সৈয়দপুরে সাড়া ফেলেছে শিক্ষার্থীদের 'জামাই আদর' রেস্টুরেন্ট


খুরশিদ জামান কাকনঃ
লোকে কি ভাবলো, কে কি বললো তাতে যায় আসেনা তাদের। ছোট কাজ, বড় কাজ বলে কিছু নেই তাদের কাছে। প্রত্যেকটা কাজেই তাদের কাছে কাজ। তাইতো লোকচক্ষুকে তোয়াক্কা না করে নিজ উদ্দ্যোমে কিছু করার প্রত্যয়ে অল্পস্বল্প পুজি দিয়ে রেস্টুরেন্ট খুলে ব্যবসা শুরু করেছে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী।


বলছি সৈয়দপুরে অবস্থিত বাংলাদেশ অার্মি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্দ্যোমী কিছু শিক্ষার্থীর কথা। 'চাকরি করবো না, চাকরি দিবো' এইরকই মানসিকতা তাদের। ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে লাভ নয়, সেবাই তাদের মূখ্য উদ্দেশ্যে। তাইতো স্বল্প লাভ নিয়েও খুশি তারা। অল্প কিছুদিনের পথচলায় নিজেদের 'জামাই আদর' রেস্টুরেন্টের খাতিরে সৈয়দপুরে এখন তারা ব্যাপক পরিচিত।


নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার শিক্ষার্থী সাজ্জাদ প্রামাণিক (২২) ও সাকিল ইসলাম (২৩)। দুইজনই বাংলাদেশ আর্মি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএর শিক্ষার্থী। পড়াশোনার পাশাপাশি দ্বীর্ঘদিন ধরে ব্যবসা করার চেস্টা তাদের। এরই ফলশ্রুতিতে মাত্র ৯০ হাজার টাকার পুজি নিয়ে রেস্টুরেন্ট খুলে সৈয়দপুরে ব্যাপক সাড়া ফেলেছেন তারা। মাস দেড়েক আগে ক্ষুদ্র পরিসরে যাত্রা শুরু করা তাদের জামাই আদর রেস্টুরেন্টটি অল্পদিনে সৈয়দপুরে অনেক জনপ্রিয়তা পেয়েছে। মূলত স্বল্পমূল্যে মানসম্মত খাবার পরিবেশনই আলোচিত এই রেস্টুরেন্টের মূলমন্ত্র। 


জামাই আদর রেস্টুরেন্টে গিয়ে দেখা যায়, সকালের খাবারে রয়েছে ফুলপ্লেট খিচুরি, ডিম ও একটি ২৫০ মি.লি প্রাণ আপ। যা রেস্টুরেন্টের একটি বিশেষ প্যাকেজ। এই প্যাকেজটি পাওয়া যাচ্ছে মাত্র ৪০ টাকায়। এছাড়াও বিকেলের নাস্তায় জামাই আদর রেখেছে একটি চিকেন ফ্রাই, তিনটি লুচি, শস, ডাল, সালাত ও ২৫০ মি.লি প্রাণ আপ। বিকেলের বিশেষ প্যাকেজটি পাওয়া যাবে মাত্র ৫০ টাকায়। বর্তমানে এই দুই প্যাকেজের পাশাপাশি জামাই আদরের শাহি চায়েরও কদর বেড়েছে।


করোনাকালীন সময়ে সৈয়দপুরের আর্মি ইউনিভার্সিটি নতুন ছাত্রাবাস সংলগ্ন টেকনিক্যাল কলেজ মোড়ের ভাই ভাই মার্কেটে গড়ে উঠা এই রেস্টুরেন্টটি জন্মলগ্ন থেকেই হোম ডেলিভারির সুবিধা রেখেছে। অনলাইনে তাদের পেজে অর্ডারের মাধ্যমে নামমাত্র ডেলিভারি চার্জে সৈয়দপুর শহরে জামাই আদরের বিশেষ খাবার পৌছে দেওয়া হয়। এক্ষেত্রে সকালের প্যাকেজ অর্ডারের জন্য রাতেই কনফার্ম করতে হয় এবং বিকেলের প্যাকেজের অর্ডার দুপুর পর্যন্ত করা যায়।


বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী সাজ্জাদ ও সাকিলের এই রেস্টুরেন্টের সুস্বাদু খাবার রান্না থেকে পরিবেশন সবটা নিজেরাই করে থাকেন তারা। সৈয়দপুর জুড়ে হোম ডেলিভারির কাজে সহযোগিতা করেন তাদের অন্য সহপাঠীরা। প্রতিদিন সকাল ও বিকেলে প্রচুর ভিড় দেখা যায় সৈয়দপুরের নতুন এই রেস্টুরেন্টে। সেই সাথে অর্ডারের ভিষণ চাপ সামলাতে হয় তাদের।


বর্তমানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেছে এই রেস্টুরেন্টটি। সুলভ মূল্যে জামাই আদরের স্বাদ গ্রহণ করা সৈয়দপুরের অনলাইন এক্টিভ্যাটিজদের পজিটিভ রিভিউ দিনকে দিন এই রেস্টুরেন্টের জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি করছে। সকাল ও বিকেলের নাস্তার পাশাপাশি জামাই আদর রেস্টুরেন্টে খুবশীঘ্রই দুপুরের খাবার যোগ হতে যাচ্ছে। সেই সাথে প্যাকেজ সামগ্রীতেও যুক্ত হচ্ছে নিত্যনতুন আইটেম।


জামাই আদর রেস্টুরেন্টের কর্ণধার সাজ্জাদ প্রামাণিক জানান, 'বিয়ের পর শশুর বাড়িতে জামাইকে যেমন আদর আপ্যায়ন করে খাওয়ানো হয়। সেরকমভাবে কিছুটা হলেও সুলভ মূল্যে কাস্টমারকে আদরযত্ন করে খাওয়ানোই আমাদের উদ্দেশ্য। বিশেষ করে মেসে বা হোস্টেলে থাকা শিক্ষার্থীদের ঘরের বাইরে ঘরের রান্নার স্বাদ পৌঁছে দেওয়ার চেস্টা আমাদের।'


বাংলাদেশ আর্মি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের চতুর্থ বর্ষের এই শিক্ষার্থী আরো জানান, 'ব্যাবসায়িক ক্ষেত্রে আমরা যে খুব বেশি লাভবান হচ্ছি তা কিন্তু না। তবে আমাদের কাস্টমারের সংখ্যা সময়ের সাথে লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে। দিনশেষে এটাই আমাদের প্রাপ্তি। আমরা সর্বদায় স্বল্পমূল্যে ক্রেতাদের নিকট মানসম্মত খাবার পরিবেশন করার চেস্টা অব্যাহত রাখবো।'

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 7086946797212839244

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item