ডোমার উপজেলায় পরিশ্রম করেও নারীরা পাচ্ছে না তাদের নায্য মুজুরি

এ.আই.পলাশ.চিলাহাটি প্রতিনিধিঃ
বর্তমানে নারী-পুরুষদের মধ্যে কোন পার্থক্য করা হয় না। কারন, এমন কোন কাজ নেই যেটা নারীরা করতে পারে না। শহরাঞ্চল ও গ্রামাঞ্চলের নারীরা সংসারের কাজ থেকে শুরু করে, বাইরে চাকরি করা, মাঠের কাজ ও মাথায় ডালি নিয়ে গ্রামে গ্রামে কসমেটিকস্ বিক্রি করা, এমনকি চারতলা/পাচঁতলা ঢালাইর কাজ সহ প্রায় সব কাজই করতে পারে নারীরা। শহরাঞ্চলের নারীরা যা করে তা হয়ত গ্রামাঞ্চলের নারীরা করতে পারে না। কিন্তু, গ্রামাঞ্চলের নারীরাও তাদের থেকে কোন অংশে পিছিয়ে নেই।
নীলফামারী জেলার ডোমার উপজেলার ১০টি ইউনিয়নে বিশেষ করে কৃষি কাজে সব চাইতে নারী শ্রমিকদের অংশগ্রহন বেশি। তারা যেমন সংসার সামলায়, তেমনি স্বামীকে সাহায্য করার জন্য মাঠে কাজ করা থেকে শুরু করে প্রায় সব কাজেই করে থাকে। এই উপজেলার প্রায় সবাই সব রকম ফসল ধান, গম, আলু, ভুট্টা, বাদাম, পাট ইত্যাদি আবাদ করে থাকে। প্রতিবছর এই উপজেলায় বেশিরভাগ মানুষ পাট আবাদ করে। পাট কাঁটার পর সেই পাটের পাতা ঝরিয়ে পানিতে ডুবিয়ে জাগ দিয়ে রাখতে হয় ১০/১২ দিনের মতো। তারপর পাট যখন পঁচতে শুরু করে সেই পাট থেকে আস্তে আস্তে টেনে আঁশ বের করে নিতে হয়। আগে এইসব কাজ শুধু পুরুষরাই করে থাকত, আর নারীরা সংসার ও ছেলে-মেয়েদের সামলাতো। বর্তমানে নারীরাও এই কাজগুলো করে থাকে। পাট ধোঁয়া কয়েকজন নারীর সাথে কথা হলে তারা বলেন,“সংসারের অভাবের তাড়নার কারনে আমাদের এইসব কাজ করতে হয়। আমাদের স্বামী যা রোজগার করে, সেটা দিয়ে আমাদের সংসার চলে না। তাই বাধ্য হয়ে আমাদেরও কাজ করতে হয়। তার উপর দেশে এই করোনা ভাইরাস যেভাবে বাসা বেঁধেছে, সেটার কারনে এখন তো তারা বাড়ি থেকে বেশি বের হতেই পারে না। তাই আমরা এই কাজ করছি, যাতে পরিবারের অভাব একটু হলেও কমে। কিন্তু, আমাদের শুধু একটাই আফসোস। পুরুষদের থেকে কোন অংশে আমরা কম কাজ করি না। বরং তাদের থেকে বেশি কাজ করি। কিন্তু, তবুও আমাদের কাজের মূল্য কেউ দেয় না। পুরুষরা কাজ করলে তারা যে টাকা পায়, আমরা তার থেকে কম টাকা পেয়ে থাকে”।
কাজের ক্ষেত্রে বর্তমানে নারী-পুরুষ আলাদা ভাবা যায় না। কারন, পুরুষরা যা করে নারীরাও তাই করে। কিন্তু,পুরুষরা কাজ করলে তারা তাদের মুজুরির পুরো টাকা পেত। কিন্তু, নারীরা কাজ করলে মুজুরির পুরো টাকা তো দুরে থাক, তাদের কেউ মূল্যই দেয় না। তাই তো কাজের পুরো না দিয়ে অর্ধেক টাকা তাদের দেয়। তবে, যে ব্যক্তিরা এইসব পার্থক্য করে তারা যদি তাদের চিন্তাধারা বদলায়, তাহলে সবাই নিজের মতো করে স্বাধীনভাবে বাচঁতে পারবে।

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 5275186018226767018

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item