পাগলাপীরে করোনায় চালের মূল্য উর্ধগতিতে,নাভিশ্বাস ক্রেতাদের


হাবিবুর রহমান সেলিম, পাগলাপীর ঃ করোনা ভাইরাস দূর্যোগ মুহুর্তে রংপুরের পাগলাপীরের বিভিন্ন হাট বাজারে চাউল এর মূল্য উর্ধগতিতে হওয়ায় ভুক্তভোগী ক্রেতা সাধারনের নাভিঃশ্বাস  বেড়ে চলছে। জানাগেছে পাগলাপীর বন্দর সহ অঞ্চলের বিভিন্ন হাট বাজারে দেড় সপ্তাহ পূর্বে ব্যবসায়ীরা যে মোটা চাল কেজি ২৫ টাকা, চিকন চাল ৩০/৩২ টাকা দরে বিক্রি করেছিল, তা এখন মুল্য বেড়ে যাওয়ায় ব্যবসায়ীরা সেই চাল প্রতি কেজি ৪০/৪২ এবং চিকন চাল ৪২/৪৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি করতেছে। স্বরজমিনে গতকাল রবিবার ৫ এপ্রিল পাগলাপীর বন্দর , কাচা বাজার নামাহাট, হরকলি হাট, সিবের বাজার, পানবাজার, মমিনপুর, খারুয়াবাধা, নেকীরহাট, শলেয়াশাহ, খলেয়া গঞ্জিপুর, চন্দনের হাট, খিলালগঞ্জ, ধনতোলা, বিড়াবাড়ী, বেতগাড়ী, উত্তম হাজীরহাট সহ অঞ্চলের বিভিন্ন হাট বাজারে ব্যবসায়ীরা সাংবাদিককে বলেন করোনা ভাইরাসের কারনে মোকামে মহাজন আরত দাড়রা চালের বস্তা প্রতি ৪ থেকে ৫’শ টাকা মূল্য বাড়িয়ে দেওয়ায় খুচরা বাজারে এর প্রভাব পড়ছে। এর ফলে খুচরা বাজারে যে চালের কেজি ২৫ টাকা ছিল তা মুল্য বেড়ে  যাওয়ায় ৪২/৪৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হচ্ছে চাল। পাগলাপীরের গোকুলপুর নামাপাড়ার বাসিন্দা জিয়াম, রাজু, হরকলির রহিম, ও সিদ্দিক সহ অঞ্চলের ভোক্তভোগী ক্রেতা সাধারন অভিযোগ করে সাংবাদিক কে বলেন সরকার ও প্রশাসনের হাট বাজারে মনিটরিং এ তেমন কোন প্রভাব না পড়ায় ব্যবসায়ীরা ইচ্ছা মাফিক দরে ক্রেতাদের কাছে চাল বিক্রি করতেছেন। অথচ সরকার ও প্রশাসন করোনা ভাইরাস দূর্যোগ মুহুর্তে বিটিভি, বেতার, বেসরকারী টিভি চ্যানেল সহ দেশের বিভিন্ন গন মাধ্যমে বার বার ঘোষনা দিচ্ছেন কোন অসাধু ব্যবসায়ী চাল, ডাল সহ নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস পত্র অতিরিক্ত মূল্যে ক্রেতাদের কাছে বিক্রি করলে সেই সব ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করবেন বলে হুশিয়ারী দিলেও বাস্তবতার সাথে নেই কোন সরকার ও প্রশাসনের বক্তব্যের মিল ?

পুরোনো সংবাদ

রংপুর 6893298541141482897

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item