রান উৎসবের ম্যাচে রংপুরের বিপুল বিজয়

বিপিএলের চট্টগ্রাম পর্বের প্রথম দিনেই রান উৎসবে মেতে উঠল রংপুর রাইডার্স। কানায় কানায় পরিপূর্ণ জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে স্বাগতিক চিটাগংকে ৭২ রানে হারিয়ে দিল মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। রুশো-হেলসের সেঞ্চুরিতে রংপুরের রেকর্ড গড়া ২৩৯ রানের জবাবে ৮ উইকেটে ১৬৭ রানেই থামে চিটাগং ভাইকিংস। বল হাতে ৩৪ রানে ৩ উইকেট নিয়ে এই জয়ে বড় অবদান অধিনায়ক মাশরাফির।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে রংপুর রাইডার্সের রেকর্ড গড়া স্কোরের জবাবে চিটাগংয়ের শুরুটা হয় দুর্দান্ত। ১২ বলে ১ চার ২ ছক্কায় ২০ রান তোলা মোহাম্মদ শাহজাদকে বোল্ড করে দিয়ে লাগাম টানেন ফরহাদ রেজা। স্বাগতিকদের দূর্গে দ্বিতীয় আঘাত হানেন অধিনায়ক মাশরাফি। তার বলে বোল্ড হয়ে যান সিকান্দার রাজা (৩)। এরপর থেকে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে চিটাগং ভাইকিংস। অধিনায়ক মুশফিকুর রহিম ১১ বলে ২২ রানের ছোট্ট ঝড় তুলে শাহিদুল ইসলামের বলে নাহিদুলের তালুবন্দি হন।

অল-রাউন্ডার মোসাদ্দেকও আজ ইনিংস বড় করতে পারেননি। মাশরাফির দ্বিতীয় শিকার হওয়ার আগে করেছেন ১৩ বলে ১৪ রান। একপ্রান্ত আগলে ৩০ বলে হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন অপর ওপেনার ইয়াসির আলী। ৪৮ বলে ৭৮ করে শেষ পর্যন্ত রংপুর অধিনায়কের তৃতীয় শিকার হন তিনি। এরপর শুধুই আসা-যাওয়ার খেলা। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৬৭ রান তুলতে সক্ষম হয় চিটাগং ভাইকিংস। রংপুর রাইডার্স ম্যাচ জিতে নেয় ৭২ রানের বড় ব্যবধানে।



এর আগে দিনের দ্বিতীয় ম্যাচে টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে রুশো-হেলসের জোড়া সেঞ্চুরিতে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেটে ২৩৯ রানের পাহাড় গড়ে রংপুর রাইডার্স। যা বিপিএলের সব আসর মিলিয়ে সর্বোচ্চ স্কোর। এর আগে ২০১৩ সালে ভিন্ন মালিকানার রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষেই ৪ উইকেটে ২১৭ রান করেছিল তখনকার ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স। যা এতদিন সর্বোচ্চ ছিল।

তবে শুরুটা হয়েছিল ভয় জাগানিয়া। দলীয় ৬ রানেই আবু জায়েদের দুর্দান্ত একটা বলে এলবিডাব্লিউ হয়ে যান গত ম্যাচেই হাফ সেঞ্চুরি করা ক্যারিবীয় দানব ক্রিস গেইল (২)। এরপরেই শুরু হয় হেলস-রুশোর তাণ্ডব। রুশোর তুলনায় বেশি বিধ্বংসী ছিলেন হেলস। ২৩ বলে তুলে নেন হাফ সেঞ্চুরি। তার ব্যাটেই চলতি বিপিএলের দ্বিতীয় সেঞ্চুরি দেখা যায়। ৪৭ বলে ১১ চার ৫ ছক্কায় তিন অংকে পৌঁছে ঠিক ১০০ রান করে সিকান্দার রাজার শিকার হন এই ইংলিশ হার্ডহিটার।

ততক্ষণে রানের পাহাড়ে চড়ে বসেছে রংপুর রাইডার্স। দ্বিতীয় উইকেটে এসেছে ১৭৪ রানের দুর্দান্ত জুটি। হেলস ফেরার পর আরেক হার্ডহিটার এবিডি ভিলিয়ার্স আজ জ্বলে উঠতে পারেননি। আবু জায়েদের শিকার হওয়ার আগে এই প্রোটিয়া ব্যাটসম্যান করেছেন ১ রান। একপ্রান্তে সেঞ্চুরির দিকে এগিয়ে যাচ্ছিলেন আরেক প্রোটিয়া তারকা রাইলি রুশো।



২৯ বলে তুলে নেন হাফ সেঞ্চুরি। এরপর ৫১ বলে স্পর্শ করেন তিন অংক। শেষ পর্যন্ত তিনি ৮ চার ৬ ছক্কায় গড়া ১০০ রানেই অপরাজিত থাকেন। মোহাম্মদ মিঠুন ১০ বলে ১৫ করে রবিউল হকের বলে বোল্ড হয়ে যান। শেষদিকে নাহিদুলের ৪ বলে ১১* রানে নির্ধারিত ২০ ওভারে রংপুর রাইডার্সের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৪ উইকেটে ২৩৯ রান।

জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে দিনের প্রথম ম্যাচে মেহেদী হাসান মিরাজের রাজশাহী কিংসকে ৭৬ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে অলক কাপালির নেতৃত্বাধীন সিলেট সিক্সার্স। এই জয়ে খুলনাকে টপকে সিলেট উঠে এসেছে পয়েন্ট তালিকার ৬ নম্বরে।

পুরোনো সংবাদ

খেলাধুলা 5902106454608762916

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item