পুলিশ কর্মকর্তার স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় শ্যালকের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা


পীরগাছা (রংপুর)প্রতিনিধিঃ
রংপুরের পীরগাছায় পুলিশ কর্মকর্তার স্ত্রী আকলিমা বেগমের (৩০) মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় তার ছোট ভাই শহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। রংপুরের সি- সার্কেল আরমান হোসেন জানান, শুক্রবার শহিদুলসহ অজ্ঞাত পাঁচজনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। 
বৃহস্পতিবার (২ জুলাই) বিকাল ৪টার দিকে উপজেলার তালুক ঈসাদ ডারার পাড় গ্রামে বাড়ির পাশের একটি পুকুর থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়।
আকলিমা বেগম ওই গ্রামের ফজলুল হকের স্ত্রী। তিনি তিন সন্তানের জননী। স্বামী ফলজুল হক পুলিশের উপ-পরিদর্শক হিসেবে ঢাকার খিলক্ষেত থানায় কর্মরত।
পুলিশ ও স্বজনরা জানান, গত বুধবার রাতে স্বামীর বাড়ি থেকে পাশে বাবার বাড়িতে তরকারি আনতে গিয়ে নিখোঁজ হন আকলিমা বেগম। এরপর থেকে তাকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টার দিকে বাড়ির পাশের একটি পুকুরে তার মরদেহ ভেসে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয় এলকাবাসী। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করে।
ওই দিন রাতেই নিহতের স্বামী ফজলুল হক বাদি হয়ে শ্যালক শহিদুল ইসলামের নাম উল্লেখ করে পাঁচজনকে অজ্ঞাত নামা আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
মামলার বিবরণে জানা যায়, প‚র্ব শক্রতার জেরে বোনকে শ্বাসরোধে হত্যা করে পুকুরের পানিতে ফেলে রাখা হয়।

রংপুরের সি- সার্কেল আরমান হোসেন বলেন, সুরতহাল রিপোর্টের সময় লাশের শরীরে আঘাতের কোনো চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তাকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। #

পুরোনো সংবাদ

রংপুর 3350856701611466318

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item