নীলফামারীতে প্রথম ধাপে করোনার ৬০ হাজার ডোজ টিকা আসছে


ইনজামাম-উল-হক নির্ণয়, নীলফামারী॥ প্রথম ধাপে নীলফামারী জেলায় করোনা প্রতিরোধী ৬০ হাজার ডোজ টিকা আসছে। এই টিকা আগামী দুই দিনের মধ্যেই নীলফামারীতে পৌঁছাবে। টিকা সংরক্ষণ ও দেওয়ার জন্য সব ধরণের প্রস্তুতি সম্পূর্ণ করা হয়েছে বলে আজ বুধবার(২৭ জানুয়ারী/২০২১) দুপুর ১টায় নীলফামারী সিভিল সার্জন ডা. জাহাঙ্গীর কবির নিশ্চিত করেছেন।
তিনি বলেন, স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে পাঠানো এক চিঠিতে আমরা নিশ্চিত হয়েছি যে, প্রথম ধাপে নীলফামারী জেলায় ৬০ হাজার ভায়াল টিকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এই টিকা জেলা শহর ও ৬ উপজেলায় সরবরাহ করা হবে। সিরাম ইনস্টিটিউটের এই টিকা ২ থেকে ৮ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রায় আইএলআর ফ্রিজে সংরক্ষণ করা হবে। এ জন্য জেলা শহরের ইপিআই এর টিকা সংরক্ষন কক্ষে ব্যবস্থা করা হয়েছে। এখানে প্রায় ২০ লাখ টিকা সংরক্ষন সম্ভব হবে। সার্বিক বিষয়ে মনিটরিং করার জন্য স্বাস্থ্য মন্ত্রনালয়ের নির্দেশে নীলফামারীতে করোনা ভাইরাস ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য জেলা কমিটি ও ঢাকা থেকে প্রেরিত টিকা গ্রহন এবং সংরক্ষনে পৃথক দুইটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। ইতোমধ্যে কমিটি দুইটির জরুরী বৈঠক করে সকল ব্যবস্থা গ্রহন করেছে।
তিনি আরও জানান সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী প্রথম ধাপে সরকারী-বেসরকারী স্বাস্থ্যকর্মী, জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী, বীর মুক্তিযোদ্ধা, গণমাধ্যমকর্মী, নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি, পুলিশ সদস্য, পয়নিস্কাশনকর্মীসহ বিভিন্ন পেশাজীবীদের করোনা টিকা দেওয়ার হবে। আমরা ইতোমধ্যে স্বাস্থ্য অধিদফতরের পাঠানো ছক অনুযায়ী প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে তালিকা তৈরি শুরু করেছি, যা শেষ পর্যায়ে।
টিকা দেওয়ার জন্য নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে হাসপাতাল সহ ৬টি উপজেলা হাসপাতালে একই ভাবে ৪টি করে বুথ করা হয়েছে। প্রতিটি বুথের টিমে টিকাদানে অভিজ্ঞ ২ জন স্বাস্থ্য কর্মী ও ৪ জন স্বেচ্ছাসেবক কাজ করবে। এছাড়া টিকা নেওয়ার পরে ওই ব্যাক্তিকে হাসপাতালের বিছানায় ৩০ মিনিট শুয়ে রাখা হবে। কোনো সমস্যা হলে সমাধানের জন্য ৭ সদস্য বিশিষ্ট অ্যাডভান্স ইভেন্টস ফলোয়িং ইমুউনাইজেশন ম্যানেজমেন্ট (এইএফআই) টিম গঠন করা হয়েছে। এসব কমিটির লোকদের প্রশিণ দেওয়া হয়েছে। যারা টিকা নেবেন তাদের সুরা নামে দেশব্যাপী একটি ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম চালু হয়েছে। সুরক্ষায় সেলফ রেজিস্ট্রেশন মাধ্যমে এতে অনলাইনে নিবন্ধন ও ভ্যাকসিন কার্ড ডাউনলোড করে নিবেন। নিবন্ধিত মোবাইল নম্বরে নির্ধারিত সময়ে এমএমএসের মাধ্যমে টিকা দেয়ার তারিখ ও কেন্দ্র জানানো হবে। টিকা কেন্দ্রে যাওয়ার সময় প্রিন্টেড টিকা কার্ড ও জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি সঙ্গে নিতে হবে।
করোনা ভাইরাস ভ্যাকসিন প্রদান কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য জেলা কমিটির সভাপতি জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী জানান, ইতোমধ্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। সমন্বয় সভা অনুষ্টিত হয়েছে। এ ব্যাপারে সার্বিক সহায়তা করতে জেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগ তৃণমূল পর্যায়ে কাজ করছে। জনসচেতনতা সৃষ্টির জন্য দায়িত্বশীল সেচ্ছাসেবী টীম গঠন করা হচ্ছে। তিনি গণমাধ্যম-সহ বিভিন্ন শ্রেণীপেশার প্রতিনিধিত্বশীল মানুষের সার্বিক সহায়তা কামনা করেন।

পুরোনো সংবাদ

হাইলাইটস 7229631096525301020

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

ফেকবুক পেজ

কৃষিকথা

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item