নীলফামারীতে নির্দিষ্ট সময়ে দোকানে ইফতার বাজার প্রথমদিন বুন্দিয়া মুড়ি ও খেজুর ছাড়া কিছুই ছিলনা


নীলফামারী প্রতিনিধি ২৫ এপ্রিল॥ করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঠেকাতে লকডাউন চলছে নীলফামারী জেলা জুড়ে। এর মাঝে শুরু হয়েছে পবিত্র মাহে রমজান। আজ শনিবার(২৫ এপ্রিল/২০২০) প্রথম রোজায় সরকারি নির্দেশনায় নির্দিষ্ট সময়ের জন্য নীলফামারীতে বসে ইফতার বাজার। ফলে জেলা প্রশাসনের নির্দেশ অনুযায়ী বেলা ৩টা থেকে বিকাল ৬টা পর্যন্ত কিছু কিছু স্থানে অল্প পরিসরে ইফতার বিক্রি করতে দেখা যায়। সরকারি নির্দেশনার বিষয়টি অনেক হোটেল রেস্তোরার মালিকরা জানতে না পারায় অধিকাংশ বন্ধ ছিল। প্রথম রোজায় শহর ও গ্রামের রোজাদাররা ইফতার কিনতে বাসা থেকে বের হয়ে এলেও পেয়েছে শুধু বুন্দিয়া,মুড়ি,খেঁজুর। বড়বাজার,চৌরঙ্গীমোড় বড়মসজিদ সড়ক, ডিসি মোড়, আদালত চত্বর সহ বিভিন্ন স্থানে এই ইফতারি বিক্রি করতে দেখা যায়।
কোট এলাকার বিশিষ্ট রেস্তোরা ব্যবসায়ী মজিদুল ইসলাম জানান, এবার করোনা ভাইরাসের কারনে ইফতারবিক্রি করা যাবেনা এমন কথাই জানতাম। হঠাৎ করে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ইফতার বিক্রির ঘোষনা করে সরকার। ফলে বুন্দিয়া,মুড়ি,খেঁজুর ছাড়া আমরা ইফতারের কোন আইটেম প্রথম দিন বিক্রি করিনি। পরিস্থিতি ও চাহিদা অনুযায়ী পরবর্তি দিনে সকল আইটেমের ইফতার বিক্রি করার চেস্টা করবো।
পবিত্র মাহে রমজান উপলক্ষে করোনা প্রতিরোধে সকল স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব মেনে নীলফামারী ৬ উপজেলায় বিকাল ৩টা থেকে বিকাল ৬টা পর্যন্ত ইফতার সামগ্রী বিক্রির নির্দেশ দেন জেলা প্রশাসক। জেলা প্রশাসক হাফিজুর রহমান চৌধুরী জানান, নিয়ম অনুযায়ী কোনভাবেই হোটেলের ভিতরে খাওয়ার ব্যবস্থা এবং দোকানের সামনে জটলার মাধ্যমে ভিড় করা যাবে না। এখানে সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখতে হবে। এ জন্য জেলা প্রশাসন ও উপজেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমান টিম মনিটরিং করবে।
এদিকে প্রথম রোজায় ইফতারের বিভিন্ন আইটেমের জন্য মানুষজন ছিল উতলা। কিন্তু বুন্দিয়া,মুড়ি, খেজুর ছাড়া আর কোন আইটেমে ইফতার বাজারে পাওয়া যায়নি।

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 3008456074603283521

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item