পাগলাপীরে নুরুল কুরআন মাদ্রাসার হাফেজ ছাত্রদের পাগড়ী প্রদান

হাবিবুর রহমান সেলিম,পাগলাপীর প্রতিনিধিঃ রংপুরের পাগলাপীরের ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি প্রতিষ্ঠান আল জামিয়াতুল ইসলামিয়া নুরুল কুরআনমাদ্রাসার হাফেজ ছাত্রদের পাগড়ী প্রদান করা হয়েছে। ্এ উপলক্ষ্যে ৩ ফেব্রুয়ারী ২০২০ রোজ সোমবার মাদ্রাসা মাঠ প্রাঙ্গণে বাদ মাগরিব হতে অনুষ্ঠিত হয় এক বিশাল তাফসীরুল কোরআন মাহফিল। উক্ত মাহফিলে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন অত্র হরিদেবপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ ইকবাল হোসেন। মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ আক্তার হোসেন এর সভাপতিত্বে আমন্ত্রিত অতিথী বিশিষ্ট্য ব্যবসায়ী মোঃ মফিজল ইসলাম, বার্ষিক প্রতিবেদন, আয়-ব্যয় ও শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সম্পাদক বিশিষ্ট্য শিক্ষানুরাগী মোঃ রফিকুল ইসলাম মাস্টার সহ বিশিষ্ট্য জনরা।
বিশিষ্ট্য সমাজসেবক আলহাজ্ব ডাঃ সাহেব আলী এর উপস্থাপনা ও সঞ্চালনায় মাহফিলে তাফসীর পেশ করেন-আল্লামা গাজী ইয়াকুব ওসমানী (ব্রাহ্মণবাড়ীয়া), মাওঃ জহুরুল ইসলাম সিদ্দিকী(রংপুর সদর), মাওঃ সাইফুল ইসলাম জিহাদী (অত্র মাদ্রাসার পরিচালক-পাগলাপীর, রংপুর), আলহাজ্ব মাওঃ হাফেজ ইদ্রিস আলী (জুম্মাপাড়া, রংপুর), আলহাজ্ব মাওঃ ইউনুছ (জুম্মাপাড়া, রংপুর), আলহাজ্ব মাওঃ হারুন রেয়াজী(নীলফামারী), ও আলহাজ্ব মাওঃ আব্দুল বাকী (পাগলাপীর, রংপুর), সহ স্থানীয় ওলামায়ে কেরামগণ। অনুষ্ঠিত তাফসীরুল কুরআনমাহফিলে অত্র ইউনিয়নের সুযোগ্য চেয়ারম্যান ও উন্নয়নের রূপকার মোঃ ইকবাল হোসেন উপস্থিত ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে বলেন-আপনাদের দান-খয়রাত, সহযোগিতায় আল জামিয়াতুল ইসলামিয়া নুরুল কুরআনমাদ্রাসাটি প্রতিষ্ঠা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির পূর্ণাঙ্গ রুপ দান দিতে গিয়ে জমি দাতা ও মাদ্রাসার সভাপতি আলহাজ্ব আকতার হোসেন এবং সম্পাদক রফিকুল ইসলাম(মাস্টার) এর পকেট হতে ১৪-১৫লক্ষ টাকা ধার হয়েছে।  মাদ্রাসাটির কারুকার্য্যের কারণে সৌন্দর্য বর্ধনে দেখার মতো একটি স্থাপনা হয়েছে। তাই সাহায্য সহযোগিতার হাত আরো একটু বাড়িয়ে দেওয়ার আহ্বান জানান তিনি। আপনারা নিশ্বয়ই লক্ষ্য করছেন মাদ্রাসা সংলগ্ন আরো একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠেছে। যার নাম সদর উপজেলা মডেল জামে মসজিদ। মসজিদটি নির্মাণ করতে প্রায় ১৪ কোটি টাকা ব্যয় হবে। মসজিদটির নির্মাণ কাজ শেষ হলে নারী-পুরুষ একই মসজিদে পৃথক ভাবে নামাজ আদায করতে পারবে। এছাড়াও ইসলামিক বিষয়ক গ্রন্থাগার, গবেষণাগাড়, ইমাম-খতিব-মুয়াজ্জিন ও তাবলীগ-জামায়াত থাকা-খাওয়ার সুব্যবস্থা সহ উন্নত সেবা সমূহ পাওয়া যাবে। অতচ এই সদর উপজেলা মলে জামে মসজিদটি পাগলাপীরে প্রতিষ্ঠা করতে গিয়ে আমাকে অনেক লড়াই সংগ্রাম যুদ্ধ করতে হয়েছে। উক্ত মডেল মসজিদটি সদর উপজেলার ক্যাম্পাসে হতে পারত, কিংবা সদর উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের যেকোন ইউনিয়নের হতে পারতো, কিন্তু সেটি হয়নি। আশা করি সদর উপজেলা মডেল মসজিদটির নির্মাণ কাজ শেষ হলে মসজিদ সংলগ্ন এলাকা সহ পাগলাপীর হরিদেবপুর ইউনিয়নকে আলোকিত করে তুলবে বলে আমি বিশ্বাস করি। 

পুরোনো সংবাদ

রংপুর 6312904420115430450

অনুসরণ করুন

মুজিব বর্ষ

Logo

সর্বশেষ সংবাদ

শিল্প-সাহিত্য

ফেসবুক লাইকপেজ

তারিখ অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item