পঞ্চগড়ে বাঘের নাগাল পেতে কাটা হচ্ছে পরিত্যক্ত বাগান ও জঙ্গল

পঞ্চগড় প্রতিনিধিঃ পঞ্চগড় জেলাধীন সদর উপজেলার সাতমেড়া ইউনিয়নের মুহুরীজোত ও সাহেবীজোত এলাকায় বাঘের হামলার ঘটনার পর স্থানীয়দের সুরক্ষার কথা চিন্তা করে সেই দুই বাচ্চাকে নিয়ে একটি চিতাবাঘ ধরতে তৎপর হয়ে হঠেছে প্রশাসন ও বন বিভাগ। ইতোমধ্যে শিকার করতে প্রস্তুত করা হয়েছে খাঁচা।


আর অন্যদিকে প্রায় চার একর জমির উপর গড়ে ওঠা জঙ্গলাকীর্ণ পরিত্যক্ত সেই চা বাগান স্থানীয়দের সহযোগিতায় পরিষ্কার করছে প্রশাসন।


২১ আগস্ট/২০২০  শুক্রবার সকাল থেকে মুহুরীজোত গ্রামের সেই জঙ্গলাকীর্ণ পরিত্যক্ত চা বাগানের আশপাশ ঘুরে দেখা যায় এমন চিত্র। 


এতে সাতমেরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান জানান, পঞ্চগড় সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আরিফ হোসেন ও তেঁতুলিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহাগ চন্দ্র সাহা, সদর ও তেঁতুলিয়া থানার ওসি আবু আককাছ আহমেদ ও মো. জহুরুল ইসলামসহ বন বিভাগের লোকজন এসে ওই চা বাগান ও জঙ্গল কাটার নির্দেশনা দেন। তাদের নির্দেশনা মোতাবেক আমার ইউনিয়নের ইউপি সদস্য মো. মিন্টু কামাল ১৯ জন শ্রমিক দিয়ে পরিষ্কার কাজে লাগিয়েছেন। চা বাগান ও জঙ্গলটি খুবই ঘন হওয়ায় কাটতে সময় লাগছে। কবে নাগাদ কাটা শেষ হবে এটা বলা কঠিন। 

সাতমেরা ইউনিয়নের ইউপি সদস্য মো. মিন্টু কামাল জানান, বাঘের আতঙ্কে আমার এলাকার লোকজন রাত জেগে পাহারা দিয়ে আসছেন। বাঘ ধরতে অভিযানের অংশ হিসেবে এই চা বাগান ও জঙ্গল কাটা শুরু হয়েছে।


তিনি আরও জানান, তেঁতুলিয়া উপজেলার ভজনপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল জব্বার ও তার সমন্ধি (স্ত্রীর বড় ভাই) রমজান আলীর সঙ্গে ওই চা বাগান নিয়ে ৭/৮ বছর ধরে আদালতে মামলা চলমান আছে। এ কারণে চা বাগান থেকে পাতা উত্তোলন না হওয়াসহ পরিচর্যা না করায় চা বাগানটি জঙ্গলে পরিণত হয়েছে। চা বাগানের দুই পক্ষের সম্মতিক্রমে প্রশাসনের নির্দেশে এটি কাটা হচ্ছে বলেও তিনি জানিয়েছেন।


২০ আগস্ট উল্লেখিত ঘটনা সূত্রে জানাযায়, ভারত থেকে আসা দুই বাচ্চাকে নিয়ে একটি চিতাবাঘ গত একমাস থেকে পঞ্চগড় সদর উপজেলার সাতমেরা ইউনিয়নের ওঁই চাবাগান ও জঙ্গলে অবস্থান করে এলাকাবাসির ছাগল গরুকে আক্রমণ করেন। 

এলাকাবাসি জানান, তাঁরা এলাকার মধ্যে বাঘের ভয়ে ভয়ভীতির আতঙ্কে অবস্থান করছেন।

এব্যাপারে বনবিভাগ ও প্রশাসনের কর্মকর্তারাও সেখানে বাঘের অবস্থান আছে বলে জানিয়েছন।


পুরোনো সংবাদ

পঞ্চগড় 7603076619226223502

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

ফেকবুক পেজ

কৃষিকথা

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item