পাগলাপীরে বেতগাড়ী সড়কের প্রস্থতা কম থাকায় প্রতিনিয়ত যানজট-দূর্ঘটনা

হাবিবুর রহমান সেলিম, পাগলাপীরঃ
রংপুরের ব্যস্ততম বাণিজ্যিক বন্দর পাগলাপীরে বেতগাড়ী-গংগাচড়া -পাগলাপীর সড়কের প্রস্থতা কম থাকায় সড়কটিতে প্রতিনিয়ত যানজট দূর্ঘটনা আশঙ্কা বেড়েই চলছে। চলতি জুলাই মাসে ১৫টি সড়ক দূর্র্ঘটনা ঘটেছে। এই সব দূর্ঘটনায় ৫টি মটর সাইকেল, ৭টি অটো রিক্সা এবং ৫টি রিক্সা ভ্যান বিপরীতমূখী পরিবহনকে সাইড দিতে গিয়ে সড়কের খাঁদে পরে ও সংঘর্ষে শতাধিক চালক আরোহী সহ যাত্রীরা দূর্ঘটনার শিকার হন। ফলে সড়কে চলাচলরত বিভিন্ন যানবাহনের মালিক, চালক, পথচারীসহ ভূক্তভোগী সাধারন মানুষজন আশঙ্কা করছেন, সড়কটির প্রস্থতা সংকটের কারণে যেকোন মূহুর্তে বড় ধরনের দূর্ঘটনায় প্রাণহানির ঘটনা ঘটতে পারে । জানাগেছে, পাগলাপীর-বেতগাড়ী-গংগাচড়া সড়কটি জেলার একটি জনগুরুত্বপূর্ণ ও ব্যস্ততম সড়ক। বিশেষ করে সড়কটি জিরো পয়েন্ট পাগলাপীর বন্দর হতে বেতগাড়ী বাজার পর্যন্ত ৬ কিলোমিটার পর্যন্ত সড়কটির প্রস্থতা কমসড়কটিতে বাস, কোচ, ট্রাক, কার, মাইক্রোসহ দূর পাল্লার ভারি যানবাহন চলাচলের সময় বিশেষ করে পশু’র হাটের জন্য বিখ্যাত বেতগাড়ীর হাটের দিন প্রতি শনিবার ও মঙ্গলবার বিপরীতমূখী পরিবহনকে সাইড দেওয়ার কোন স্পেস না থাকায় যানজট দূর্ঘটনা বেড়েই চলছে। এমনিতেই সড়কটির উচ্চতা কম, তার উপর জিরো পয়েন্ট পাগলাপীর বন্দর, ধনতোলা  বাজার, তেলমল, শাহপাড়ার মোড় ও বেতগাড়ী বাজারে সড়কটির দুই ধারের বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে যানবাহনগুলোর সুনির্দিষ্ট পার্কিং ব্যবস্থা না থাকায় অটো-রিক্সা,ব্যাটারী চালিত ভ্যান, সিএনজি সহ বিভিন্ন যাত্রীবাহি পরিবহন গুলো যত্রতত্র ভাবে রাখায় সড়কটি চিকন হয়ে পরছে। এর ফলে প্রায় সময় সড়কটি দিয়ে যানবাহন চলাচল করা তো দূরের কথা শিক্ষার্থী, পথচারীসহ সাধারন মানুষজনের চলাচল দুঃসাধ্য হয়ে পরছে। তাই সড়কে চলাচলরত বিভিন্ন মহল যানজট দূর্ঘটনা প্রতিরোধে অবিলম্বে পাগলাপীর-বেতগাড়ী-গংগাচড়া সড়কটির প্রস্থতা সম্প্রসারণের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে প্রশাসনের উর্ধ্বতন মহলের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

পুরোনো সংবাদ

রংপুর 1753241097418197539

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

ফেকবুক পেজ

কৃষিকথা

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item