ডোমারে নদীতে পরে নিখোঁজ দুই শিশু এখনো উদ্ধার হয়নি

আবু ফাত্তাহ্ কামাল (পাখি),স্টাফ রিপোর্টার ঃ
  নীলফামারী ডোমারে নানাকে মাটি দিয়ে দাদীর সাথে বাড়ী ফেরার পথে নদীতে পড়ে নিখোজ দুই শিশু একদিনের বেশি সময় পেরিয়ে গেলেও(বিকাল ছয়টা) তাদের উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।ফায়ার সার্ভিসের রংপুর বিভাগীয় ডুবুরীর দল শিশু দুটিকে ৬ কিলোমিটার এলাকা র্পযন্ত উদ্ধার করতে না পেরে শুক্রবার রাতেই উদ্ধার অভিযান সমাপ্ত ঘোষনা করেছে। তবে শিশু দুটির পরিবারসহ স্থানীয়রা নদীর বিভিন্নস্থানে উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রেখেছে। স্থানীয়রা শিশু দুটিকে জীবিত উদ্ধারের আশা ছেড়ে দিয়েছে।
নিখোজ শিশুরা হলো,উপজেলার জোড়াবাড়ী ইউনিয়নের বিএসসি পাড়া গ্রামের গোলাম রব্বানীর মেয়ে মনি আক্তার(৫) ও গোমনাতি ইউনিয়নের উত্তর গোমনাতি গ্রামের মোঃ সুরুজ্জামানের ছেলে মনোয়ার হোসেন(৬) তারা খালাতো ভাই-বোন।   
জোড়াবাড়ী ইউপি সদস্য আব্দুল জলিল জানান, উপজেলার উত্তর গোমনাতীতে শিশু দুটির নানা কমির উদ্দিনের মৃত্যুহলে তার জানাযায় অংশ নিতে আসেন শুক্রবার দুপুরে শিশুদুটির পরিবারের সদস্যরা। সেখানে তার দাফন শেষে দাদী রওশনা আরা রোসনা(৪৫) বেগমের সাথে অটো চার্জার ভ্যানযোগে তিন নাতি-নাতনিকে সাথে নিয়ে বাড়ীতে ফিরছিরেন দাদী রোসনা বেগম। এ সময় গোমনাতি-আমবাড়ী সড়কের মাঝে দেওনাই নদীর উপর অবস্থিত ঝুকিপুর্ন বেইলী ব্রীজের পাটাতনের ফাকে ভ্যানের চাকা ঢুকে ভ্যান উল্টে গেলে ভ্যানে থাকা তিন শিশু লিপু(১০), মনোয়ার(৬) ও নুরে জান্নাত মনি(৫) নদীতে পরে যায়। তাদের উদ্ধারে দাদী রোসনা বেগম নদীতে ঝাপিয়ে নাতি লিপুকে উদ্ধার করলেও অপর দুই শিশু মনি ও মনোয়ার নদীতে পরে নিখোজ হয়।  খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরীর দল শিশু দুটিকে উদ্ধারে দেওনাই নদীর ৬ কিলোমিটার এলাকায় উদ্ধার তৎপরতা চালিয়ে ব্যর্থ হয়। 
ডোমার ফায়ার স্টেশন অফিসার ইনচার্জ  ফরহাদ হোসেন জানান,নিখোজ দুই শিশুকে প্রায় চারঘন্টা নদীর ৬ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে উদ্ধার তৎপরতা চালালেও তাদের উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। নদীতে প্রচন্ড স্রোত থাকায় সন্ধায় গোমনাতি ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদের সাথে পরামর্শ করে উদ্ধার অভিযান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।
ডোমার থানা অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজার রহমান শিশুদুটি এখনো উদ্ধার হয়নি জানিয়ে বলেন,ঘটনাস্থলে পুলিশ বাহিনীর একটি দল সেখানে রয়েছে। স্থানীয় লোকজন উদ্ধার তৎপরতা অব্যাহত রেখেছে। এদিকে স্থানীয়রা নিখোজ শিশু দুটিকে উদ্ধারে সকলের দোয়া চেয়েছেন। নদীতে পরে নিখোজ দুটি অবুঝ শিশুর এই মর্মান্তিক ঘটনায় এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।সকলেই শিশু দুটির জন্য দোয়া করছেন তাদের যেন জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা সম্ভব হয়।

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 7028020788704863309

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item