নীলফামারীতে সেইফ ফাউন্ডেশনের ‘নো মাস্ক নো সার্ভিস’ ক্যাম্পেইন শুরু


ইনজামাম-উল-হক নির্ণয়,নীলফামারী॥ বৈশ্বিক মহামারি করোনা (কোভিড-১৯) পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ ও মোকাবিলায় বাংলাদেশের স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশনা অনুযায়ী বাইরে বের হলে মাস্ক পড়া বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এ স¤পর্কিত গণসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়নে শতভাগ মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করতে নীলফামারীতে ‘নো মাস্ক নো সার্ভিস’ ‘মাস্ক নাই, সেবা নাই’ শীর্ষক ক্যাম্পেইন শুরু করেছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সেইফ ফাউন্ডেশন। একটি পৌরসভার ও ১৫টি ইউনিয়নের মোট ৫০ হাজার মাস্ক বিতরণ করা হবে।
গতকাল বুধবার(২৬ আগষ্ট/২০২০) বিকাল সাড়ে ৫টায় পৌর শহরের চৌরঙ্গী মোড় হতে সেইফ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ক্যাম্পেইনটির উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী।
এসময় সংগঠনের পক্ষে বড় আকারে স্টিকার লাগানো ও বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণের মাধ্যমে জনসাধারণকে ঘরের বাইরে বের হলে মাস্ক পরতে উৎসাহিত এবং এর বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন তারা। পাশাপাশি সরকারি অফিস, হাসপাতাল, ক্লিনিক, ডায়াগনস্টিক সেন্টার, ফার্মেসি, বাসস্ট্যান্ড, বাস, অ্যাম্বুলেন্স, ব্যাংক, বেসরকারি সেবা দাতা প্রতিষ্ঠান, দোকান, হাটবাজারের খোলা দোকান ও টেলিকম সেবাসমূহে স্টিকার লাগানো হয় এবং সংশ্লিষ্টদের সচেতন করা হয়।
অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) আজাহারুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এবিএম আতিকুর রহমান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এলিনা আকতার, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাহিদ মাহমুদ, ভাইস চেয়ারম্যান দীপক চক্রবর্তী, পৌরসভার সংরক্ষিত ওয়ার্ড সদস্য শিরিন নূর রিক্তা, সেইফ ফাউন্ডেশনের প্রধান সম্বনয়কারী রাসেল আমীন স্বপন, স্বেচ্ছাসেবক বেলাল হোসেন, সামাদ আলী, ওমর ফারুক স্বজীব, সাগর হোসেন প্রমুখ।
জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী বলেন, করোনা সংক্রমণরোধে মাস্ক ব্যবহারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনা বাস্তবায়ন করতেই এমন উদ্যোগ। সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসহ হাটবাজার, মার্কেট, যানবাহন, জনবহুল স্থানে মাস্ক ব্যবহার ব্যতীত কাউকে প্রবেশ করতে নিষেধ করা হয়েছে। মাস্ক ছাড়া কোনো সেবাগ্রহীতা বা ক্রেতার কাছে পণ্য বিক্রি না করতেও সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান প্রধানদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। নির্দেশনা না মানলে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানকে এর দায় নিতে হবে। আর এমন একটি উদ্যোগের জন্য সেইফ ফাউন্ডেশনকে অভিনন্দন জানাই।
এরআগে সংগঠনের পক্ষ থেকে এক চিঠির মাধ্যমে সকল সরকারি ও বেসরকারি দপ্তর প্রধানকে ক্যাম্পেইনে যোগ দেওয়ার আহ্বান করা হয়। চিঠিতে বলা হয়, জেলার সকল সরকারি, আধা সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ ও সেবা গ্রহীতাকে বাধ্যতামূলক মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। এটা নিশ্চিত করতে মাস্ক ব্যবহার ব্যতীত কোনো সেবা গ্রহীতাকে সেবা প্রদান করা থেকে বিরত থাকতেও বলা হয় ওই চিঠিতে। তবে আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল ও দরিদ্র সেবা গ্রহীতাকে নিজ নিজ অফিসের ব্যবস্থাপনায় মাস্ক বিতরণেরও অনুরোধ করেন সেইফ ফাউন্ডেশন।আজ বৃহস্পতিবার(২৭ আগষ্ট/২০২০) বিকাল ৫টায় শহরের পৌরমার্কেট ও বড় বাজারের বিভিন্ন দোকান, রিক্সা-অটোচালক ও অচ্ছল মানুষের মাঝে বিনামূল্যে মাস্ক বিতরণের মাধ্যমে জনসাধারণকে ঘরের বাইরে বের হলে মাস্ক পরতে উৎসাহিত এবং এর বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন সেইফ ফাউন্ডেশনের স্বেচ্ছাসেবকরা।
সেইফ ফাউন্ডেশনের প্রধান সম্বনয়কারী রাসেল আমীন স্বপন বলেন, আমরা উপলব্ধি করেছি সরকার করোনা মোকাবিলায় প্রতিনিয়ত কঠোর নির্দেশনা জারি করছে। কিন্তু প্রান্তিক পর্যায়ে মানুষ তেমন অনুসরণ করছে না। বাংলাদেশের মানুষ নানান প্রয়োজনে বাইরে বের হলেও মাস্ক পরছে না, কিন্তু মাস্ক হলো করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে প্রথম দিকের কার্যকর পদ্ধতি। তাই আমরা এ উদ্যোগ গ্রহণ করেছি।

তিনি বলেন, তরুণদের মাধ্যমে বড় বড় পরিবর্তন সম্ভব। আমরাও এই সংকটকালে মানুষকে সচেতন করতে এগিয়ে এসেছি। নীলফামারী জেলায় বর্তমানে সংক্রমণ দিনদিন রকেট গতিতে বাড়ছে এবং এ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সচেতন হওয়া ছাড়া উপায় নাই। আমরা পর্যায়ক্রমে জেলার সব উপজেলায় এ ক্যাম্পেইন পরিচালনা করবো। যাতে সরকারি স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী জনসাধারণ মাস্ক পরে চলাফেরা করে।

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 229097312250240642

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item