ডিমলায় ঠাকুরগঞ্জ হাট-বাজারের জায়গায় অবকাঠামো নির্মাণ


জাহাঙ্গীর রেজা, ডিমলা (নীলফামারী) প্রতিনিধি :
  নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার সীমান্তে ১নং পশ্চিম ছাতনাই ইউনিয়নে ঠাকুরগঞ্জ হাট-বাজারের জায়গা দখল করে অবকাঠামো গোডাউন ও দোকানঘর নির্মাণে ইউপি চেয়ারম্যান এর বিরুদ্ধে নিজ স্বার্থ চরিতার্থের অভিযোগ তুলে প্রায় দুই শতাধিক এলাকাবাসী গত ১৮ জানুয়ারী/২১ গণস্বাক্ষর করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বরাবরে অভিযোগ করেছে বলে খবর পাওযা গেছে। উক্ত ইউপি চেয়ারম্যানের সেচ্ছাচারিতায় অবকাঠামো নির্মাণ বন্ধের দাবী তুলে উক্ত স্থানে দাঁড়িয়ে এলাকাবাসী মানববন্ধন করেছে। ঘটনার বিবরণে জানা যায়, পশ্চিম ছাতনাই ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন ঐতিহ্যবাহী ঠাকুরগঞ্জ হাট-বাজারে গরুর হাট অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে দীর্ঘদিন ধরেই। ঐতিহ্যবাহী এই হাট-বাজারের উক্ত স্থানে দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় কৃষকদের উৎপাদিত মরিচের হাট-বাজার বসিয়ে ক্রয়-বিক্রি করা হত প্রায় এক যুগ ধরেই। পরবর্তীতে ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আনোয়ারুল হক সরকার তার নিজস্বার্থ চরিতার্থেই উক্ত মরিচের হাট উঠিয়ে দিয়ে গরুর হাট লাগিয়ে দিয়েছেন। এই গরুর হাটটিও চলছে প্রায় এক যুগ ধরেই। ইউপি চেয়ারম্যানের আবারও চোখ পড়ে গরুর হাটে। তিনি এলাকায় কারো সাথে কোন আলোচনা না করেই মনগড়া ভাবেই তিনি গরুর হাট উঠিয়ে দিয়ে হটাৎ করেই অবকাঠামো নির্মাণ করতে থাকেন। এসময় এলাকাবাসীর পক্ষে হাট-বাজারের সুবিধাভোগীরা বাঁধা দিলেও ইউপি চেয়ারম্যান অবকাঠামো নির্মাণ কাজ চালিয়ে যান। চেয়ারম্যানের এমন কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে এলাকাবাসী গত ১৭-জানুয়ারী/২১  বিকালে নির্মাণ কাজ বন্ধ ও গরুর হাটটি বাঁচাতেই উক্ত জায়গা উদ্ধারের দাবিতে এলাকাবাসী প্রতিবাদ সভা করেই গণস্বাক্ষরিত লিখিত অভিযোগটি ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে জমা দেন। ইউনিয়ন কৃষক লীগের আহবায়ক ও বিশিষ্ট সমাজ সেবক মোঃ মাহাবুবুল আলম দুলাল এর পরিচালনায় ব্যানার হাতে প্রতিবাদ সমাবেশে সংক্ষিপ্ত বক্তৃতা করেন নীলফামারী জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও পশ্চিম ছাতনাই ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এমদাদুল কবীর চৌধুরী, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি ও হাট-বাজারের ইজারাদার আব্দুল গফুর, ইউনিয়ন আ'লীগের দপ্তর সম্পাদক ও সাবেক ইউপি সদস্য মোঃ অলিয়ার রহমান, উপজেলা অটো চালক সমবায় সমিতির সহ-সভাপতি সাজ্জাদুল ইসলামসহ অনেকেই। প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তৃতায় বক্তাগণ বলেন, এই গরুর হাটটিতে গরু ক্রয়-বিক্রয়ে কাজ করে এই ইউনিয়নের প্রায় শতকরা ১০ ভাগ মানুষ জীবিকা নির্বাহ করে থাকেন। অথচ চেয়ারম্যান তাদের কথা না ভেইে শুধু মাত্র নিজের স্বার্থের জন্যেই এসব করছে। শুধু তাই নয়, এই অঞ্চলে প্রায় ৮০ শতাংশ কৃষক মরিচ আবাদ করেন। আর এই বিপুল পরিশাণ মরিচ কেনা-বেচা হত এই হাটেই। সেই মরিচের হাটটিও তুলে দেওয়ায় এখন প্রায় ১০-১৫ কিলোমিটার দুরে গিয়ে মরিচের কেনা-বেচা করতে হয় এই অঞ্চলের মানুষদের। ফলে চরম দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে এলাকাবাসীকে। বক্তৃতায় বক্তারা আরো বলেন, আমরা এলাকাবাসী সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে অনুরোধ করবো অতিদ্রæত গরুর হাট-বাজারটি বাঁচাতে অবকাঠামো নির্মাণ কাজ বন্ধ করুন এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিন। বক্তারা হুসিয়ারী দিয়ে বলেন, অতিসত্তর অবকাঠামো নির্মাণকাজ বন্ধ করা না হলে লাগাতার প্রতিবাদ সভাসহ নানা কর্মসূচীর মাধ্যমে নির্মাণকাজ প্রতিহত করা হবে। 

এ ব্যাপারে ইউপি চেয়ারম্যান আনোয়ারুল হক সরকার বলেন, পরিষদের মোট ১ একর ৭৪ শতাংশ জমির মধ্যে পশ্চিম ছাতনাই ইউনিয়ন পরিষদ ভবন রয়েছে। ভবনের পাশে পুকুর ও খালি যে জায়গাটি রয়েছে সেটিও ইউনিয়ন পরিষদেও জায়গা। ফলে আমি সেখানে কিছু সংখ্যক মানুষের কাছে জামানত বাবদ অর্থের নিয়ে দোকান ঘর ও গোডাউন নির্মাণ করে দিচ্ছি। তিনি আরো বলেন, সামনে নির্বাচন তাই প্রতিপক্ষ আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনে আমার সন্মান নষ্ট করার চেষ্টা করছে।


পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 7631234056531549606

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

ফেকবুক পেজ

কৃষিকথা

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item