সৈয়দপুরে পল্লীতে রাস্তার পাশে ফেলা ল্যাট্রিনের ময়লার দূর্গন্ধে দুর্ভোগে মানুষ


তোফাজ্জল হোসেন লুতু, সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:
 নীলফামারীর সৈয়দপুরে এক পল্লীতে চলাচলের রাস্তার পাশে বাড়ির ল্যাট্রিনের ময়লা (পায়খানা) ফেলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। উপজেলা তিন নম্বর বাঙ্গালীপুর ইউনিয়নের সাত নম্বর ওয়ার্ডের লক্ষণপুর দেওয়ানিপাড়া যাওয়ার রাস্তায় পাশে ওই ময়লা ফেলা হয়েছে। এতে প্রায় অর্ধশতাধিক পরিবারের মানুষ ওই রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে ময়লার দূর্গন্ধে চরম দূর্ভোগে পড়েছেন। 
 অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার বাঙ্গালীপুর ইউনিয়নের সাত নম্বর ওয়ার্ডের লক্ষণপুর দেওয়ানিপাড়া। এখানে প্রায় অর্ধ শতাধিক পরিবারের বসবাস। লক্ষণপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের মোড় - পীরপাড়া পাকা রাস্তা থেকে একটি কাঁচা রাস্তা লক্ষণপুর দেওয়ানিপাড়ায় ঢুকেছে। আনুমানিক দুই শ’ থেকে আড়াই গজের দেওয়ানিপাড়া যাওয়ার রাস্তাটির করুণ দশা এখন। দীর্ঘদিন যাবৎ মেরামত কিংবা সংস্কার না করায় রাস্তাটি মানুষের চলাচলের একেবারে অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। বর্তমানে বর্ষা মৌসুমে সামান্য বৃষ্টিতে নিচু রাস্তায় পানি জমে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হচ্ছে। ফলে এখন রাস্তাটিতে কাঁদা - পানির কারণে বেহাল অবস্থা। এছাড়াও আশেপাশে থাকা মানুষ রেকর্ডভূক্ত রাস্তাটি বেদখল করে বাড়িঘর ও অবকাঠোমো নির্মাণ করেছেন। ফলে সেটি একেবারে অপ্রশস্ত হয়ে পড়েছে। আর রাস্তার পাশে একটি পুকুর থাকায় প্রতি বছর রাস্তাটি ভেঙ্গে পুকুরের মধ্যে যাচ্ছে। তার ওপর আবার এলাকার জনৈক ইব্রাহিম রাস্তা ঘেঁষে গোবরের ভিড়া (গরু-ছাগলের গোবর রাখার গর্ত) করেছেন। শুধু এতো সবই শেষ নয়। এবার এলাকার বাসিন্দা মো. জামান ও মো. আউয়াল সহোদর ভাই তাদের বাড়ির ল্যাট্রিনের ময়লা ফেলেছেন রাস্তার পাশে। গত বুধবার সুইপার ডেকে এনে বাড়ির ল্যাট্রিনের ময়লা (পায়খানা) পরিষ্কার করে রাস্তার পাশে গর্ত করে ওই ময়লা ফেলে রাখা হয়েছে। আর এ সব ময়লার গর্ন্ধে ওই রাস্তা দিয়ে চলাচল দুরূহ হয়ে পড়েছে এলাকার মানুষের। গত বৃহস্পতিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় রাস্তার পাশে ল্যাট্রিনের ময়লা রাখা হয়েছে। সেখান থেকে ছড়াচ্ছেন দূর্গন্ধ। ফলে এলাকার মানুষজন নাক চেপে ধরে ওই রাস্তার চলাচল করছেন।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক গ্রামবাসী জানান, বাড়ি থেকে বের হয়ে কাঁদা-পানির কারণে রাস্তাটি দিয়ে তাদের চলাচলে খুব কষ্ট হয়। রাস্তার পাশে বাসিন্দারা রাস্তাটি দখলে নিয়ে একেবারে অপ্রশস্ত করে ফেলেছেন। প্রতিদিন মসজিদে পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করতে কর্দমাক্ত রাস্তা পেরিয়ে যেতে হচ্ছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড সদস্যকে অনেকবার অবহিত করা হয়েছে। কিন্তু তিনি কোন পদক্ষেপ গ্রহন করেনি।
এ নিয়ে কথা বলার জন্য রাস্তার পাশে ময়লা ফেলার কাজে অভিযুক্ত জামান ও আউয়ালের সঙ্গে যোগাযোগ চেষ্টা করেও তাদের পাওয়া যায়নি।                     

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 1800804857085575654

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item