সৈয়দপুরে মানববর্জ্যের ব্যবস্থাপনা প্লান্ট পরিচালনা বিষয়ে মতবিনিময় সভা

তোফাজ্জল হোসেন লুতু,সৈয়দপুর (নীলফামারী) প্রতিনিধি :
 নীলফামারীর সৈয়দপুরে গৃহস্থালী ও মানব বর্জ্যের প্লান্ট পরিচালনা ও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনা বিষয়ে স্থানীয়  সংবাদকর্মীদের সাথে মত বিনিময় সভা করেছে সমাজ কল্যাণ সংস্থা (এসকেএস) নামক একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান। রবিবার দুপুরে সৈয়দপুর  পৌরসভার অধিবেশন কক্ষে ওই মত বিনিময় সভার আয়োজন করা হয়। সমাজ কল্যাণ সংস্থা (এসকেএস) ফাউন্ডেশন আয়োজিত ওই সভায় সভাপতিত্ব করেন সৈয়দপুর পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত মেয়র জিয়াউল হক জিয়া।
অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন পৌরসভার প্যানেল মেয়র-২  মো. শাহিন আকতার। গনমাধ্যম কর্মীদের সাথে মত বিনিময়কালে সৈয়দপুর পৌর এলাকার গৃহস্থালী ও মানববর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও পরিচালনা বিষয়ে  প্রকল্পের বর্তমান এবং ভবিষ্যত পরিকল্পনা বিষয়ে কো- কম্পোস্ট প্লান্ট সম্পর্কে আলোচনা করেন এসকেএস ফাউন্ডেশনের প্রকল্প সমন্বয়কারী মো. নজরুল ইসলাম তপাদার।
এ সময়  উপস্থিত ছিলেন এসকেএস ফাউন্ডেশনের ওয়াস প্রমোটর দেলজান খাতুন, জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ। এসকেএস'র প্রকল্প সমন্বয়কারী মো. নজরুল ইসলাম তপাদার জানান, গত ২০১৩ সাল থেকে সৈয়দপুরের পরিবেশ উন্নয়নে শতভাগ স্যানিটেশন ব্যবস্থায় সুষ্ঠুভাবে  পৌরসভার গৃহস্থালী ও মানব বর্জ্য ব্যবস্থাপনার উন্নতির লক্ষে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। এরই অংশ হিসেবে সৈয়দপুরে এসকেএস ফাউন্ডেশনের ওয়াটার এইড প্রকল্পের ওয়াশ আরবান পুওর প্রকল্পের আওতায়  পৌরসভা এলাকার গৃহস্থালী ও মানব বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় প্লান্ট তৈরি করছে। যা তৈরির কাজ চলমান রয়েছে। তিনি বলেন এরই অংশ হিসেবে গত ২০১৬ সালে এক হাজার লিটার ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন একটি ভ্যাকু ট্যাগ দিয়ে মানব বর্জ্য ব্যবস্থাপনার কাজ শুরু করা হয়। এরপর গেল ২০১৮ সালে স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রনালয়ের দেয়া তিন হাজার লিটার বর্জ্য ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন আরও একটি ভেকু ট্যাগ নিয়ে পৌরসভা এলাকার বর্জ্য ব্যবস্থাপনার কাজ জোরদার করা হয়।
 নজরুল ইসলাম তপাদার বলেন,  দেশের সবচেয়ে বড় এ প্লান্টের জন্য  পাইলট প্রকল্প চালু করা হয়। এ প্লান্ট তৈরির কাজ সম্পন্ন হলে পৌরবাসী যেমন উপকৃত হবে তেমনি দূষনমুক্ত পরিচ্ছন্ন নগরী হিসেবে পরিচিত লাভ করবে সৈয়দপুর পৌরসভা।
মতবিনিময় সভায় গণমাধ্যম কর্মীদের জানানো হয়, পৌরসভার নিজস্ব ১ একর ৭০ শতক জমির উপর নির্মাণ করা হচ্ছে প্লান্ট। এটি দেশের অন্যান্য প্লান্টগুলোর চেয়ে সবচেয়ে বড়। এ প্লান্টের মাধ্যমে সংগ্রহ করা গৃহস্থালী ও মানববর্জ্য দিয়ে দূর্গন্ধহীন কম্পোস্ট সার উৎপাদন করা হবে। এছাড়াও এসব বর্জ্য দিয়ে বিদ্যুৎ, ফুয়েল ও বৃষ্টির পানি সংরক্ষণ করারও ব্যবস্থা থাকবে এ প্লান্টে। খুব শিগগির এ প্লান্ট উদ্বোধন করা হবে বলে জানান এসকেএস'র প্রকল্প সমন্বয়কারী নজরুল ইসলাম তপাদার।
মতবিনিময় সভার সভাপতি পৌরসভার প্যানেল মেয়র মো. জিয়াউল হক জিয়া এ বিষয়ে জনসচেতনতা সৃষ্টির জন্য স্থানীয় গণমাধ্যম কর্মীদের সহযোগিতা প্রত্যাশা করেন । অনুষ্ঠানে প্রজেক্টরের মাধ্যমে পৌরসভা এলাকার গৃহস্থালী ও মানববর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও প্লাট পরিচালনা বিষয়ে বিভিন্ন তথ্য উপস্থাপনা করা হয়।
এতে বিভিন্ন পত্রিকা ও টিভি চ্যানেলে কর্মরত সৈয়দপুরের গনমাধ্যম কর্মী ও পৌরসভার অন্যান্য কাউসিলর ও কর্মকতারা উপস্থিত ছিলেন।                                               

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 6442685470951302526

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item