করোনা রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছে সীমান্ত বর্তী উপজেলা হরিপুর ,নেই নিয়মের বালাই


জে,ইতি হরিপুর ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ দীর্ঘ সময় সাধারণ ছুটি কাটানোর পর কারোনা পরিস্থিতিতে দ্রুত ‘স্বাভাবিক’ জীবনে ফেরার জন্য নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়। গত ২৬ মার্চের পরবর্তী সময়ে নিম্নবিত্ত ও খেটে খাওয়া মানুষ কর্মহীন হয়ে রোজগার বন্ধ হয়ে যাওয়ায় যে হাহাকার তৈরি হচ্ছিল তা থেকে বেরিয়ে আসতেই এই উদ্যোগ। দীর্ঘ বিরতির পরে শর্তসাপেক্ষে খুলে দেওয়া হয় অফিস, গণপরিবহন,শপিংমলসহ প্রয়োজনীয় দোকানপাট।
 কিন্ত কোথায় সেইসব শর্ত? সরেজমিন ঘুরে ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলায় দেখা যায়, সামাজিক দূরত্ব,মাস্ক পরে বাইরে বের হওয়া, কোথাও প্রবেশের আগে হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার এসবের কোনও বালাই নেই উপজেলার বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষের। বর্তমান ঝুঁকিপূর্ণ পরিস্থিতি প্রসঙ্গে দেশের অর্থনীতিবিদরা বলেছেন, অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে হবে, কিন্ত এজন্য কোনও বিপদ ডেকে আনা যাবে না। আর চিকিৎসকরা বলছেন, পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার আগে নাগরিকদের এই সুরক্ষার শর্তগুলো মানার নিশ্চয়তা বিধান করা জরুরি ছিল। প্রতিদিন গড়ে ৪০ জন করে মানুষের মৃত্যু যে ভাইরাসে সেটাকে আমরা হেলাফেলা করছি। পথে-ঘাটেও মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি উপজেলার বাজারগুলোসহ গ্রাম এবং পাড়া মহল্লায়ও। 
যাদুরাণী বাজারের মধ্যেও নানা রংবেরং এর ছোট-বড় গড়ি। এলোমেলো অটোভ্যান ও অটোচার্জার গড়িগুলো। বাজার করে কেউ বের হলেই হাত থেকে ব্যাগ নিয়ে অটোগাড়িতে ওঠানোর জোর চেষ্টা চালকের। বাজার করতে আসা ব্যাক্তির ও অটো চালকের উভয়ের মাস্ক থুতনির কাছে নামানো। অটোতে উঠে মাস্ক লাগানোর সময় কেন নিয়ম মানছেন না জানতে চাইলে যাত্রী বলেন, ‘বাজারের ভেতরে মাস্ক পরে কথা বললে শোনা যায় না, চিৎকার করতে হয়। তিনি দ্রুত চালককে সেখান থেকে চলে যেতে তাড়া দেন। আরেকটু ভেতরের দিকে গেলে কাচাঁবাজার চোখে পরে। ঢোকার যে পথটুকু আছে সেখানে এলোমেলোভাবে বিভিন্ন পণ্য কেনাবেচা চলতে দেখা যায়। কারও যেন মনেই নেই দেশ মহামারির ছোবলে পড়েছে। এক জায়গায় ছয়-সাতজন পরস্পরের অচেনা মানুষ করোনা নিয়েই আলাপ করছেন, কেউ বা চা দোখানে চা আড্ডায় মতেছেন। কেন এভাবে মাস্ক না পরে চা দোকানে দল বাঁধে চা খাচ্ছেন, আপনাদের স্বাভাবিক জীবনের জন্যই সাধারণ ছুটি তুলে নেওয়া হয়েছিল জানেন কিনা? প্রশ্নে একজন এগিয়ে এস বলে বলেন, ‘আপনিও তো বাইরে বের হয়েছেন। ‘আমি আমার যা যা মেনে চলার কথা মানছি, আপনি কেন মানছেন না? প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘ওসব আমাদের হবে না। হলে এতদিন হয়ে যেত। উপস্থিত লোকজনের অভিযোগ, এই এলাকায় তাঁরা অনেক শ্রমিক কে কাজ করায় তিনি যদি তাঁর শ্রমিকদের বলেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ করতে হবে, তাহলে শ্রমিকদের দেখে আশপাশের লোকজন সচেতন হত। তিনি নিয়ম না মানলে তার অধীনে যারা কাজ করেন তারা কীভাবে মানবেন? 
দোকানপাটে আড্ডা চলছে গত ৩০জুন মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের মাঠ প্রশাসন সমম্বয় অধিশাখার পাঠনো এক প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, কোভিড-১৯ প্রতিরোধে সীমিত আকারে যান চলাচল এবং বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান পরিচালনার মেয়াদ আগামী ৩ আগস্ট পর্যন্ত বাড়ায় সরকার। এর আওতায় সরকারি-বেসরকারি অফিস আগামী ৩ আগস্ট পর্যন্ত খোলা থাকবে উল্লেখ করে দোকানপাট ও বিপণিকেন্দ্র ১ জুলাই সকাল ১০টা থেকে সন্ধা ৭টা পর্যন্ত খোলা রাখার অনুমতি দেওয়া হয়। এর আগে ১০জুন করোনাভাইরাস মোকাবিলার পাশাপাশি জনগণের স্বাভাবিক জীবনযাপন অব্যাহত রাখতে করণীয় সব কিছু করার ঘোশণা দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এর পরপরই ১৫জুন দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে চলমান ছুটি আগামী ৬ আগস্ট পর্যন্ত বাড়ানো হয়। বলা হয়, কারোনাভাইরাস জনিত বৈশ্বিক মহামারির কারণে শিক্ষার্থীদের সার্বিক নিরাপত্তার কথা বিবেচনা করে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। 
উপজেলা হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, হরিপুরে এই পর্যন্ত করোনা রোগ অক্রান্ত ৩৯জন এবং করোনা রোগীর নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে প্রায় ৭শত জনের। করোনা রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে রয়েছে সীমান্ত বর্তী উপজেলা হরিপুর বলে চিকিৎসকরা জানান।
স্বাস্থ্যবিধি মেনে বাড়ি থেকে বের হওয়ার যে শর্ত দিয়েছে দেশের নাগরিকদের সরকার তা বাস্তবায়ন্ন করা জন্য সরকারের লোকজন দিনরাত জোর চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন বলে টেলিভিশন, পত্র-প্রত্রিকা এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোত লক্ষ্য করা যায়। তবে সীমান্তবর্তী হরিপুর উপজেলায় এর উলটো, এখানে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে না সিংহভাগ নাগরিক। 
কোভিট-১৯ ভাইরাস সম্পর্কে সচেতন মহল দাবি করে বলেন, উপজেলা প্রশাসনকে কোভিট-১৯ ভাইরাস সম্পর্কে যে শর্ত দিয়েছে সরকার তা সঠিকভাবে পালন করতে হবে।
এবিষয়ে হরিপুর উপজেলা নিবার্হী অফিসার আব্দুল করিম বলেন, স্বাস্থ্যবিধি না মেনে চলার কারণে প্রায় অর্ধশত নাগরিকে আইনের আওতায় আনা হয়েছে। আমরা প্রায় ১৫ হাজার মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার বিতরণ করেছি। কোভিট-১৯ ভাইরাস সম্পর্কে সচেতন করার জন্য বিভিন্ন ভাবে বলা হচ্ছে।

পুরোনো সংবাদ

ঠাকুরগাঁও 5310131777916919495

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

ফেকবুক পেজ

কৃষিকথা

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item