ডোমারে মসজিদে নামাজ পড়তে না দেয়া ও একঘরে করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

আবু ফাত্তাহ্ কামাল (পাখি),স্টাফ রিপোর্টার : নীলফামারীর ডোমারে পূর্ব শত্রুতার রেশ ধরে চার মুসলিম পরিবারের সদস্যদের মসজিদে নামাজ পড়তে বাধা ও মসজিদ কমিটি কর্তৃক  ভুক্তভোগী  পরিবারগুলোকে এক ঘরে করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার সকাল ১১টায় ডোমার প্রেসক্লাব হলরুমে উপজেলার সদর ইউনয়নের পশ্চিম চিকনমাটি নাওয়া পাড়া গ্রামের মানিক ইসলাম বাবু ও তাদের পরিবারবর্গ এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে নাওয়াপাড়া গ্রামের মৃত আব্দুল মজিদের ছেলে মোঃ মানিক ইসলাম বাবু জানান, উপজেলার সদর ইউনিয়নের পশ্চিম চিকনমাটি নাওয়া পাড়া বাইতুর রহমত জামে মসজিদটির বয়স প্রায় ১২০ বছর। এই মসজিদে এক সময় আমার দাদার বাবা মাওলানা নীল মামুদ মোতায়াল্লি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছে। আমার বাবা মৃত আব্দুল মজিদও উক্ত মসজিদের কোষাধক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিল। গত তিন বছর পুর্বে মসজিদের নতুন কমিটি দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকে উক্ত কমিটির সম্পাদক মোঃ শাহিন ইসলাম ও কোষাধ্যক্ষ ইউসুফ আলীর সাথে আমাদের পারিবারিক বিরোধ থাকায় সেই প্রতিহিংসার জেরে মসজিদের জামাত থেকে আমাদের একঘোরে করে রাখার পাশাপাশি মসজিদে আমাদের পরিবারের কাউকে নামাজ পড়তে দেয় না। এমনকি আমাদের পরিবারে মিলাদ এবং ধর্মীয় উৎসবে কোন মাওলানাকে বাসায় আসতে দেয় না। আমার বাবা ও দাদার মৃত্যুবার্ষিকীতে মসজিদের মাওলানাসহ কমিটিকে দাওয়াত করলেও তারা মাওলানাকে আমাদের বাসায় আসতে বাধা দেয় ফলে বাসায় মিলাদ পড়ানো সম্ভব হয়নি। তিনি কান্নাজরিত কন্ঠে বলেন ,এই সময়ে আমাদের পরিবারে কেউ মারা গেলে তাকে কি দাফন করানো যাবে না। আমাদের একঘোরে করায় এলাকার কেউ আমাদের সাথে কথা বলে না তাদের ভয়ে।আমাদের পরিবারের ২৮ জন সদস্য এসব কারনে মানসিকভাবে বির্পযস্ত হয়ে পরেছে। সংবাদ সম্মেলনে এ সময় তার ভাই রাকিব ও চাচা মশিয়ার রহমান উপস্থিত ছিলেন।
বায়তুর রহমত জামে মসজিদের সাধারন সম্পাদক শাহিন ইসলাম মোবাইলে জানান,মসজিদের জমি দখল করে বাড়ী তুলে রয়েছে তারা,এটা উদ্ধারে মামলা রয়েছে  । তারা প্রতি শুক্রবার জুম্মার নামাজ আদায় করছে ।ইমাম ও মোয়াজ্বিন যেতে বাধা দেওয়া হচ্ছে না ।তাদের বিরুদ্ধে মাদক ব্যবসার অভিযোগ রয়েছে ।দশের সংগে খারাপ ব্যবহার করার কারণে দশ তাদের এড়িয়ে চলে ।মসজিদ নির্মানে তারা বাধা সৃষ্টি করছে ।
মসজিদের সভাপতি ইউপি সদস্য মোঃ রবিউল ইসলাম বলেন ,মসজিদ কমিটি ও ভুক্তভোগী পরিবারগুলোর সাথে একাধিকবার আপোষ-মিমাংসার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হওয়ায় আমি কয়েকদিন আগে মসজিদের সভাপতির পদ থেকে পদত্যাগ করেছি।

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 2893348360829923819

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item