পাগলাপীরে যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনা ফেলানোয় পরিবেশ হুমকির সম্মুখিন

হাবিবুর রহমান সেলিম, পাগলাপীরঃ
রংপুরের ব্যস্ততম বানিজ্যিক বন্দর পাগলাপীরে যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনা ফেলানোয় এর পঁচা দূর্গন্ধে পরিবেশ হুমকির সম্মুখিন হয়ে পড়ছে। জানাগেছে পাগলাপীর বন্দরের রংপুর-দিনাজপুর-ঢাকা হাইওয়ে ও ডালিয়া-বুড়িমারী সহ জন গুরুত্বপূর্ন ৫টি সড়কের দূধারে গড়ে উঠা ব্যাংক-বীমা, এনজিও প্রতিষ্ঠান, পাগলাপীর স্কুল ও কলেজ, আদ্দ্বীন একাডেমী, মডেল স্কুল ও কলেজ সহ শিক্ষানগরী পাগলাপীরের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, বিভিন্ন শপিং কমপ্লেক্স সহ নানা ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে, রাস্তার মোড়ে যেখানে সেখানে ব্যবহৃত ময়লা আবর্জনা, কাগজ পত্র, ঠোঙ্গা, পলিথিন ব্যাগ, সিগারেট-ম্যাচের ঠোঙ্গা, আম, লিচু, কলার ছাল ফেলানো হচ্ছে কিংবা স্তুপ করে রাখায় সামান্য বৃষ্টির পানি পেয়ে এই সব ময়লা আবর্জনা থেকে পঁচা দূর্গন্ধ বেড়ানোয়  ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়ছে নানা রোগ বালাই। ফলে এই সব পঁচা দূর্গন্ধের কারনে রাস্তায় চলাচল অসাধ্য হয়ে পড়ছে মানুষজনের। এমনিতেই করোনা ভাইরাসে পাগলাপীর সহ দেশজুরে মানুষজনের মাঝে বিরাজ করছে আতঙ্ক ও উৎকন্ঠা। তার উপর বিভাগীয় শহর রংপুরের ব্যস্ততম বানিজ্যিক বন্দর পাগলাপীরে যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনা স্তুফ করে রাখায় পঁচা দূগন্ধে অতিষ্ট হয়ে পড়ছে ব্যবসায়ী সহ স্থানীয় বিভিন্ন শ্রেনির মানুষ। স্বরজমিনে পাগলাপীর ডালিয়া সড়ক দোকান মালিক সমিতির সহ-সভাপতি মোঃ নুরুন্নবী জাহাঙ্গীর, সম্পাদক শাকিল হোসেন, বিশিষ্ট হোমিও চিকিৎসক ডাঃ প্রদীপ কুমার সরকার, গোকুলপুর চওড়াপাড়ার বাসিন্দা ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার আল আমিন, ধনীপাড়ার বাসিন্দা মঞ্জুর আলী ও পাগলাপীর প্রেস ক্লাবের সিনিয়র সদস্য আব্দুর রহিম, এখলাছ, জিয়াম,মহুবার, ও ছাদেকুল সহ পাগলাপীরের বিভিন্ন ব্যবসায়ী সহ ক্রেতা সাধারন সাংবাদিক কে বলেন পাগলাপীর থানা, উপজেলা না হলেও পৌর কিংবা উপজেলা শহরের কোন অংশে কম নয়। এখানে সরকারী কোন দপ্তর না থাকলেও পাগলাপীর একটি শিক্ষানগরী এলাকা এবং একটি ব্যস্ততম বানিজ্যিক বন্দর হিসেবে পাগলাপীরের নামটি দেশের বিভিন্ন মহলের কাছে ব্যাপক পরিচিতি রয়েছে। কিস্তু অত্যান্ত দূঃখজনক হলেও সত্য যে পাগলাপীর বন্দরে রংপুর-দিনাজপুর-ঢাকা হাইওয়ে ও ডালিয়া-বুড়িমারী সহ জনগুরুত্বপূর্ন ৫টি সড়কের দু-ধারে কোথাও কোন স্থানে নেই কোন ডাষ্টবিন। ফলে ডাষ্টবিনের অভাবে ব্যবসায়ী সহ স্থানীয় ক্রেতা সাধারন সহ সাধারন মানুষজন ময়লা আবর্জনা কাগজ, ঢোঙ্গা পলিথিন ব্যাগ সহ নানান ব্যবহৃত জিনিসপত্র যেখানে সেখানে ফেলছেন।  কেউ কেউ দোকানের ময়লা আবর্জনা ঝাড়–র পর স্তুপ করে কিংবা জরো করে আগুনে পুড়িয়ে দিলেও এই সব সচেতন ব্যবসায়ীর সংখ্যা অতি নগন্য। তাই পঁচা দূর্গন্ধের কবল থেকে রক্ষায়, মানসম্মত পরিবেশে এবং পাগলাপীর বন্দরের সৌন্দয্য বর্ধনে জনগুরুত্বপূর্ন ৫টি সড়কের দুÑধারে নুন্যতম ১০টি ডাষ্টবিন স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনে পাগলাপীরবাসী অত্র ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ ইকবাল হোসেন ও উপজেলা জেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।

পুরোনো সংবাদ

রংপুর 5351887066668308173

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item