রেলওয়ের স্টেশন মাস্টাদের বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবী


এম এ আলম বাবলু, পার্বতীপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধিঃ

বাংলাদেশ  রেলওয়েতে কর্মরত স্টেশন মাস্টারগন তাঁদের বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবীতে দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন করে আসছেন৷ তাঁরা তাদের দাবী বাস্তবায়নের জন্য আদালতে মামলা করাসহ সংশ্লিষ্ট  কর্তৃপক্ষের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন৷ কিন্তু এ পর্যন্ত তাঁদের দাবী বাস্তবায়িত না হওয়ায় তাঁদের মধ্যে বিরাজ করছে ক্ষোভ ও হতাশা৷
তাঁদের দাবী, গন পরিবহনে বাংলাদেশ রেলওয়ে এক অনন্য ভূমিকা পালন করে থাকে। যাত্রীদের ভ্রমনের ক্ষেত্রে ট্রেন ভ্রমন'ই হচ্ছে প্রথম পছন্দ।বর্তমান সরকার ট্রেন ভ্রমনকে আরও আনন্দদায়ক ও স্বাচ্ছন্দ্যদায়ক করার জন্য শত শত কোটি টাকা বিনিয়োগ করে চলেছেন। যার ফলে, রেল সেবায় ইতিমধ্যেই এসেছে অনেক পরিবর্তন। একজন যাত্রী ট্রেনের টিকিট কাঁটা থেকে শুরু করে নিরাপদে গন্তব্যে পৌঁছানো পর্যন্ত রেলস্টেশনে'র সাথে সম্পৃক্ত থাকেন।আর এই প্রতিটি যাত্রী সেবা নিশ্চিত করতে, প্রতিটি স্টেশনে রয়েছেন স্টেশন মাস্টার। একজন স্টেশনমাস্টার মূলত দু'পাশের সর্বশেষ সিগন্যানদ্বয়ের  মধ্যে অবস্থিত সকল কার্যক্রমের জন্য দায়ী ও বাংলাদেশ রেলওয়ের লোকাল প্রতিনিধি। এমনকি স্টেশন মাস্টারের ব্যবহার আচরন কার্য-দক্ষতা ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতায় মূলত একজন সাধারন যাত্রীর নিকট ফুটে উঠে রেলের সমগ্র চিত্র। একজন স্টেশন মাস্টারের কাজের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে নিরাপদ ও বিনা বিলম্বে ট্রেন পরিচালনা করা ,স্টেশনের সম্পদ রক্ষনাবেক্ষন করা,পার্শ্বেল ও মাল বুকিং যাত্রীদের মাঝে সুষ্ঠু ভাবে টিকিট বিতরন, ট্রেন মার্শালিং ও ইয়ার্ডের সকল কার্যক্রম পরিচালনা করা,যাত্রীবাহী ও মাল ট্রেনে গার্ড বুকিং দেওয়া,বিনা টিকিটের যাত্রীদের প্রতিরোধ করা,স্টেশন পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা, যাত্রী নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, যাত্রীদের ওয়েটিং রুম দেখাশুনা সহ যাত্রীদের নিরাপদে ট্রেনে উঠতে সহযোগিতা করা,ভিআইপি'দের প্রটোকলের ব্যবস্থা করা,স্টেশনের রাজস্ব বৃদ্ধিতে পরিকল্পনা গ্রহন ও বাস্তবায়ন করা,প্রতিটি ট্রেন নিরাপদে চলাচল করার লক্ষ্যে সকল বিভাগের সাথে সমন্বয় করে ট্রেন পরিচালনার সনদ প্রদান করা,ইত্যাদি৷ অর্থাৎ একজন স্টেশন মাস্টার বাংলাদেশ রেলওয়ের সকল বিভাগের সমন্বয়ক হিসেবেও কাজ করে থাকেন। তাই শতভাগ যাত্রী সেবা নিশ্চিত করতে স্টেশন মাস্টার পদটির গুরুত্ব অপরিসীম৷ কিন্তু স্টেশনমাস্টার পদটির বেতন স্কেল স্টেশনে কর্মরত অন্যান্য পদের তুলনায় অনেক কম হওয়ায় স্টেশন মাস্টারদের'কে অন্যান্য পদের কর্মরচারীগন সেভাবে মূল্যায়ন করে না বলে প্রকৃত যাত্রী সেবা দিতে তারা অনেক সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন৷

তাঁরা বলেন, ৮ম শ্রেনী পাশের একজন স্টেশন কর্মচারীকে বাংলাদেশ রেলওয়ে নিয়োগ দেয় ৮২৫০/- (২০-তম গ্রেডে) টাকা স্কেলে। অপরদিকে একজন স্টেশন মাস্টার স্নাতক পাশ করে ৯৭০০/- টাকা (১৫ তম গ্রেড) অর্থাৎ ৮ম পাশের স্কেল  হতে ১৪৫০/- টাকা বেশি পান ৷ স্টেশনে কর্মরত একজন টিএক্সআর এইচএসসি পাশ করে ১১৩০০/-  (১২-তম গ্রেড) টাকা স্কেলে নিয়োগ পান! যা একজন স্টেশন মাস্টারের স্কেল হতে  ১৬০০/- টাকা বেশি৷ স্টেশন মাস্টারদের পক্ষ থেকে এই বেতন বৈষম্য নিরসনে স্টেশন মাস্টারগন ইতোমধ্যে আদালত পর্যন্ত গেছেন এবং রেলপথ মন্ত্রনালয়ের মন্ত্রী মহোদয়কে স্মারকলিপি দিয়েছেন৷ কিন্তু তাঁদের এই দাবী বাস্তবায়ন না হওয়ায় স্টেশন মাস্টারদের মধ্যে ক্ষোভ বিরাজ করছে বলে অনেকের সাথে'ই কথা বলে জানা গেছে।

এ ব্যাপারে ১০ম গ্রেড বাস্তবায়নের উদ্যোক্তা মোঃ রেজাউল করিম সুজলের কাছ থেকে জানা যায়, স্টেশন মাস্টার'দের বেতন বৈষম্য নিরসন না হওয়ায় তাঁরা কাজে মনোযোগ হারিয়ে ফেলছেন। ফলে, ছোট ছোট দূর্ঘটনাসহ রেল পরিচালনা, যাত্রী সেবা ও রেল সম্পদ রক্ষানাবেক্ষনে কঠিন হয়ে দাঁড়িয়েছে। তিনি আরো বলেন,এমতাবস্থায় স্টেশনমাস্টার পদটি ১০ম গ্রেডে উন্নীত করা'সহ হলিডে ও নাইট ডিউটি ভাতা টিএনএল'দের মতো অতিরিক্ত ইনক্রিমেন্ট দিয়ে কাজের প্রতি উৎসাহিত করা এবং চুক্তিভিত্তিক/টিএলআর এ স্টেশন মাস্টার পদে নিয়োগ বাতিল করে, দ্রুত তরুন মেধাবী ও উদ্যোমী ছেলে-মেয়েদের নিয়োগ দিয়ে রেলের সামগ্রিক উন্নয়নে রেলপথ মন্ত্রনালয়কে বিশেষ ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।

পুরোনো সংবাদ

নির্বাচিত 5479315651153860221

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

ফেকবুক পেজ

কৃষিকথা

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item