজপুরে জঙ্গী হামলার ১৫ টি মামলার মধ্যে ১১ টি মামলার তদন্ত করেছেন। আদালতে চুড়ান্ত প্রতিবেদন দিয়েছে। বিভিন্ন হত্যা, ডাকাতিসহ অসংখ্য মামলার ক্লু উদ্ধার করেছেন।
তিনি গাইবান্ধা-১( সুন্দরগঞ্জ) আসনের এমপি মঞ্জুরুল ইসলাম হত্যা মামলার তদন্ত কাজেও ডাকপান এবং সফলতার সঙ্গে কাজ করেন। দিনাজপুরের কালুর মোড়ে বিদেশী নাগরিকের উপর হামলার ঘটনাও তদন্ত করেন তিনি।
এমন অনেক সফলতা রয়েছে মোঃ বজলুর রশীদের। আর এই সফলতা গুলো তাকে এনে দিয়েছে অনেক সম্মান।
সর্বশেষ গত ০৭ জানুয়ারি, ২০২০ মঙ্গলবার রাজারবাগ পুলিশ লাইন্স মাঠে " পুলিশ সপ্তাহ-২০২০ " তে জঙ্গি দমন, মাদক নির্মূল, চোরাচালান রোধ সহ সাহসিকতা ও বীরত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ দিনাজপুর কোতয়ালী থানা ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মোঃ বজলুর রশীদ কে ২য় বারের মতো " আইজিপি ব্যাজ " পরিয়েদেন বাংলাদেশ পুলিশের প্রধান ডক্টর মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বিপিএম, পিপিএম (বার)।এর আগে তিনি ২০১৭ সালে প্রথম " আইজিপি ব্যাজ " পরিয়ে দেন তৎকালীন বাংলাদেশ পুলিশের প্রধান এ কে এম শহীদুল হক বিপিএম, পিপিএম (বার)।
গত ৩ জানুয়ারী ২০২০ আইন শৃংখলা রক্ষায় বিশেষ অবদান রাখার জন্য তাকে ঢাকা অগ্রগামী ফাউন্ডেশন “অগ্রগামী শাইনিং পার্সোনালিটি এ্যাওয়ার্ড ২০১৯  প্রদান করেছে। তারা একটি ক্রেষ্ট ও সনদপত্র প্রদান করেছেন।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মোঃ বজলুর রশীদ বলেন, যে কোন অপরাধের তথ্য উদঘাটন করা আমার নেশা। এই কাজে যেমন ঝুঁকি রয়েছে তেমনি রয়েছে সম্মান। একজন মানুষ তার কর্ম স্থলে যদি ন্যায় পরায়ন হয়ে সততা ও নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে তাহলে দেশ জাতি তাকে অনেক অনেক সম্মান দিয়ে থাকে। এক প্রশ্নে উত্তরে তিনি বলেন, মানব সৃষ্ট যে কোন অপরাধ তদন্তে যদি আমাকে দায়িত্ব দেয়া হয়, তাহলে সেটা যত বড়ই ঘটনা বা যত গোপনীয়ই হউক আমি তা উদঘাটন করতে পারব বলে বিশ্বাস করি।  পাশাপাশি ডিজিটাল প্রযুত্তি ব্যবহার করে অপরাধ সনাক্ত করতেও পারদর্শী তিনি।

পুরোনো সংবাদ

নির্বাচিত 2508954099985330647

অনুসরণ করুন

মুজিব বর্ষ

Logo

সর্বশেষ সংবাদ

শিল্প-সাহিত্য

ফেসবুক লাইকপেজ

তারিখ অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item