নীলফামারী পৌরসভা ও তিনটি ইউনিয়নের ভোটের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও স্মারকলিপি প্রদান


ইনজামাম-উল-হক নির্ণয়,নীলফামারী॥
সীমানা জটিলতায় মামলায় আটকে থাকা নীলফামারী পৌরসভা সহ পার্শ্ববর্তী ইটাখোলা, কুন্দুপুকুর ও খোকশাবাড়ী ইউনিয়নে ভোটের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল, সমাবেশ ও স্মারকলিপি প্রদান করেছে স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন আলো ও স্থানীয় বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ।

আজ বুধবার(৪ নভেম্বর /২০২০) সকাল সাড়ে ১১টায় নীলফামারী বড়বাজারস্থ আলোর প্রধান কার্যালয় থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সামনে বঙ্গবন্ধু চত্বরে মিলিত হয়ে সমাবেশ করে। 

সমাবেশে বক্তারা জানায়, সীমানা জটিলতায় মামলার কারণে মেয়াদ শেষ হলেও নীলফামারী পৌরসভা সহ পার্শ্ববর্তী তিনটি ইউনিয়নের নির্বাচনের তফশিল ঘোষনা সহ ভোট স্থগিত রয়েছে। অনতিবিলম্বে সীমানা জটিলতার অবসান ঘটিয়ে নীলফামারীর সাধারণ মানুষের ভোটাধিকার ফিরিয়ে দিতে নির্বাচন কমিশন ও মহামান্য হাইকোর্টের সূ-দৃষ্টি কামনা করেন তারা।

সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, নীলফামারী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীরমুক্তিযোদ্ধা জয়নাল আবেদীন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জলিল, বীরমুক্তিযোদ্ধা গোলাম কিবরিয়া, বীরমুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম, বীরমুক্তিযোদ্ধা বাবু বঙ্কু বিহারী রায়, অধ্যক্ষ হাসিম হায়দার অপু, সামাজিক সংগঠন আলো'র সাধারণ স¤পাদক মাহমুদ আল হাসান রাফিন ও সাবেক ছাত্র নেতা মহিউদ্দিন মহি প্রমূখ। 

সমাবেশ শেষে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে গিয়ে স্থানীয় সরকারের উপপরিচালক (ডিডিএলজি) মোঃ আব্দুল মোতালেব সরকারের মাধ্যমে নির্বাচন কমিশনকে স্মারকলিপি প্রদান করেন আন্দোলনকারীরা।


জানা যায়, নীলফামারী পৌরসভা ৯টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত হলেও সীমানা বৃদ্ধি করে ১৫টি ওয়ার্ড গঠনের জন্য প্রস্তাব প্রেরন করে নীলফামারী পৌরসভা কর্তৃপক্ষ। ফলে পৌর এলাকার সীমানা বৃদ্ধি করা হয়। এতে পাশ্ববর্তী ইটাখোলা, কুন্দুপুকুর, খোকশাবাড়ি বেশ কিছু অংশ পৌরসভার সঙ্গে সংযুক্ত করে ২০১৬ সালের ২৮ জানুয়ারী প্রজ্ঞাপন জারী করে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়। উক্ত প্রজ্ঞাপনকে চ্যালেঞ্জ করে উচ্চ আদালতে মামলা দায়ের করা হয়। 

বর্তমানে মামলাটি চলমান অবস্থায় রয়েছে বলে জানান ইটাখোলা ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান হাফিজুর রশিদ মঞ্জু। তিনি বলেন, ইটাখোলা ও কুন্দুপুকুর ইউনিয়নের পক্ষে উচ্চ আদালতে মামলার কারনে নীলফামারী পৌরসভা,ইটাখোলা, কুন্দুপুকুর ও খোকশাবাড়ি ইউনিয়নের ভোট গ্রহণ স্থগিত রয়েছে। 

এদিকে নীলফামারী সদর উপজেলা নির্বাচন অফিস সুত্রে জানা গেছে, নীলফামারী পৌরসভার সর্বশেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ২০১১ সালের ১২ জানুয়ারী। নির্বাচনে বিজয়ী মেয়র ও কাউন্সিলরগন দায়িত্ব গ্রহন করে প্রথম সভা করেন ২০১১ সালের ২০ ফেব্রুয়ারী। 

অপর দিকে কৃন্দুপুকুর ও ইটাখোলা ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০১১ সালের ৯ জুন ও খোকশাবাড়ি ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ২০১১ সালের ৫ জুন।


সূত্রমতে, ২০১৬ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারী নীলফামারী পৌরসভা, কুন্দুপুকুর ও ইটাখোলা ইউয়িনের ২০১১ সালের ৮ জুন এবং খোকশাবাড়ি ইউনিয়নের ২০১৬ সালের ৪ জুন জনপ্রতিনিধিদের মেয়াদ শেষ হলেও।  সীমানা জটিলতার কারনে উচ্চ আদালতে মামলা চলামান থাকায় নিয়ম অনুযায়ী পূর্বের নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরাই দায়িত্ব পালন করছেন। স্থানীয় সরকার আইন ২০০৯ এ বলা আছে, পৌরসভা গঠনের পর প্রথম সভার তারিখ থেকে পরবর্তী ৫ বছর পর্যন্ত ওই পৌরসভার মেয়াদ থাকবে। র্নিবাচনের ক্ষেত্রে আইনে উল্লেখ রয়েছে, পৌরসভার মেয়াদ শেষ হওয়ার ক্ষেত্রে মেয়াদ শেষ হওয়ার পুর্ববর্তী ৯০ দিনের মধ্যে নির্বাচন আয়োজন করতে হবে।


নীলফামারী পৌরসভার মেয়র, বাংলাদেশ মিউনিসিপালিটি অ্যাসোসিয়েশনের (ম্যাব) সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ বলেন, নীলফামারী পৌরসভা ১৯৬৪ সালে নীলফামারী টাউন কমিটি হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। বাংলাদেশ স্বাধীনতার পর বাংলাদেশ লোকাল কাউন্সিল অ্যান্ড মিউনিসিপাল কমিটিস (অ্যামেমেন্ট) অর্ডার, ১৯৭২ অনুযায়ী নীলফামারী টাউন কমিটিকে নীলফামারী পৌরসভা করা হয়। তখন এটি “গ” শ্রেণীর পৌরসভা ছিল। ১৯৯৬ সালে এ পৌরসভাকে ‘গ’ থেকে “খ” শ্রেনীর পৌরসভার মর্যাদা লাভ করাই। একটানা দীর্ঘ ৩৫ বছরের পৌর চেয়ারম্যান ও পৌর মেয়র হিসাবে আমি নির্বাচিত হয়ে আসছি। আমার দায়িত্ব কালিন আমি নীলফামারী পৌরসভাকে ২০০৮ সালের ২৩ মার্চ “ক” শ্রেনীর পৌরসভার মর্যাদা লাভ করিয়েছি। 

তিনি জানান,নীলফামারী পৌরসভার মোট আয়তন ১৯.২৮ বর্গকিলোমিটার ছিল। এটির সীমানা বৃদ্ধি করে ১৫টি ওয়ার্ডে রূপান্তর করতে টুপামারী, কুন্দপুকুর, ইটাখোলা ও খোকশাবাড়ি ইউনিয়নের বেশ কিছু অংশ সংযুক্ত করেছি। কিন্তু ইউনিয়ন গুলোর পক্ষে সীমানা জটিলতা নিয়ে উচ্চ আদালতে মামলা দায়ের করার কারনে নির্বাচন স্থগিত হয়ে রয়েছে। 

তিনি বলেন, পৌরসভার উন্নয়নে নির্বাচন অতিব জরুরী। আমিও আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছি সীমানা জটিলতা কাটিয়ে ভোট অনুষ্ঠিত হবে। তিনি বলেন, এমতবস্থায় আমি মেয়রের চলমান দায়িত্বে নীলফামারী পৌরসভার উন্নয়ন কর্মকান্ড অব্যাহত রেখেছি। #


পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 8961989353141638178

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

ফেকবুক পেজ

কৃষিকথা

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item