বাড়ি বাড়ি গিয়ে জীবানু নাশক স্প্রে ছিটাচ্ছেন নীলফামারী পৌরসভা

নীলফামারী প্রতিনিধি ॥ করোনা ভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে শহরের প্রতিটি বাড়ি বাড়ি গিয়ে জীবানু নাশক স্প্রে ছিটাচ্ছেন নীলফামারী পৌরসভা। মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ এর নির্দেশনায় শহরের প্রতিটি রাস্তা ঘাট, হাট, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের সহ ৯টি ওয়ার্ডের প্রতিটি বাড়িতে এই কার্যক্রম পরিচালনা করছে পৌরসভার কর্মীরা।
পৌরসভা সুত্র জানায়, করোনা প্রতিরোধে শহরে মশক নিধন, সড়ক জীবানু নাশক করণ, মাস্ক বিতরণ, জনসচেতনতায় লিফলেট বিতরণসহ বিভিন্ন কর্মসুচী পরিচালনা কররা হচ্ছে। বিশেষ করে ঘর থেকে বের না হওয়া, বিদেশ ফেরত ব্যক্তিদের হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করণে মনিটরিং সেল গঠন করা হয় মেয়রের তত্বাবধানে। এর পাশাপাশি অহেতুক বাহিরে ঘোরাফেরা না করার জন্য মাইকিং করেও প্রচারণা চালানো হচ্ছে। 
নীলফামারী পৌরসভার সচিব মশিউর রহমান বলেন, এখনই সময় মানুষকে সচেতন করা। এজন্য মেয়র মহোদয়ের নির্দেশে প্রতিটি পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। আমাদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। সরকারী নির্দেশনা যথাযথ অনুসরণ করে করোনা সংক্রমন প্রতিরোধে চেষ্টা চালাচ্ছি আমরা।
স্যানিটারী ইন্সপেক্টর মরতুজ আলী বলেন, শহরের প্রতিটি সড়ক জীবানু নাশক করা হয়েছে। এখন বাড়ি বাড়ি চলছে স্প্রে কার্যক্রম। পৌরসভার কর্মীরা কয়েকটি ভাগে ভাগ হয়ে এসব কাজ স¤পাদন করছে প্রতিদিন।
শহরের দুই নম্বর ওয়ার্ড বাবুপাড়ার বাসিন্দা ফৌজিয়া ইয়াসমিন জলি জানান, আমাদের বাড়িতে জীবানু নাশক করার কোন ব্যবস্থা ছিলো না। এমনিতে আমরা পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখছি বাড়ি ঘর এমনকি আশপাশ। পৌরসভা থেকে এসে বাড়িতে ¯েপ্র করে দিয়েছে। এরফলে বিশেষ উপকার হবে বাড়িটার। 
এক নম্বর ওয়ার্ড সবুজপাড়ার বাসিন্দা শিপন রায় জানান, মেয়র দেওয়ান কামাল আহমেদ যে উদ্যোগ নিয়েছেন তার জন্য এক নম্বর ওয়ার্ডের সকলের পক্ষ থেকে তাকে ধন্যবাদ জানাই।
প্যানেল মেয়র ঈসা আলী বলেন, সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে পৌরসভার কাজ এই সময়ে আরো বেড়েছে। আমরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে সচেতন করছি যাতে লোকজন পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকে, হাত পরিষ্কার রাখেন এমনকি মাস্ক ব্যবহার করেন। পাশাপাশি করোনা উপসর্গ সন্দেহ হলে দ্রুত চিকিৎসকের সহায়তা কিংবা সরকারী নিয়ন্ত্রণ কক্ষে যেন যোগাযোগ করেন।
নীলফামারী পৌরসভার মেয়র, জেলা আওয়ামীলীগ সভাপতি ও বাংলাদেশ মিউনিসিপাল এসোসিয়েশনের (ম্যাব) সভাপতি দেওয়ান কামাল আহমেদ বলেন, ড্রেন থেকে শুরু করে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা বিষয়ক সব রকমের কাজ করা হচ্ছে। মানুষের পাশে থাকতে এবং প্রয়োজনীয় সেবা দিতে পৌরসভার সকল কর্মকর্তা কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করা হয়েছে। তারা প্রতিনিয়ত কাজ করছেন। ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানগুলোতেও জীবানু নাশক স্প্রে করা হয়েছে এখন বাড়িতে বাড়িতে চলছে এই কার্যক্রম। শহরের বিভিন্ন স্থানে হাত ধোঁয়ার জন্য অস্থায়ী ভাবে বেসিন বসানো হয়েছে যাতে মানুষ হাত পরিষ্কার রাখতে পারেন।
তিনি বলেন, সামাজিক দুরত্ব নিশ্চিত করণে জরুরী দোকানগুলোর সামনে চিহিৃত করে দেয়া হয়েছে যাতে নির্দিষ্ট দুরত্ব বজায় রেখে ক্রেতারা প্রয়োজনীয় পণ্য সংগ্রহ করতে পারেন। #

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 7385740192562120600

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item