করোনা যুদ্ধে ফুলবাড়ী’র ইউএনও আব্দুস সালাম চৌধুরী’র নিরলস প্রচেষ্টা প্রশংসনীয়

মেহেদী হাসান উজ্জ্বল-ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) প্রতিনিধি;

করোনা যুদ্ধে দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুস সালাম চৌধুরীর নিরলস প্রচেষ্টা প্রশংসনীয়।পরিবার পরিজনকে ছেড়ে করোনা মহামারীর এই সংকটময় মুহূর্তে ঝুঁকি নিয়ে দিনাজপুর জেলার ফুলবাড়ী উপজেলার মানুষের পাশে দিন-রাত একাকার করে ক্লান্তিহীন ভাবে ছুটে চলছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আব্দুস সালাম চৌধরী। এবারে তার ঈদও কেটেছে মানুষের সেবার মধ্যদিয়ে। কর্মক্ষেত্রের প্রত্যেকটি জায়গায় তিনি অত্যন্ত জনবান্ধব,সৎ,কর্তব্যপরায়ণ,মেধাবী ও সাহসীকতার পরিচয় রেখেছেন।
উপজেলার বিভিন্ন এলাকার সুধিজনরা জানান,মহামারি করোনা ভাইরাস কোভিট ১৯ এর শুরু থেকেই জীবনের ঝুকি উপেক্ষা করে তিনি এক মুহুর্তের জন্যও পিছপা হয়নি। সরকারী নির্দেশনা এবং ঘোষিত লকডাউন, সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি এবং আইন-শৃঙ্খলা নিশ্চিতকরাসহ অন্যান্য মানবিক কাজে নিজেকে সার্বক্ষণিক দায়ীত্বে নিয়োজিত রেখেছেন। তার কাজের মহিমায়  উপজেলার সকল শ্রেনী পেশার মানুষ উপজেলা সকল সরকারী কর্মকর্তাগন তাকে নিয়ে গর্ববোধ করেন। তার এই কর্মগুনে তিনি আম জনতার ইউএনও হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হয়েছেন।
এদিকে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইওউএনও) আব্দুস সালাম চৌধুরী নেতৃত্বে ফুলবাড়ী পৌর এলাকাসহ উপজেলার ৭ টি ইউনিয়নে করোনা ভাইরাস সংক্রমনে কর্মহীন ও হতদরিদ্রদের ত্রান বিতরণ কার্যক্রম মনিটরিং,বাজার মনিটরিং, হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকা ব্যক্তিদের তদারকি,তাদের গতিবিধি তদারকি এবং দেশের অন্যান্য জায়গা থেকে আগত ব্যক্তিদের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করে উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ, পুলিশ ও  ইউপি চেয়্যারম্যান রাজনৈতিক ব্যাক্তিবর্গের সহায়তা করা এবং প্রত্যেক হতদরিদ্রের নিকট সুষ্ঠভাবে ত্রাণ পৌঁছানোর লক্ষ্যে তার নির্দেশে উপজেলায় নিয়োগকৃত ট্যাগ (তদারকি) কর্মকর্তারা নিষ্ঠার সাথে কাজ করে যাচ্ছেন। সরকারী সহায়তার পাশাপাশী এ উপজেলায় তিনি ফুড বাস্কেট নামে খাদ্য সংগ্রহরে জন্য একটি ব্যতিক্রমী উদ্যোগ গ্রহণ করে সফলতার সাথে বিভিন্ন জায়গা থেকে সাহায্য সহযোগীতাসহ আর্থিক সহায়তা নিয়ে কর্মহীন মানুষদের মাঝে বিতরণ করে যাচ্ছেন।
যা জেলা শহরসহ অত্র এলাকায় ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। ফুড বাস্কেটের মাধ্যমে সংগ্রকৃত খাদ্য উপজেলা ত্রান কমিটি ও জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে, যেখানে যখন খাদ্য সংকট পড়েছে তাৎক্ষণিক ছুটে গিয়ে ওই মানুষগুলোর মাঝে সুষ্ঠভাবে বিতরণ করেছেন। এমনকি ঈদের দিনেও নিজের কথা না ভেবে ছুটে গেছেন ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মানুষগুলোর খোঁজ খবর নিতে এবং তাদের সহায়াতা দিতে,যাতে তারা কষ্ট না পায়।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুস সালাম চৌধুরী বলেন, উপজেলার ৭টি ইউনিয়নে দুস্থ্য ও কর্মহীন হয়ে পড়া সকল পরিবারগুলো যেনো ত্রাণ সহায়তার আওতায় আসে সেদিকে লক্ষ রেখে ইউপি চেয়্যারম্যানদের সহযোগিতায় ত্রানবিতরন কার্যক্রম মনিটরিং করা সহ বাজার মনিটরিং, হোমকোয়ারেন্টনে থাকা ব্যক্তিদের তদারকি তাদের তাদের খাদ্য সরবারাহকরা ও চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে উপজেলার সরকারী কর্মকর্তাকে ট্যাগ অফিসারের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে এবং তারা তাদের উপর অর্পিত দায়িত্ব যথাযথ ভাবে পালন করে যাচ্ছেন। তিনি আরো বলেন প্রতিটি কাজে তাকে সার্বক্ষনিক বিভিন্ন ভাবে সহযোগীতা করেছেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মিল্টন, উপজেলা স্বাস্থ্য কপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ইউএইচএফপিও) হাসানুল হোসেন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ এটিএম হামীম আশরাফ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মুশফিকুর রহমান বাবুল,উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সাফিউল ইসলাম,উপজেলা প্রকৌশলী শহিদুজ্জামানসহ উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন কর্মকর্তাগন,আইন শৃখ্ংলাবাহীনির সদস্যগন,সাংবাদিকগন,রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ,সুধিজন ও জনপ্রতিনিধিগণ। সেইজন্য তিনি সকলের প্রতি কৃতঙ্গতা ঙ্গ্যাপনসহ ধন্যবাদ জানিয়েছেন।
উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শাফিউল ইসলাম জানান,ঈদের পূর্ব মুহূর্ত পর্যন্ত সরকারীভাবে সর্বমোট তিন ধাপে সরকারী অনুদান ১২৭ দশমিক ৭/৫ মেঃ টন চাল ও নগদ ৬লক্ষ ১০হাজার ২শ ৫০টাকা বরাদ্ধ পাওয়া গেছে। এর সাথে ভূর্তিকী সরুপ ফুড বাস্কেট এর মাধ্যমে সংগ্রহকৃত ২হাজার ৩শ ৪৭ প্যাকেট খাদ্য সহ ১৪হাজার ৩শ ৫০প্যাকেট খাদ্য সরকারীভাবে সহায়তা দেওয়া হয়।
অপরদিকে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা ও ফুড বাস্কেট এর আহŸায়ক কৃষিবিদ এটিএম হামীম আশরাফ বলেন,উপজেলা নির্বাহী অফিসার এর নিজ উদ্যেগে ফুড বাস্কেট এর মাধ্যমে ১২হাজার ২৮৩কেজি চাল, ১হাজার ৮০৭ কেজি ডাল,৬হাজার ৮১৭কেজি আলু,২হাজার ৮শ ৮বোতল তেল, ৩হাজার প্যাকেট লবন,৩হাজার পিস সাবান, ৮শ পিস মিষ্টি কুমড়া,নগদ ৩লক্ষ ৬৯হাজার ৬শ টাকা সংগ্রহকরা হয়। এর মধ্যে ২লক্ষ টাকা স্থানীয় এমপি প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রনালয় সর্ম্পকিত স্থায়ী কমিটির সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মোস্তাফিজুর রহমান ও উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান মিল্টন ১লক্ষ টাকা অনুদান স্বরুপ প্রদান করেন। বাকি ৬৯হাজার ৬শ টাকা, স্থানীয় রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ,সুধীজন,ব্যবসায়ীবৃন্দ ও জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় সংগ্রহ করা হয়। ফুড বাস্কেট থেকে ২হাজার ৩শ ৪৭ প্যাকেট খাদ্য সহায়তা সরকারী বরাদ্ধের সাথে ভূর্তিকী হিসেবে দিয়েও আরও ৩হাজার ৪শ ৫৬ প্যাকেটসহ সর্বমোট ৫হাজার ৮শ৩ প্যাকেট খাদ্য সহায়তা প্রদান করা হয়েছে ।
তিনি আরও বলেন,উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মহোদয়ের নির্দেশনায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার সামগ্রী (সরকারী অনুদান) ও ফুড বাস্কেট এর মাধ্যমে সংগ্রহকৃত খাদ্য সামগ্রী উপজেলা ও পৌর এলাকাসহ ৭টি ইউনিয়নের জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষের মাঝে সুষ্ঠভাবে বন্টন করা হয়েছে।

পুরোনো সংবাদ

দিনাজপুর 6868710413656118734

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item