কিশোরগঞ্জে চোরাই গরুসহ ইউপি সদস্য ও গ্রাম পুলিশ আটক


কিশোরগঞ্জ(নীলফামারী)সংবাদদাতাঃ
নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার বড়ভিটা ইউনিয়নে তিনটি চোরাই গরু আটক করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকালে থানা পুলিশ চোরাই গরুসহ ওই ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার অলিয়ার রহমান এবং গ্রাম পুলিশ সাহেব আলীকে জিঙ্গাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসে।
জানা গেছে, মঙ্গলবার ভোর ৫ টার দিকে গরু চোরেরা পিকাপে করে চোরাই গরুগুলো নিয়ে রংপুরের দিকে যাচ্ছিল। এসময় বড়ভিটা বাজারে টহলরত চৌকিদার সাহেব আলী এবং ওই ওয়ার্ডের মেম্বার অলিয়ার রহমান গরু বোঝাই পিকাপ ভ্যানটিকে থামাতে বলে। পরে গ্রাম পুলিশ সাহেব আলী এবং মেম্বার অলিয়ার রহমান চোরদের ছেড়ে দিয়ে গরু গুলো আটক করে রাখে।
গ্রাম পুলিশ সাহেব আলী জানান, ভোর হওয়ার একটু আগে একটি গরু বোঝাই পিকাপ ভ্যান জলঢাকা থেকে রংপুরের দিকে যাচ্ছিল এসময় পিকআপ ভ্যানটি বড়ভিটা বাসষ্টান্ডের কাছে আসলে একটি গরু (বকনা বাছুর) ভ্যান থেকে লাফিয়ে পড়ে। পরে আমি এবং মেম্বার ভ্যানটির কাছে গিয়ে গরুর কাগজপত্র চাইলে তারা গরু রেখে চলে যায়।
বড়ভিটা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ফজলার রহমান জানান, গরু আটকের সংবাদ পেয়ে আমি গরুগুলো ইউনিয়ন পরিষদে রাখতে বলেছিলাম। কিন্তু পরে জানতে পারলাম পুলিশ গরু থানায় নিয়ে গেছে।
এ ব্যাপারে সৈয়দপুর সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার অশোক কুমার পালের সাথে কথা বললে তিনি বলেন, গরু তিনটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। সেই সাথে মেম্বার ও গ্রাম পুলিশকে জিঙ্গাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে।

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 2980709157747140639

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item