নীলফামারীতে পৃথক ঘটনায় দুই গৃহবধুর মরদেহ উদ্ধার আটক ১


নীলফামারী প্রতিনিধি পৃথক ঘটনায় পুলিশ দুই গৃহবধুর মরদেহ উদ্ধার করেছে। অভিযোগ তাদের শারিরিক নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে জেলা সদরের খোকশাবাড়ি ও জলঢাকা উপজেলার শিমুলবাড়ি হতে পুলিশ এই লাশ দুটি উদ্ধার করে। 
জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকাল ১১টার দিকে জেলা সদরের খোকশাবাড়ী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পিছনের একটি পানির গর্তে খ্রিষ্টান ধর্মের মিনা দাস (২৫) নামের এক গৃহবধ‚র লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। মিনা ওই এলাকার হালিরবাজার গ্রামের তিমু দাসের স্ত্রী। এ ঘটনায় পুলিশ তার স্বামী তিমু দাসকে আটক করেছে। প্রায় এক বছর আগে ভালবেসে তাদের বিয়ে হয়েছিল। স্থানীয় লোকজন জানায়, ধারণা তাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে ওই ডোবায় ফেলে দেয়া হয়েছে।নীলফামারী সদর থানার ওসি মোমিনুল ইসলাম জানান লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গৃহবধ‚র স্বামীকে আটক করা হয়েছে বলে তিনি জানান। 
অপর দিকে একই দিন ভোরে জেলার জলঢাকা উপজেলার শিমুলবাড়ি ইউনিয়নের ঘুঘুমারী বেগপাড়া গ্রামে পারিবারিক কলহে পাষন্ড স্বামী আহেদ আলী ও শ্বশুড় শাশুড়ি মিলে তিনসন্তানের জননী শিমু বেগমকে(৩০) হত্যা করে। এলাকাবাসী ও চেয়ারম্যান হামিদুল ইসলাম সুত্রে জানা যায়, বুধবার রাতে নিহত গৃহবধ‚ শিমু বেগমকে তার স্বামী আয়েদ আলী, শ্বশুড় সাইফ উদ্দীন ও সৎ শাশুড়ি আলেয়া বেগম শারিরিকভাবে নির্যাতন চালায়। এক পর্যায়ে জোড়প‚র্বক ঈদুর মারা কীটনাশক ওই গৃহবধুর মুখে ফেলে দেয়। ভোরে ওই গৃহবধু মারা গেলে তারা সকলে বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়। 
এ ঘটনায় উপজেলার মিরগঞ্জ পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ আব্দুর রহিম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান লাশ ময়না তদন্তের জন্য নীলফামারী মর্গে প্রেরন করা হয়েছে।#

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 8932769523848002538

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

ফেকবুক পেজ

কৃষিকথা

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item