পরিবহন শ্রমিকদের কাছে চাঁদাবাজি ও হয়রানির প্রতিবাদে সৈয়দপুর আড়াই ঘন্টা মহাসড়ক অবরোধ


তোফাজ্জল হোসেন লুতু,সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:

 রংপুরে মেট্টোপলিটন ও জেলা ট্রাফিক পুলিশ সদস্য কর্তৃক  সড়ক পরিবহন শ্রমিকদের কাছে চাঁদাবজি ও হয়রানির প্রতিবাদে নীলফামারীর সৈয়দপুরে মহাসড়ক অবরোধ  সৃষ্টি করা হয়। সৈয়দপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল এলাকায়  বেলা সাড়ে ১১টা থেকে বেলা দুইটা পর্যন্ত প্রায় আড়াই ঘন্টা সৈয়দপুর- রংপুর এবং সৈয়দপুর -দিনাজপুর মহাসড়ক অবরোধ করে রাখা হয়। এতে উভয় মহাসড়কের উভয় পাশে শত শত বিভিন্ন রকম যানবাহন আটকা পড়ে। এ সময় যানবাহনে থাকা বিভিন্ন বয়সী যাত্রীরা মারাত্মক দূর্ভোগের মধ্যে পড়েন। পরে নীলফামারী জেলা পুলিশ প্রশাসনের আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে অবরোধ তুলে দেন পরিবহন শ্রমিকরা।

নীলফামারী জেলা বাস-মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মমতাজ আলী অভিযোগ করেন জানান, রংপুর মেট্টোপলিটন ও জেলা ট্রাফিক পুলিশের সার্জেন্ট বদরুল, সুজন, বায়েজীদ ও আলমগীর বেশ কিছু দিন যাবৎ রংপুর মহনগরীর মেডিক্যাল মোড়ে বসে নীলফামারী জেলার বাস-মিনিবাস, মাইক্রোবাস, কার, পিকআপ  শ্রমিককের কাছে চাঁদাবাজি করছেন। এতে পরিবহন শ্রমিকরা তাদের দাবিকৃত চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে তারা সামান্য অজুহাতে মামলা দিয়ে  নানা রকম হয়রাণি করে আসছে। শুধু তাই নয় পরিবহন শ্রমিকদের কাছে দাবিকৃত উৎকোচ না পেয়ে রংপুরে ট্রাফিক সার্জেন্টরা গাড়ি রিকুইজিশনের হুমকিধমকি দিয়ে চাঁদাবাজি করছেন। ট্রাফিক পুলিশের এহেন ন্যাক্কারজনক কর্মকান্ডে নীলফামারী জেলার সকল পরিবহনের শ্রমিকরা অতিষ্ঠ হয়ে পড়েন। এ অবস্থায় রংপুর মেট্টোপলিটর ও জেলা  ট্রাফিক পুলিশের চাঁদাবাজি ও হয়রানি প্রতিবাদে সোমবার (৫অক্টোবর) নীলফামারী জেলা পরিবহন শ্রমিকরা মহাসড়ক অবরোধ করেন। সৈয়দপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল এলাকায় সৈয়দপুর- রংপুর ও সৈয়দপুর- দিনাজপুর মহাসড়কের ওপর এলোমেলোভাবে গাড়ি লাগিয়ে অবরোধ সৃষ্টি কারণে উল্লিখিত মহাসড়কে সকল রকম চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে যায়। আর এ সময়  মহাসড়কের উভয় পাশে শত শত বিভিন্ন রকম যানবাহন আটকা পড়ে যায়।  এ সময় মহাসড়কে আটকেপড়া এ সব যানবাহনে থাকা যাত্রী সাধারণ চরম দূর্ভোগের মধ্যে পড়েন। 

অবরোধ চলাচলে সৈয়দপুর কেন্দ্রী বাস টার্মিনাল ট্রাফিক মোড়ে এক সংক্ষিপ্ত শ্রমিক সমাবেশ  করা হয়। এতে নীলফামারী জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. মোজাম্মেল হক, নীলফামারী জেলা বাস-মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মো. আলতাফ হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. মতাজ আলী, নীলফামারী জেলা বাস-মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়ন মাইক্রোবাস, জীপ, কার, পিকআপ উপকমিটির সম্পাদক মো. মানিক মিয়া প্রমূখ বক্তব্য দেন। এদিকে, মহাসড়ক অবরোধের খবর পেয়ে সৈয়দপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অশোক কুমার পাল ও সৈয়দপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আবুল হাসনাত খান সৈয়দপুর কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে ছুঁটে আসেন। এ সময় সৈয়দপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অশোক কুমার পাল পরিবহন শ্রমিকদের উদ্দেশ্য বক্তব্য রাখেন। পরে তাঁর মধ্যস্থতায় সৈয়দপুরের পরিবহন শ্রমিকরা তাদের অবরোধ তুলে দিলে  বেলা ২টায় রংপুর- সৈয়দপুর ও সৈয়দপুর- দিনাজপুর মহাসড়কে সকল প্রকার যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়।  


পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 862335477349757544

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item