দিল্লি সহিংসতা: স্বাভাবিক হচ্ছে জনজীবন


ডেস্ক

ভারতের নাগরিকত্ব আইন নিয়ে সমর্থক ও বিরোধীদের মধ্যে সংঘর্ষের পর অনেকটাই আজ শান্তিপূর্ণ দিল্লির উত্তর পূর্বাঞ্চল। জনজীবন স্বাভাবিক করার চেষ্টা করছে পুলিশ।

খুলেছে বেশ কয়েকটি দোকানপাট। তবে রাস্তাঘাটে এখনও থমথমে রয়েছে।  পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় শুক্রবার ১৪৪ ধারা শিথিল করা হয়েছে।

ভারতের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, সহিংসতা ছড়িয়ে পড়া এলাকায় ৭০ কোম্পানি আধা-সামরিক বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।
সহিংসতার ঘটনায় দিল্লি পুলিশ ৪৮টি মামলা দায়ের করে। গত কয়েকদিনের সংঘর্ষের ঘটনায় এ পর্যন্ত আটক করা হয়েছে ছয় শতাধিক মানুষকে। সিসিটিভির ফুটেজ খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়, মানুষের উচিত হবে গুজবে কান না দেয়া এবং যে দুষ্কৃতীরা সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা বাড়াতে চাইছে তাদের ফাঁদে পা না দেয়া। দু’জন নিরাপত্তা কর্মী মারা গিয়েছেন। আহত প্রায় ৭০। আহতদের চিকিৎসার জন্য প্রয়োজনীয় সব রকম পদক্ষেপ করা হচ্ছে।

এদিকে, দেশের শান্তি বজায় রাখতে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কাছে আহ্বান জানিয়েছেন, পশ্চীমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা  বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার ভুবনেশ্বরে পূর্বাঞ্চলীয় আন্তঃরাজ্য পরিষদের বৈঠকে এ আহ্বান জানান মমতা।

প্রসঙ্গত, বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইন (সিএএ) ঘিরে বিক্ষোভ নিয়ে দিল্লির বিধানসভা নির্বাচনে মুসলিমবিদ্বেষী ঘৃণাবাদী বক্তব্য দেন বিজেপি নেতারা। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর, উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথসহ বহু নেতা ঘৃণাবাদী বক্তব্য দেন। এরই ধারাবাহিকতায় গত রবিবার সহিংসতায় উসকানি ছড়ান দিল্লির বিজেপি নেতা কপিল মিশ্র। এরপরই দিল্লির পূর্ব অংশে শুরু হয় নজিরবিহীন সহিংসতা। এই সহিংসতায় নিহত হয় ৪২ জন।

পুরোনো সংবাদ

প্রধান খবর 1113818526020067152

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item