ধানকাটা শ্রমিক জগত- চিকিৎসক হতে চায়

নীলফামারী প্রতিনিধি\
এক সময় লিখাপড়া ছেড়ে দিয়েছিল। মেধাবী বলেই প্রধœ শিক্ষক তাকে স্কুলে ধরে রাখেন। অভাবের সংসারে বাবা সঙ্গে দিন হাজিরায় কৃষি কাজ ও ধান কাটাই মাড়াইয়ের শ্রমিক মেধাবী অদম্য জগত চন্দ্র রায় এবার এসএসসি ফলাফলে জিপিএ-৫ পেয়ে চিকিৎসক হবার স্বপ্ন দেখছে। তার স্বপ্ন বাস্তবতা পাবে কিনা সেটি ভাবছে জগত।
গত রবিবার ফলফল প্রকাশের দিন বাবার সাথে দিন হাজিরায় বোরো ধান কাটতে গিয়েছিল জগত। দুপুরে স্কুলের প্রধান শিক্ষক খবর পাঠালো জগত তুমি এ প্লাস পেয়েছো। এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলে নীলফামারীর জলঢাকা আলহাজ্ব মোবারক হোসেন অনির্বান বহুম‚খী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী জগত চন্দ্র রায় বিজ্ঞান বিভাগ থেকে এ প্লাস পায়। জগত বলছিল আমার তো পড়ালেখা বন্ধ হয়েই গিয়েছিল। তারপর আমাদের প্রধান শিক্ষক আমার বাবাকে ডেকে স্কুল হতে আমার পড়ালেখার যাবতীয় দায়িত্বের ভার নেন। এরপর আমি আবারো স্কুলমুখী হই। যার ফসল আজকের এসএসসির রেজাল্ট'। ডাক্তার হবার স্বপ্ন দেখি। কিন্তু যে জোগাবে এই অর্থ।
জগত চন্দ্রের বাবা চাটি বর্মন বলেন, অভাবের কারণে আমি কখনও স্কুলের মুখ দেখি নাই। আমার দুইজন ছেলে সন্তান। বড় ছেলে রতন চন্দ্র তারও পড়ালেখা করার সুযোগ হয় নাই। যদি স্কুলের হেড মাস্টার রোকন চৌধুরী দ্বিতীয় ছেলে জগতের দায়িত্ব না নিতেন তাহলে অনেক আগেই তার লেখাপড়ার আশা শেষ হয়ে যেত। বাড়ি থেকে আসার পথে জগতকে বলেছিলাম আমার তো সাধ্য নাই যদি কখনও তোর কেউ পড়ালেখার দায়িত্ব নেয় তাহলে তুই ভবিষ্যতে ডাক্তার হতে পারবি।
 জগত চন্দ্রের মা রতনা রানী বলেন, আমি পঞ্চম শ্রেণি পযর্ন্ত পড়েছি। আমরা গরিব মানুষ। আমার সন্তানের পাশে যদি কেউ না দাঁড়ায় তাহলে এই পড়া তার তার শেষ পড়া হবে। তাই ছেলেটা যেন তার ডাক্তার হবার স্বপ্ন প‚রণ করতে পারে এজন্য সবার সহযোগিতা চাই।
আলহাজ্ব মোবারক হোসেন অনির্বান বহুম‚খী উচ্চ বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক শাহ মো. রোকনুজ্জামান রোকন চৌধুরী বলেন, দিনাজপুর শিক্ষা বোডের অধীন এই প্রতিষ্ঠান হতে ১১২ জন এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছিল। ৮২ জন পাস করেছে। পাশের হার ৭৫%। প্রতিষ্ঠানটিতে যেসব শিক্ষার্থী আছে তারা অধিকাংশই গরিব ঘরের। আর জগত এমন গরিব ঘরের যে কিনা বাবা-মায়ের মুখের দিকে তাকিয়ে ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট এলাকায় পরীক্ষা শেষে দিন মজুরের কাজ করতে গিয়েছিল। আজও তাকে যখন রেজাল্টের কথা অন্যের মোবাইল ফোনে জানাই তখনও সে দিনমজুর হিসেবে মানুষের ধান কাটছিল।
প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব আমজাদ হোসেন চৌধুরী বলেন, বিজ্ঞান বিভাগ হতে এবার এসএসসি ফলাফলে জগত চন্দ্র নামে ছেলেটি এ প্লাস পেয়েছে। সে তার স্বপ্ন প‚রণে যেন এগিয়ে যেতে পারে। দেশের সেবা করতে পারে। সেজন্য ছেলেটি পাশে এগিয়ে আসতে সবার আন্তরিকতা ও সহযোগিতা কামনা করছি।উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা চঞ্চল কুমার ভৌমিক বলেন, তার স্বপ্ন প‚রণে আমাদের ঘাটতি থাকবে না। পাশাপাশি সমাজের বিত্তবানদের এগিয়ে আসতে আহবান করছি।#


পুরোনো সংবাদ

শিক্ষা-শিক্ষাঙ্গন 6942946306373953769

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item