সৈয়দপুরে বাড়ি বাড়ি গিয়ে উপহার খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিয়েছে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সিএসআর উইন্ডো বাংলাদেশ


তোফাজ্জল হোসেন লুতু,সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি:
নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলায় ১শ’ পরিবারের বাড়ি বাড়ি গিয়ে উপহার খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দিয়ে দিয়েছে সিএসআর উইন্ডো বাংলাদেশ নামের একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলায় ‘সম্পর্ক’ শিরোনামে অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্য বিতরণ কর্মসূচি পরিচালনা  করছে এই সংগঠন। পাশে এসে দাঁড়িয়েছে দেশের বৃহত্তম আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেড। মাসব্যাপী শ্রমজীবি মানুষের জন্য বিনামূল্যে খাবার বিতরণে সহায়তা করছে এই প্রতিষ্ঠানটি।  দেশের ১৮ টি জেলার প্রায় ২ হাজার পরিবারের মাঝে তিনটি ধাপে এই খাদ্য বিতরণ কর্মসূচি পরিচালিত হচ্ছে।
এরই অংশ হিসেবে দ্বিতীয় ধাপে সৈয়দপুর উপজেলার পাঁচটি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভার কর্মহীন ১০০ পরিবারের মাঝে খাদ্যসামগ্রী তুলে দিয়ে গড়ে তোলা হয়েছে ‘সম্পর্ক’। গত শুক্রবার (১০ এপ্রিল) থেকে শুরু করে  গতকাল রবিবার (১২ এপ্রিল) পর্যন্ত উল্লিখিত পরিবারগুলোর বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেয় সংগঠনটির স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবকগণ। খাদ্যসামগ্রীর মধ্যে রয়েছে ৮ কেজি চাল, ৩ কেজি আলু, পেঁয়াজ, লবণ, সয়াবিন তেল, মসুর ডাল প্রতিটি ১  কেজি করে এবং সাবান দুইটি। এছাড়া অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজণীয় দ্রব্যাদি।
 সিএসআর উইন্ডো বাংলাদেশ এর সমন্বয়কারী আহসান রনি বলেন, আমরা মানুষের সঙ্গে সম্পর্ক স্থাপনে বিশ্বাসী। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবো কিন্তু দায়বদ্ধতা থেকে পিছিয়ে আসতে চাই না। সিএসআর উইন্ডো বাংলাদেশের মাধ্যমে আমরা সমাজের জন্য কিছু করতে চাই। তিনটি ধাপে এই খাদ্য বিতরণ কর্মসূচি পরিচালিত হচ্ছে। যে জেলাগুলো নির্ধারণ করা হয়েছে, তা হলো চাঁদপুর, নীলফামারী, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, শরীয়তপুর, টাঙ্গাইল, নওগাঁ, সিরাজগঞ্জ, পাবনা, ঝিনাইদহ, নাটোর, চুয়াডাঙ্গা, হবিগঞ্জ, ভোলা, সিলেট, জামালপুর, রংপুর, কুড়িগ্রাম, এবং রাজশাহী। প্রায় ২ হাজার পরিবারের সঙ্গে আমরা সম্পর্ক গড়ছি। কারণ, তারা তো আমাদেরই  আত্মীয়-স্বজন।
আইডিএলসি ফাইন্যান্স লিমিটেড এর এমডি এবং সিইও আরিফ খান বলেন, দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে খেটে খাওয়া মানুষের পাশে থাকার জন্য আমাদের এই প্রয়াস। সকলের সমন্বিত উদ্যোগে আমরা এই সমস্যা থেকে উত্তরণ হতে পারবো বলে আশা করছি।
প্রসঙ্গত, খাদ্য বিতরণ কর্মসূচির আগে সিএসআর উইন্ডো বাংলাদেশ বিভিন্ন জেলায় মাইকিং, লিফলেট এবং  পোস্টার প্রদর্শণের মাধ্যমে আতংক নয়, চাই সচেতনতা শ্লোগানের মধ্য দিয়ে সাধারণ মানুষকে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস বিষয়ে সচেতন করেছে। এছাড়াও সামাজিক দূরত্ব সৃষ্টিতে ঝুঁকিপূর্ণ স্থানগুলোতে তিন ফুট দূরত্বে জীবানুনাশক স্প্রে ও দাগ এঁকে দেওয়া হচ্ছে।                                                   

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 4444330786293219308

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item