নীলফামারীতে টাকা ফেরত পেতে দুইঘন্টা সড়ক অবরোধ॥ প্রতারনার ফাঁদে পরে কাদঁছে সহস্রাধীক নারী


 ইনজামাম-উল-হক নির্ণয়,নীলফামারী॥ রাস্তায় বসেছে সহস্রাধীক নারী। চোখ দিয়ে বয়ে আসছে কান্না। প্রতারনার ফাঁদে পরে লাখ লাখ টাকা খুয়েছে তারা। নীলফামারীর ডোমার উপজেলায় প্রতারনার মাধ্যমে টাকা খোয়ানো নারীরা টাকা ফেরত পেতে আজ সোমবার(১৪ ডিসেম্বর/২০২০) বিকাল ৩টা থেকে শহরের রেলঘুন্টির মোড়ে দুই ঘন্টা ব্যাপী সড়ক অবরোধ করে। এরপর তারা উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাহিনা শবনম, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল মালেক সরকার ও ওসি মোস্তাফিজার রহমান অবরোধস্থলে উপস্থিত হয়ে তাদেরকে আইনি সহায়তা প্রদানের আশ্বাস প্রদান করলে তারা অবরোধ তুলে নেয়।
অভিযোগে নারীরা বলছেন, বিভিন্ন লোভনীয় প্রস্তাবে সহাস্রাধীক নারীকে সংগঠনের কর্মী বানিয়ে কয়েক কোটি টাকা হাতিয়ে নেয় নীলফামারীর ডোমার উপজেলা “ভোগ্যপণ্য সমবায় সমিতি” নামে একটি প্রতিষ্ঠান। মাত্র দেড় মাসের মধ্যে কোটি টাকা হাতিয়ে নেয় তারা। এরমধ্যে গত শনিবার(১২ ডিসেম্বর) ৩৫ লাখ টাকা নিয়ে সংগঠনের ক্যাশিয়ার ও দুইজন ট্রেইনারসহ ৩জন পালিয়ে যায়। খবর পেয়ে নারী কর্মীরা ডোমার সাহাপাড়া এলাকার সংগঠনের কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে কর্তৃপক্ষের কাউকে না পেয়ে বিক্ষুদ্ধ হয়ে পড়ে। এরপর ওই প্রতিষ্ঠানের সভাপতি ও পরিচালক নিজেরাই থানায় গিয়ে বিষয়টি অবহিত করেন। এসময় সহস্রাধীক নারী কর্মীরা থানায় উপস্থিত হয়ে টাকা ফেরত চান। সবার টাকা ফেরত দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়ে এক কোটি টাকার চেক ও নগদ ছয় লাখ টাকা উপজেলা সমবায় অফিসার নুরুজ্জামান খানের নিকট জমা ও মুচলেকা দিয়ে ছাড়া পান সংগঠনের সভাপতি মানিক হাসান মালিক ও পরিচালক মামুন রহমান। ছাড়া পাওয়ার পরদিন তারা কর্মীদের টাকা ফেরত দেওয়া কার্যক্রম শুরু করলেও আজ সোমবার সকাল থেকে তাদেরও আর কোন হদিস পাওয়া যাচ্ছে না।
সংগঠনের প্রতারিত কর্মীরা অভিযোগ করে বলেন, উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা নুরুজ্জামান কোন তদন্তই করে নাই। ওই রেজিষ্ট্রেশন নম্বরই প্রতারকদের বৈধতা দিয়েছেন।
ডোমার থানার ওসি মোস্তাফিজার রহমান জানান, আমরা পুলিশের পক্ষ হতে ভুক্তভোগীদের বার বার ওই সমবায় প্রতিষ্ঠানে টাকা দিতে নিষেধ করি। তারা আমাদের কথা না শুনে পুলিশের উপর চড়াও হয়। আমি ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ জনপ্রতিনিধিরা তাদের সহযোগীতার আশ্বাস দিলে তারা অবরোধ তুলে নেয়।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিনা শবনম জানান, আমরা ভুক্তভোগী নারীদের টাকা ফেরত দেওয়ার সকল চেষ্টা করছি। সেই সাথে প্রতারকদের বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 9187312824977868134

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

ফেকবুক পেজ

কৃষিকথা

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item