ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে নীলফামারী সদর আওয়ামী লীগের মানববন্ধন


ইনজামাম-উল-হক নির্ণয়,নীলফামারী॥
ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের বিরুদ্ধে আইনের বিধান যথাযথ প্রয়োগের মাধ্যমে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করার দাবিতে নীলফামারীতে মানববন্ধন করেছে জেলা সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ। আজ বৃহস্পতিবার(৮ অক্টোবর/২০২০) বেলা ১১টার দিকে জেলা শহরের চৌরঙ্গী মোড়ে ঘন্টাব্যাপী ওই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে একাত্বতা প্রকাশ করে বেসরকারী সংস্থা পল্লীশ্রী সহ বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ অংশ নেয়।

মানববন্ধন শেষে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুজার রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তৃতা দেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মমতাজুল হক, সহ-সভাপতি আহসান রহিম মঞ্জিল, জেলা কৃষকলীগের সভাপতি অক্ষয় কুমার রায়, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওয়াদুদ রহমান, পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরিফ হোসেন মুন, জেলা যুবলীগের সভাপতি রমেন্দ্র বর্ধন বাপ্পী, জেলা মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা খানম, জেলা যুব মহিলা লীগের সভাপতি শান্তনা চক্রবর্তী, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুদ সরকার, জেলা পল্লীশ্রীর জেলা সম্বয়নকারী মহিয়া বেগম মুক্তি প্রমুখ। 

বক্তারা ধর্ষণ ও যৌন নিপীড়নের বিরুদ্ধে আইনের বিধান যথাযথ প্রয়োগের মাধ্যমে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানান। বক্তারা বলেন, অপরাধী যে দলেরই হোক রেহাই পাবে না, অপরাধীর কোনো দল নেই, কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। 

মানববন্ধন শেষে ‘বঙ্গবন্ধুর বাংলায় ধর্ষকের ঠাই নেই, শেখ হাসিনার বাংলায় ধর্ষকের ঠাই নাই, লাখো শহীদের বাংলায়- মুক্তিযোদ্ধার বাংলায় ধর্ষকের ঠাই নাই’ এই শ্লোগানে সংক্ষিপ্ত বিক্ষোভ মিছিল বের করেন সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ। 

অপর দিকে একই দিন বিকাল ৪টার দিকে শিক্ষার্থী সমাজের ব্যানারে একই দাবিতে মানববন্ধন সমাবেশ হয়। শহরের চৌরঙ্গী মোড়ে ঘণ্টা ব্যাপী মানববন্ধন শেষে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তৃতা করেন, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জয়নাল আবেদীন, ভিশন-২০২১ এর আহবায়ক ওয়াদুদ রহমান, শিক্ষার্থী মো. রাকিব হায়াত, মো. রাকিব রহমান, সর্গ সরকার, মাহমুদ হাসান প্রমুখ। শহরের সকল স্তরের শিক্ষার্থীরা কর্মসূচিতে অংশ নেয়। # 


পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 2570470309869485567

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item