সৈয়দপুরে জামান অ্যাকুয়া অর্গানিক ফিশ ফার্ম পরিদর্শন করলেন বেসিক ব্যাংক কর্মকর্তারা

রাস পদ্ধতিতে মাছ চাষ

তোফাজ্জল হোসেন লুতু, সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:

  নীলফামারীর সৈয়দপুরে রাস পদ্ধতিতে মাছ চাষ করা জামান অ্যাকুয়া অর্গানিক ফিশ ফার্মটি পরিদর্শন করলেন বেসিক ব্যাংক লিমিটেডের সৈয়দপুর শাখার কর্মকর্তারা। 

বুধবার সকালে বেসিক ব্যাংক সৈয়দপুর শাখার নির্বাহী ব্যবস্থাপক ও শাখা প্রধান মো. আব্দুল কুদ্দুস সরকার ও উপ-ব্যবস্থাপক মো. মোস্তাক মামুন ওই ফিস ফার্ম পরিদর্শনে যান। এ সময় ফার্মের স্বত্ত্বাধিকারী ও তরুণ উদ্যোক্তা মো. কামরুজ্জামান কনক তাদের অভ্যর্থনা জানান। পরে ব্যাংক কর্মকর্তারা পুরো ফিস ফার্মটি ঘুরে ঘুরে দেখেন এবং  রাস পদ্ধতিতে মাছ চাষ বিষয়ে বিস্তারিত অবগত হন।  ফার্মের স্বত্বাধিকারী ও তরুণ উদ্যোক্তা মো. কামরুজ্জামান কনক তাঁর ফিস ফার্মটি প্রতিষ্ঠাকালীণ থেকে বর্তমান অবস্থায় আসার বিষয়ে ব্যাংক কর্মকর্তাদের অবগত করেন। এ সময় ব্যাংক কর্মকর্তারা তাঁর রাস পদ্ধতিতে মাছ চাষ বিষয়ে কথাগুলো ধৈর্ষ্য ও মনোযোগ সহকারে শোনেন। সেই সঙ্গে ব্যাংক কর্মকর্তারা কনকের ফিস ফার্মটি সম্প্রসারণে তাদের  ব্যাংকের  শাখা থেকে সব রকম আর্থিক সহায়তা প্রদানেরও আশ্বাস প্রদান করেন। এ সময় জামান অ্যাকুয়া অর্গানিক ফিশ ফার্মের কর্ণধার কামরুজ্জামান কনকের বাবা সমাজসেবক মো. খালেকুজ্জামান,সাংবাদিক তোফাজ্জল হোসেন লুতু, নাটোর শহরের নিচাবাজার চৌধুরীবাড়ী থেকে ফিস ফার্মটি দেখতে আসা ব্যবসায়ী মো. হারুণ খান চৌধুরী,  স্থানীয় সমাজসেবক মো. জাহাঙ্গীর আলম বিপ্লব প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

জামান অ্যাকুয়া অর্গানিক ফিশ ফার্ম পরিদর্শন শেষে বেসিক ব্যাংক সৈয়দপুর শাখার নির্বাহী ব্যবস্থাপক ও শাখা প্রধান মো. আব্দুল কুদ্দুস সরকার তাঁর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় জানান, রাস পদ্ধতিতে মাছ চাষ সর্বাধুনিক একটি পদ্ধতি। এ পদ্ধতিতে অল্প জায়গায় বেশি পরিমাণে মাছ চাষ করা সম্ভব। তিনি বলেন, রাস পদ্ধতিতে বেশি বেশি মাছ চাষ করা হলে তা দেশের আমিষের চাহিদা পূরণের অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।

 প্রসঙ্গত, নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার বাঙ্গালীপুর ইউনিয়নের মছে হাজীপাড়ার সমাজসেবক মো. খালেকুজ্জামানের বড় ছেলে তরুণ প্রকৌশলী মো. কামরুজ্জামান কনক। তিনি  গত ২০১৯ সাল থেকে রিসার্কুলেটিং অ্যাকুয়াকালচার সিস্টেমে ছয়টি ট্যাঙ্কে মাছ চাষ শুরু করেন।  যাকে সংক্ষেপে রাস পদ্ধতি বলা হয়। আর চীনে উদ্ভাবিত রাস পদ্ধতিতে অল্প জায়গায় অধিক মাছ চাষ করে আশানুরূপ ফলাফল পেয়েছেন কনক। তাই চলতি বছর থেকে রাস পদ্ধতিতে বাণিজ্যিকভাবে মাছ চাষ শুরু করেছেন তিনি। চলতি আগস্ট থেকে তার ফার্মে উৎপাদিত কৈ মাছ বাজারজাতকরণ শুরু হয়েছে।  আর চলতি বছরের আগামী  সেপ্টেম্বর থেকে কামরুজ্জামানের ফার্মে  উৎপাদিত দেশি কৈ ও শিং মাছ বাজারজাত করা হবে।

  তাঁর জামান অ্যাকুয়া অর্গানিক ফিশ ফার্মে সম্পূর্ণ অর্গানিক ও  কেমিক্যালমুক্ত পদ্ধতিতে  উৎপাদিত সুস্বাদু মাছ কিনতে ভিড় করছেন আগ্রহী ক্রেতাদের। এছাড়া বর্তমানে তিনি সৈয়দপুরে ক্রেতাদের নিকট একেবারে টাটকা মাছ পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে হোম ডেলিভারি সার্ভিসও চালু করেছেন।

জামান অ্যাকুয়া অর্গানিক ফিশ ফার্মের কর্ণধার কামরুজ্জামান কনক বলেন, ফার্মটি গড়ে তুলতে ইতিমধ্যে তাঁর নিজস্ব প্রায় ১৫/১৬ লাখ টাকা ব্যয় হয়েছে। সম্পূর্ণ নিজ উদ্যোগে গড়ে তোলা ফিস ফার্মে তিনি আশানুরূপসফলতাও পেয়েছেন। আগামীতে ব্যাংক থেকে আর্থিক সহযোগিতা পেলে ফার্মটি সম্প্রসারণের উদ্যোগ নেবেন বলে জানান তিনি। 


অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item