পাগলাপীরে সামান্য বৃষ্টিপাতে বিভিন্ন সড়কে জলাবদ্ধতায় পথচারী সহ ব্যবসায়ীদের ভোগান্তি


হাবিবুর রহমান সেলিম, পাগলাপীরঃ
সামান্য বৃষ্টিপাতের পানিতে রংপুরের ব্যস্ততম বাণিজ্যিক বন্দর পাগলাপীরের বিভিন্ন সড়কে জলবদ্ধতা সৃষ্টি হয়ে পরায় পথচারী, সাধারন মানুষজন সহ বিভিন্ন ব্যবসায়ী মহল ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন। গতকাল শনিবার দিনভর নিরবিচ্ছিন্ন বৃষ্টিপাতে পাগলাপীর বন্দরের হাইওয়ে সহ জনগুরুত্বপূর্ণ ৫টি সড়কের হাফ কিলোমিটার জুড়ে বিভিন্ন স্থানে জলাবন্ধতার সৃষ্টি হয়ে পড়ছে। বিশেষ করে রংপুর- দিনাজপুর-ঢাকা হাইওয়ে সড়কের পাগলাপীর বন্দরের গোরা চত্ত্বরের সাথী স্টুডিও এর সামন হতে বিআরটিসি কাউন্টার অফিস হয়ে পেট্রোল পাম্প মোড়ের দুখুর ভ্যারাইটিজ ষ্টোরের দোকানের সামন পর্যন্ত, লাহিড়ীরহাট-শ্যামপুর সড়কের হাইওয়ে সড়স সংলগ্ন রাজু সেলুনের সামন হতে জাহাঙ্গীরের কাঠ-খরীর দোকানের সামন পর্যন্ত এবং ডালিয়া-বুড়িমারী সড়কের গোল চত্ত্বরের বট গাছ তলায় মিঠুর পানের দোকান ও উদয়ন ফার্মেসীর সামন হতে ফজিলাতুন্নেছা শিশু নিকেতনের প্রধান গেটের সামন পর্যন্ত ৩টি সড়কে সামান্য বৃষ্টিপাতের পানিতে পায়ের গোড়ালী পর্যন্ত কোথাও হাটু জমি জমে উঠে জলাবন্ধতার সৃষ্টি আবার কোথাও কোথাও কাঁদা-পানি একাকারে পরিণত হয়ে পরায় শিক্ষার্থী পথচারী সহ সাধারন মানুষজনের সড়কে চলাচল কষ্টকর হয়ে পরছে। তবে প্রয়োজনের তাগিদে শিক্ষার্থী-পথচারী সহ সাধারন মানুষজন জলাবদ্ধতা কিংবা কাঁদাপানির মধ্যে দূর্ভোগে সড়কে চলাচল করতে পারলেও ক্রেতা সংকটে ব্যবসা-বাণিজ্য নিয়ে বিপাকে পরেছেন উক্ত সড়কগুলোর দু’ধারে গড়ে উঠা বিভিন্ন হোটেল-রেঁস্তোরা, পানের দোকান, গালামাল সহ নানা ক্ষুদ্র ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিকরা। সরেজমিনে পাগলাপীর বন্দরের ডালিয়া সড়ক দোকান মালিক সমিতির সম্পাদক শাকিল হোসেন সহ বিভিন্ন মহল ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, পাগলাপীর বন্দরে স্থায়ী ভাবে পানি নিষ্কাশনের জন্য কোন ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় সামান বৃষ্টিপাতে এ পরিস্থিতি বিরাজ করছে, তবে এ অবস্থা দীর্ঘদিন ধরে চলে আসছে। তারা অভিযোগ করে বলেন, ডালিয়া সড়কে পানি নিষ্কাশনের জন্য রংপুর  সড়ক ও জনপথ বিভাগ কর্তৃপক্ষ দেড়-দুই বছর পূর্বে অর্ধ কোটি টাকা ব্যয়ে উদয়ন ফার্মেসীর সামন হতে মেরী টকিজ সংলগ্ন পুকুর পাড় পর্যন্ত ৮০০মিটার একটি ড্রেন নির্মাণ করেন। কিন্তু ড্রেনটি নিম্নমানের উপকরণ দিয়ে নির্মাণ করায় এক মাস যেতে না যেতেই স্লাব ভেঙ্গে যাওয়ায় ড্রেনটি পরিত্যাক্ত হয়। এরপর উক্ত ড্রেনটি সংস্কারের উদ্যোগ গ্রহণ না করেই আরেকটি নতুন ড্রেন নির্মাণের দরপত্র আহ্বান করেন সংশ্লিষট মহল। পানি ফেলার কোন জায়গা না থাকায় ডালিয়া সড়কের সেই বরাদ্দকৃত কয়েক কোটি টাকার ড্রেন এখন রংপুর-দিনাজপুর-ঢাকা হাইওয়ে সড়কের পাগলাপীর বন্দরের ব্যাংক এশিয়ার সামন হতে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-২ এর সদর দপ্তর সংলগ্ন পর্যন্ত দু’ধারে নিমাণ কাজ চলছে বলে তারা জানান। সদর উপজেলা জাতীয় ছাত্র সমাজের আহ্বায়ক আসাদুজ্জামান টিটু ও বিআরটিসি পাগলাপীর কাউন্টার অফিসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিশিষ্ট্য ঠিকাদান মোঃ মহসীন আলী সহ বিভিন্ন মহল জানান, শুধু দুই একটি ড্রেন নির্মাণ করলে হবে না, পাগলাপীর  বন্দরে স্থায়ী ভাবে পানি নিষ্কাশনের জন্য ড্রেন নির্মাণের দাবি জানান তারা। 


পুরোনো সংবাদ

রংপুর 4759611721609336150

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item