ফলোআপ-বাক্সবন্দী লাশের পরিচয় মেলেনি তিনদিনেও॥ জিজ্ঞাসাবাদের মুখে কয়েকজন


নীলফামারী প্রতিনিধি॥ 

বাক্সবন্দী অর্ধগলিত অজ্ঞাত যুবকের লাশটি ময়না তদন্ত শেষে বেওয়ারীশ ভাবেই পুলিশ লাশ দাফন করেছে। আজ শনিবার(১৮ জুলাই/২০২০) এ রির্পোট লিখা পর্যন্ত সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত অজ্ঞাত ওই যুবকের লাশের কোন কুলকিনারাও চিহিৃত হয়নি। এ ঘটনায় নীলফামারীর ডিমলা থানায় মামলা হয়েছে। তদন্ত করছে নীলফামারী ডিবি পুলিশ। 
এদিকে লাশ সনাক্ত সহ বিভিন্ন গোপন খবরে বেশ কয়েকজনকে নিয়ে এসে জিজ্ঞাসাবাদও চালিয়ে যাচ্ছেন ডিবি পুলিশ। জিজ্ঞাসাবাদের কয়েকজনের মধ্যে আছেন জেলার ডোমার উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ক কর্মকর্তা (পিআইও) জিয়াউর রহমানও। ঘটনাটি বর্তমানে এলাকায় চাঞ্চল সৃস্টি করেছে। 
গত ১৫ জুলাই (বুধবার) রাত সাড়ে ১১টায় নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার ফরেস্টের পাকা সড়কের ধারে রাখা একটি বাক্স দেখতে পাওয়া যায়। তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশ ও স্থানীয়রা সেটি পাহারা দিয়ে রাখে। পরের দিন বৃহস্পতিবার  (১৬ জুলাই) সকালে স্থানীয় পুলিশের ধারণা বন্ধ বাক্সটির মধ্যে বিস্ফোরক থাকতে পারে। এ জন্য বাক্সটি উদ্ধার ও তার খুলতে নিয়ে আসা হয় রংপুর বিভাগের পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন(পিবিআই), ক্রিমিনাল ইনভেসটিগেশন ডিপার্টমেন্ট(সিআইডি) এবং গোয়েন্দা পুলিশকে। ওই দিন দুপুরে রংপুর বিভাগের বোম্ব ডিস্পোজাল ইউনিটসহ সকলের সহযোগিতায় বাক্সটির (ট্রাংক) তালা খুলে ভিতরে কাপড়ে পেচানো অর্ধগলিত ৪০ বছর বয়সী এক ব্যক্তির মৃতদেহ পাওয়া যায়। জেলা পুলিশ, পিবিআই ও সিআইডির একটি দল ঘটনাস্থলে উপস্থিত মৃতদেহ উদ্ধার করে তার সুরতহাল রিপোর্ট, ফিঙ্গার প্রিন্ট ও আলামত সংগ্রহ করে নেয়া হয়। সেই কাপড় দিয়ে মোড়ানো গেঞ্জি ও লুঙ্গি পরিহিত ব্যক্তিটির পরিচয় শনাক্ত করা যায়নি এখনও। 
পুলিশ ধারণা করছে, তিন চার দিন আগে ব্যক্তিটিকে হত্যা করে বাক্সে ভরে ঘটনাস্থলে রেখে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা । ঘটনার রহস্য উদঘাটন এবং নিহত ব্যক্তির পরিচয় নিশ্চিতকরণে কাজ শুরু করে ডিবি পুলিশ।
সূত্র বলছে, ডিবি পুলিশ বিভিন্নস্থানে অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু লাশের পরিচয় মেলাতে পারছেনা। এ জন্য বেশ কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডিবি পুলিশের অফিসেও নিয়ে আসা হয়েছে। একটি সূত্র দাবি করে জানায় জিজ্ঞাসাবাদের কবলে পড়েছেন নীলফামারীর ডোমার উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ক কর্মকর্তা (পিআইও) জিয়াউর রহমানও। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায় গতকাল শুক্রবার(১৭ জুলাই/২০২০) রাত ৮টার দিকে পিআইওকে সঙ্গে নিয়ে ডিবি পুলিশ ডোমার উপজেলার বাসভবনেও তল্লাশী চালায়। 
আজ শনিবার বিকালে এ ব্যাপারে নীলফামারী ডিবি পুলিশের ওসি কেএম আজমীরুজ্জামান সাংবদিকদের বলেন, তদন্ত চলছে। কাউকেই আটক বা গ্রেফতার করা হয়নি। বেশ কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে উল্লেখ করলেও কারো নাম উল্লেখ করেননি। তিনি বলেন, লাশের পরিচয় উদ্ধারের চেষ্টা করা হচ্ছে।
অপর দিকে জেলা ত্রান ও পুনঃবাসন কর্মকর্তা এস,এ হায়াত এর কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন একটি লাশ উদ্ধারের বিষয়ে ডোমার পিআইওকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ সেটি জানতে পেরেছি। # 

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 7806222353547186906

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item