তেঁতুলিয়ায় ট্রাকের চাপে নতুন ব্রিজে ভাঙ্গন


মুুহম্মদ তরিকুল ইসলাম, পঞ্চগড়-
পঞ্চগড় জেলাধীন তেঁতুলিয়া উপজেলায় ট্রাকের চাপে ব্রিজ ভাঙ্গনে ধামাচাপা দেওয়া হচ্ছে নির্মাণ কাজের ব্যাপক অনিয়ম অভিযোগ উঠেছে। ৩০ অক্টোবর ২০২০ শুক্রবার দুপুরে উপজেলার ৭নং দেবনগড় ইউপি’র ঝালিঙ্গীগছ গ্রামের কবর স্থান সংলগ্ন মোস্তফার বাড়ির সামনে উক্ত ব্রিজ ভাঙ্গনের ঘটনাটি ঘটেন। 

সরেজমিনে গিয়ে জানাযায়, একটি ইটের ট্রাক (ঢাকা মেট্রো ট-১৮-৫২৭৪) বিকল্প রাস্তা দিয়ে ওই গ্রামের সফিজুল ইসলামের ছেলে আলতাফের বাড়িতে ৬ হাজার ইট আনলোট করে ফেরার পথে ১৫০০টি ইটসহ ট্রাকের সামনের চাকা ব্রিজটির উপর উঠা মাত্রই ব্রিজের আরসিসি স্লাব ভেঙে ধসে পড়ে। জানাযায়, ব্রিজটি লোকাল গভর্ন্যান্স সাপোর্ট প্রজেক্ট-৩(এলজিএসপি-৩)এর ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের ২ লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। বাস্তবায়ন ২০২০-২০২১ এতে বাস্তবায়ন করেন ৭নং দেবনগড় ইউনিয়ন পরিষদ। এলাকার লোকজনসহ লক্ষ করা গেছে, ভেঙে পড়া ব্রিজটির কংক্রিট কাজের ব্যাপক অনিয়মতা । ব্রিজের পাটাতন/স্লাব যেন খস খসে বালি। ব্রিজের স্লাবে যে পরিমান রড দেয়া দরকার তাতে মেইন রড লক্ষ করা গেলে বাইন্ডার রড যে পরিমানে দরকার তা দেয়া হয়নি এবং এক রড থেকে আরেক রডের দুরুত্বও সঠিক পরিমানে বাধানো হয়নি। ওয়াল গাঁথুনিতে ইটের মান নিয়েও সংশয় অনেকের। 

এলাকাবাসি সূত্রে জানাযায়, ব্রিজটির ঢালাই দেওয়ার কাজ প্রায় ১৫দিন হয়েছে এবং গত ২৯ অক্টোবর ব্রিজটির সাটারিং খোলা হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক গ্রামের অনেকেই জানান, এই ব্রিজে এত টাকার বাজেট থাকা সত্ত্বেও কাজের মান একেবারেই ভাল হয়নি। তাঁরা আরও জানান, বর্তমানে পরিষদের মেম্বার চেয়ারম্যানরা নামে মাত্র প্রকল্পের কাজ দেখিয়ে কামিয়ে নেয় লক্ষ লক্ষ টাকা। তাঁরা বলেন, তারা তাদের বাড়িতে একটু হলেও রড, বালি, সিমেন্ট ও ইটের কাজ করেন। তাদের ধারণা ২লক্ষ টাকা দিয়ে আরও ভালমানের ব্রিজ তৈরি করা যাবে। তাঁরা এটাকে ব্রিজ না মেনেএকটি ছোট কালভার্ট মনে করেন।


এ বিষয়ে ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম জানান, গত ২২ তারিখ বৃহস্পতিবার ব্রিজটির ঢালাই দেয়া হয়েছে। অত:পর পরের বৃহস্পতিবার সকালে ব্রিজের সাটারিং খুলে নেয়া হয়েছে জানান তিনি। এত অল্প সময়ে একটি আরসিসি ব্রিজের সাটারিং খুলে নেয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মিস্ত্রিদের অন্য আরেকটি ব্রিজের কাজ চলছে সেখানে এই সাটারিং খুলে ব্যবহার করা হয়েছে এবং ব্রিজের কাজ গুলো তারা তাদের পছন্দমত লোকাল মিস্ত্রি দ্বারা করেন। ব্রিজ ভাঙার বিষয়ে তিনি জানান, গাড়িটিকে এলাকার লোজজন বাধা দিয়েছে তারপরেও ট্রাকের ড্রাইভার ব্রিজটির উপরে গাড়িটি চড়িয়ে দিলে ব্রিজ ভেঙে পড়ে।  

অন্যদিকে ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মহসিনউল হক মহসিন জানান, ব্রিজ ভাঙ্গনের বিষয়ে তিনি অবগত আছেন। তিনি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ইউএনও) কে বিষয়টি অবগত করিয়েছেন। তিনি বলেন, যেহেতু ট্রাকের দ্বারা ব্রিজটি ভেঙে গেছে তাই ট্রাকটিকে আটকে রেখে ব্রিজের সমস্যার সমাধান করতে চেয়েছেন নচেৎ ইউএনও’র নিকট ট্রাকটি সোপর্দ করবেন। 

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা(ভারপ্রাপ্ত) মো. মাসুদুল হক জানান, ব্রিজ ভাঙ্গনের বিষয়ে উনাকে কেউ অবগত করেননি। তিনি ফেসবুকের মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পারেন। সরেজমিনে তদন্ত সাপেক্ষে ব্রিজের ভেঙে যাওয়া এবং ব্রিজ নির্মাণে কোন অনিয়ম হয়েছে কিনা ব্যবস্থা নিবেন জানান তিনি।


পুরোনো সংবাদ

পঞ্চগড় 2239551625473889363

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

ফেকবুক পেজ

কৃষিকথা

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item