পানি নিস্কাশনের পথ বন্ধ করে ফসলহানীর প্রতিবাদে ফুলবাড়ীতে ১০ গ্রামবাসীর মানব বন্ধন।

মেহেদী হাসান উজ্জল,ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি:
দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে গতকাল বৃহস্পতিবার পানি নিস্কাশনের পথ বন্ধ করে ফসলহানীর প্রতিবাদে মানব বন্ধন করেছেন, উপজেলার খয়েরবাড়ী ও দৌলতপুর ইউনিয়নের ১০ গ্রামের বাসীন্দারা।
উত্তর লক্ষিপুর বাজারে দিনাজপুরÑঢাকা মহাসড়কের পাশে দাঁড়িয়ে বেলা ১১ টা থেকে দুপুর ১২ টা প্রর্যন্ত এক ঘন্টা ব্যাপী এই মানববন্ধন করেন গ্রামবাসীরা।

মানব বন্ধনে পানি স্কিাশনের ব্যবস্থা করে আগামী ইরি-বোরো ফসল উৎপাদনের দাবী জানিয়ে গ্রাম বাসীদের পক্ষে বক্তব্য রাখেন,খয়েরবাড়ী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোজাফ্ফর হোসেন চৌধুরী,মহদীপুর গ্রামের বাসীন্দা প্রভাষক অনিল চন্দ্র সরকার, খয়েরবাড়ী ইউপি সদস্য মকছেদুল সরকার, পুর্ব নারায়নপুর গ্রামের কৃষক আনোয়ার হোসেন, লালপুর গ্রামের আবুল খায়ের, মহদীপুর গ্রামের মঞ্জুরুল ইসলাম, বারাইপাড়া গ্রামের বাসীন্দা দৌলতপুর ইউনিয়নের সাবেক ইউপি সদস্য মোশারাফ হোসেন, উত্তর লক্ষিপুর বাজারের আব্দুল খালেক প্রমুখ।

ভুক্তভোগীরা বলেন সরকারে খাশ খতিয়ান ভুক্ত জলাশয় আখিঁরার বীলটি পুর্ব নারায়নপুর থেকে শুরু হয়ে, মহেষপুর, মহদিপুর, উত্তর লক্ষিপুর বাজারের কোল ঘেষে, দৌলতপুর ইউনিয়নের বারাইপাড়া ঘোনাপাড়া গড় পিংলাই হয়ে শাখা যমুনা নদিতে মিলিত হয়েছে। শত শত বছর থেকে এই বীল দিয়ে এই অঞ্চলের পানি নিস্কাশন হয়ে থাকে। কিন্ত গত চার বছর থেকে এই জলাশয়টি একটি ভূমিদস্যু গোষ্টি সরকারের নিকট লিজ নিয়ে পানি নিস্কাশনের পথ বন্ধ করে পুকুর খনন করেছে। এই কারনে এখন এই ১০ গ্রামের বর্ষার পানি নিস্কাশন হচ্ছেনা, ফলে জলাবন্ধতা সৃষ্টি হয়েছে। এতেকরে ১০ গ্রামের প্রায় দুই হাজার বিঘা জমিতে আমন ও বোরো চাষ করতে পারছেনা এই অঞ্চলের কৃষক।
খয়েরবাড়ী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোজাফ্ফল হোসেন চৌধুরী বলেন, আখিরার বীলের পানি নিস্কাশন না হওয়ায়, এই ১০ গ্রামের মানুষ এখন পথে বসেছে, তাদের পিঠ দেয়ালে ঠেকেছে, তাই এখন তারা আন্দোলনে নেমেছে, প্রয়োজনে আরো কঠোর আন্দোলনে নামবে গ্রামবাসীরা ।

এই বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুস সালাম চৌধুরীরর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন  গ্রামবাসীদের পানি নিস্কাশনের বিষয়টি নিরসন করার জন্য, দৌলতপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজ মন্ডল ও খয়েরবাড়ী ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আবু তাহের মন্ডলকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল কিন্তু ওই দুই চেয়ারম্যান তাদের দায়িত্ব সঠিক ভাবে পালন না করায়, গ্রামবাসীদের পানি নিস্কাশনের বিষয়টি নিরশন করা সম্ভাব হয়নি।
এদিকে খয়েরবাড়ী চেয়ারম্যান আবু তাহের মন্ডল পানি নিস্কাশনের বিষয়টি দৌলতপুর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজ মন্ডলের অসহযোগীতার কারনে নিরশন করা সম্ভাব হয়নি বলে জানান। তবে দৌলতপুর চেয়ারম্যান আব্দুল আজিজকে ফোনে পাওয়া যায়নি।
উল্লেখ্য আখিঁরা বীলের পানি নিস্কাশনের পথে গত চার বছর থেকে কয়েকটি পুকুর খনন করে পানি নিস্কাশনের পথ বন্ধ করে দেয়ায়, গত চার বছর থেকে পানির নিচে তলিয়ে যাচ্ছে প্রায় দুই হাজার বিঘার ফসল, এই কারনে গত তিন বছর থেকে পানি নিস্কাশনের দাবী জানিয়ে আসছে খয়েরবাড়ী ও দৌলতপুর ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্থ ১০ গ্রামের মানুষ। ঘটনাকে কেন্দ্র করে উপজেলা প্রশাসন ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সাথে একাধিকবার বৈঠক করেও এখন প্রর্যন্ত পানি নিস্কাশনের বিষয়টি নিরসন হয়নি।

পুরোনো সংবাদ

দিনাজপুর 5512999184226258602

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item