চিলাহাটি-হলদীবাড়ি রেললাইন স্থাপন শুরু॥ পশ্চিমাঞ্চল জিএম-এর পরিদর্শন


ইনজামাম-উল-হক নির্ণয়,চিলাহাটী থেকে॥ ভারতের হলদীবাড়ির সঙ্গে বাংলাদেশের নীলফামারীর চিলাহাটির জিরো পয়েন্ট ডাঙ্গাপাড়ায় রেল লাইন বসানোর কাজ শুরু করা হয়েছে। করোনা ভাইরাসে বেশ কিছুদিন লকডাউন থাকায় এতোদিন ওই কাজ বন্ধ ছিল। লকডাউন খুলে যাওয়ার পর বাংলাদেশ অংশের রেললাইন বিছানোর কাজ শুরু করা হলো। রেললাইন বসানোর কাজ শেষ হলে এই রেলপথে ভারতের হলদীবাড়ি হয়ে দার্জিলিংএর শিলিগুড়ির সঙ্গে ঢাকা ও মংলা বন্দরের সরাসরি রেলপথ সংযোগ হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার(৯ জুলাই/২০২০) বিকালে ও আজ শুক্রবার(১০ জুলাই/২০২০) সকালে বাংলাদেশ রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলীয় মহাব্যবস্থাপক (জিএম) মিহির কান্তি গুহ্ চিলাহাটি রেলওয়ে স্টেশন সহ ওই কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন ও উপস্থিত কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন।
এ সময় তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেনম পশ্চিম রেলওয়ের প্রধান প্রকৌশলী আল-ফাত্ত্বা মাসুদুর রহমান, বিভাগীয় প্রধান যন্ত্র প্রকৌশলী মনতাজুল ইসলাম, মেকানিক্যাল প্রধান কুদরতি খুদা,প্রধান পরিবহন কর্মকর্তা শহিদুল ইসলাম, রেলের পাকজোনের পিডি আব্দুর রহীম ও ঠিকাদার প্রতিষ্ঠান ম্যাক্স এর প্রকল্প পরিচালক সিয়াফ আহমেদ সহ চিলাহাটি রেলস্টশনের স্টাফগন। 
 
জিএম উপস্থিত সাংবাদিকদের বলেন, চলতি জুন মাসের মধ্যে ওই নির্মান কাজ সমাপ্তের কথা ছিল। কিন্তু গত ২৬ মার্চ থেকে করোনার ধাক্কায় লকডাউন শুরু হয়। ফলে এই নির্মান কাজ বন্ধ হয়ে গেলে জুন মাসের মধ্যে ওই কাজ সমাপ্ত করা সম্ভব হয়নি। লকডাউন খুলে যাওয়ায় পুনরায় নির্মান কাজ শুরু করা হয়েছে। এখন ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে নির্মান কাজ শেষ করা হবে। এই নির্মান কাজ শেষ হলেই প্রায় ৫৫ বছর পর বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যকার চিলাহাটি-হলদিবাড়ি রেলপথ আবারও চালু হবে। 

রেলওয়ে সূত্র জানায়, এই কাজের জন্য বাংলাদেশ অংশে ৮০ কোটি ১৬ লাখ ৯৪ হাজার টাকা ব্যয় হচ্ছে। ভারতের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী বাংলাদেশ রেলওয়ে চিলাহাটি থেকে ভারতের সীমান্ত পর্যন্ত ৬ দশমিক ৭২৪ কিলোমিটার রেলপথ বসানো হচ্ছে।এ ছাড়া বসানো হবে ২ দশমিক ৩৬ কিলোমিটার লুপ লাইনসহ মোট ৯ দশমিক ৩৬ কিলোমিটার। 
অন্যদিকে, ভারতের হলদিবাড়ি থেকে হলদিবাড়ি সীমান্ত পর্যন্ত ৬ দশমিক ৫ কিলোমিটার রেলপথ স্থাপনের কাজ ইতিমধ্যে শেষ করেছে ভারতীয় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।এখন ভারতের নোম্যান্সল্যান্ড এলাকায় রেললিঙ্ক স্থাপন করবে। 
আজ শুক্রবার পর্যন্ত বাংলাদেশ অংশে প্রায় ২ কিলোমিটার রেলপথ স্থাপনের কাজ শেষ হবে। পুরো কাজ শেষ হলে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এই রেললাইনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন বলে আশা করা হচ্ছে। 
উল্লেখ যে, ২০১৯ সালের ২১ সেপ্টেম্বর ওই রেলপথ বাংলাদেশের অংশের স্থাপনের কাজের উদ্ধোধন করেছিলেন রেলপথ মন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন।# 

 

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 1783269518438747415

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

ফেকবুক পেজ

কৃষিকথা

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item