কিশোরগঞ্জে এলজিএসপি প্রকল্পে অনিয়ম তদন্ত কমিটি গঠন,নির্মান শেষ হতে না হতেই প্রকল্পে ধস


মোঃ শামীম হোসেন বাবু, কিশোরগঞ্জ(নীলফামারী)সংবাদদাতাঃ
নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার পুটিমারী,চাঁদখানা ও নিতাই ইউনিয়নে লোকাল গর্ভমেন্ট সাপোর্ট প্রজেক্ট(এলজিএসপি-৩) প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়নে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় নীলফামারী জেলা প্রশাসকসহ সংশ্লিষ্ট  বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছে খোদ পুটিমারী ইউনিয়নের ৭.৮ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা সদস্য সাহেরা বানু। 

অভিযোগ ও সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, ২০১৯-২০ অর্থ বছরে লোকাল গর্ভমেন্ট  সাপোর্ট পজেক্ট এলজিএসপি ৩ প্রকল্প থেকে উপজেলার পুটিমারী ইউনিয়নে ১৭টি প্রকল্পে ২২ লাখ ১৬ হাজার ১৭১ টাকা,একই অর্থবছরে  পিবিজি থেকে ৩ টি প্রকল্পে ৯ লাখ ৫২ হাজার ৯৫৪ টাকা। নিতাই ইউনিয়নে ২০ টি প্রকল্পে ১৮ লাখ ৮৫ হাজার ২৪১ টাকা এবং চাঁদখানা ইউনিয়নে ১০ টি প্রকল্পে ২১ লাখ ৭৮ হাজার টাকা বরাদ্দ প্রদান করা হয়। সরকারী নীতিমালা অনুযায়ী প্রকল্পের কাজে এক নম্বর ইট ব্যবহারসহ প্রকল্প এলাকার জনসাধারনকে প্রকল্প সম্পর্কে অবহিত করার জন্য  তথ্য বিবরন সংবলিত সাইনবোর্ড লাগানো বাধ্যতামুলক। কিন্তু প্রকল্প বাস্তবায়ন প্রকল্পের সভাপতিগন তা না করে নি¤œমানের সামগ্রী দিয়ে কাজ বাস্তবায়ন করছেন। ফলে কাজ বাস্তবায়নের এক মাসের মধ্যেই প্রকল্পের কাজে ভাঙ্গনসহ ফাটল দেখা দিয়েছে।

পুটিমারী ইউনিয়নের ৭ নং ওয়ার্ডের ৩ নম্বর প্রকল্পের কান্দুরার মোড় হতে শুরু করে ছমেরের পাড়া যাওয়ার রাস্তায় সিসি করণ কাজের জন্য বরাদ্দ ধরা হয়েছে ৭ লাখ ৫২ হাজার ৯৫৪ টাকা। ওই সড়কে গিয়ে দেখা যায় সড়ক নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে কিন্তু প্রকল্পে কোন তথ্য সংবলিত সাইনবোর্ড নেই। এসময় ওই এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা  সোহানুর রহমান,লাকি বেগম, মোশফেকুর রহমান অভিযোগ করে বলেন, ৭ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মাহবুবার রহমান বাদশা তড়িঘরি করে নি¤œমানের সালটু ইট দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করেছেন। এ কারনে রাস্তাটি নির্মাণের একমাসের মধ্যেই রাস্তাটিতে ফাটল ধরেছে। একই ওয়ার্ডের খেজুরপাড়া থেকে কান্দুরার মোড় যাওয়ার রাস্তায় দেখা যায় এলজিএসপির অর্থে নির্মিত একটি কালভার্ট ধসে পড়েছে। 

৭ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মাহবুবার রহমান বাদশা বলেন, রাস্তার কাজ আমি করিনি চেয়ারম্যান নিজে করেছেন। কালভার্ট ধসে যাওয়ার বিষয়ে বললে তিনি বলেন, এটি পুর্বের অর্থ বছরের। 

নিতাই ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের ২ নম্বর প্রকল্পে দুলাল মৌলভীর পুকুর পাড়ে কাঁচা রাস্তার পাশে গাইড ওয়াল নির্মান প্রকল্পে বরাদ্দ ধরা হয় ২ লাখ টাকা। ওই এলাকার বাসিন্দা আব্দুল মজিদ,বাদশা মিয়া, কেরামত আলী বলেন, চেয়ারম্যান মাহিন্দ্র ট্রাক্টরে করে দুই থেকে তিন ট্রলি ইট এনে তিন দিনের মধ্যে কাজ শেষ করে চলে গেছেন। এছাড়াও নিতাই ইউনিয়নের কাচারীরহাট থেকে মৌলভীর হাট যাওয়ায় রাস্তায় নির্মিত একটি কার্লভাট নির্মান করার কয়েকদিনের মাথায় ভেঙ্গে পড়েছে। এদিকে চাঁদখানা ইউনিয়নের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের শাহপাড়া মসজিদ থেকে শুরু করে নাপিতপাড়া পর্যন্ত সড়ক নির্মানে নি¤œমানের সামগ্রী ব্যবহার করার জন্য এলজিএসপি প্রকল্পের জেলা ডিএফও বরারব অভিযোগ জানিয়েছে এলাকাবাসী। 

নিতাই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফারুকুজ্জামান ফারুক বলেন, আমি স্বচ্ছতার সাথে এলজিএসপির কাজ করছি। তিনি কাজে সকল অনিয়মের অভিযোগ অস্বিকার করেন। তাহলে কাজ করার কয়েকদিনের মাথায় কার্লভার্টের এলিং ভেঙ্গে গেল কেন। প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, প্রথমে নিজেদের পকেট থেকে প্রকল্পের কাজ করতে হয়। যদি কার্লভার্টের এলিং ভেঙ্গে থাকে তাহলে পুনরায় মেরামত করা হবে।  

পুটিমারী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবু সায়েম লিটন বলেন, কাজে কোন অনিয়ম হয়নি। কেউ অভিযোগ দিলে আমার করার কি আছে। কাজ করার কয়েকদিনের মাথায় সড়কে ফাটল ধরল কেন প্রশ্ন করলে তিনি বলেন, এগুলা দেখতে যাওয়া কি দরকার, আসেন কথা হবে। বলে তিনি ফোন কেঁটে দেন।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার রোকসানা বেগম বলেন, নীলফামারী জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে আমাকে অভিযোগের বিষয়ে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।

এলজিএসপি প্রকল্পের নীলফামারী জেলা ফ্যাসিলেটেটর (ডিএফও) আবু হেনা মোস্তফা বলেন, চাঁদখানা ইউনিয়নের এলজিএসপির কাজে অনিয়মের অভিযোগ পেয়ে বিল বন্ধ রাখা হয়েছে। সব প্রকল্পের কাজ পরিদর্শন সাপেক্ষে বিল প্রদান করা হবে। কাজে অনিয়ম হলে পুনরায় কাজ করতে হবে। 


পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 8016894150302610529

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

ফেকবুক পেজ

কৃষিকথা

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item