লালমনিরহাটে করোনায় আক্রান্ত পিতা-পুত্র সুস্থ



লালমনিরহাট প্রতিনিধি 
লালমনিরহাটে প্রথম করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত নারায়ণগঞ্জ ফেরত শ্রমিক কামরুল ইসলাম ও তার সংস্পর্শে আসা তার ৭ বছরের পুত্র সালমান হোসেন এখন সুস্থ।
দুইজন সদর হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহনের পর তাদের নতুন রিপোর্ট নেগেটিপ এসেছে। ফলে তারা হাসপাতাল থেকে কাল শনিবার বা রোববার বাড়ি যেতে পারে।

 লালমনিরহাট সিভিল সার্জন হেল্প ডেস্ক সুত্রে জানা গেছে, জেলার সদর উপজেলার গোকুন্ডা ইউনিয়নের বাসিন্দা নারায়ণগঞ্জ ফেরত শ্রমিক কামরুল ইসলামের শরীরে গত ১০ এপ্রিল প্রথম করোনা ভাইরাস সংক্রামন ধরা পড়ে।
কামরুল ইসলাম জেলার প্রথম করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী। এর দুই দিন পর তার সংস্পর্শে আসা বাড়িতে থাকা তার ৭ বছর বয়সী পুত্র সালমান হোসেনের শরীরেও করোনা ভাইরাস ধরা পড়ে। সালমান হোসেন জেলার ২য় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী।
পিতা-পুত্র দুই জনকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করে করোনা ইউনিটে চিকিৎসা দেয়া হয়। ১৪ দিন চিকিৎসা গ্রহনের পর তাদের ২য় বার নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করা হয়।
গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দুই জনের করোনা সংক্রামনের ২য় রিপোর্ট নেগেটিপ আসে। ফলে জেলার ১ম ও ২য় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী এখন করোনা মুক্ত ও সুস্থ। তারা কাল শনিবার বা রোববার হাসপাতাল থেকে বাড়ি যেতে পারে।
লালমনিরহাট সিভিল সার্জন ডা. নিমর্লেন্দু রায় বলেন, জেলার প্রথম করোনায় আক্রান্ত কামরুল ইসলামের ১৪ দিন চিকিৎসার পর ২য় বার নমুনা পরীক্ষায় সব রিপোর্ট নেগেটিপ এসেছে। তিনি সম্পূর্ণ করোনা মুক্ত। তার পুত্র সালমান হোসেনেরও একটি রিপোর্ট নেগেটিপ এসেছে। আর একটি রিপোর্ট আজ পাওয়া যেতে পারে। ওই রিপোর্ট যদি নেগেটিপ আসে। তাহলে শনিবার বা রোববার পিতা-পুত্র দুই জনেই বাড়ি যেতে পাবে।  

পুরোনো সংবাদ

হাইলাইটস 7127135987009865588

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item