ডিমলায় শীত নিবারন করতে গিয়ে অগ্নিদ্বগ্ধে প্রাণ হারালো বৃষ্টি

ইনজামাম-উল-হক নির্ণয়, নীলফামারী প্রতিনিধি ১৫ জানুয়ারি॥ তিস্তাপাড়ের কনকনে ঠান্ডায় আগুন তাপতে গিয়ে দ্বগ্ধ হয়ে চারদির মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে  অবশেষে মারা গেল ৮ বছরের শিশু বৃস্টি আক্তার। সে নীলফামারীর তিস্তা নদী বিধৌত ডিমলা উপজেলার গয়াবাড়ী ইউনিয়নের উকিল পাড়া গ্রামের আতাউর রহমানের মেয়ে ও দক্ষিন খড়িবাড়ী মুক্তা নিকেতন সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দ্বিতীয় শ্রেনীর ছাত্রী ছিল। আজ বুধবার(১৫ জানুয়ারি/২০২০ দুপুরে মেয়েটিকে দাফন করা হয়।
এলাকাবাসী জানায়, বৃষ্টির বাবা একজন প্রতিবন্ধী ও অসহায়। গত শুক্রবার (১০ জানুয়ারি) কনকনে শীতের কারনে রাতে বাড়ির উঠুনে খড়কুটো জ্বালিয়ে শীত নিবারনের  সময় বৃষ্টির পড়নের কাপড়ে আগুন লেগে শরীরের প্রায় ৬০ শতাংশ পুড়ে যায়।
অগ্নিদগ্ধ বৃষ্টিকে ওই রাতেই চিকিৎসার জন্য ডিমলা উপজেলা হাসপাতালে ভর্তি করালে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করার পরামর্শ দেয়। কিন্তু খরচ বহন করার সামর্থ্য না থাকায় পরিবারের লোকজন বৃষ্টিকে ডিমলা হাসপাতালে রেখে চিকিৎসা করছিল। দিন দিন অবস্থার অবনতি ঘটলে বিষয়টি অবগত হবার পর  ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জয়শ্রী রানী রায় মঙ্গলবার দুপুরে ডিমলা হাসপাতালে গিয়ে বৃষ্টির উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপালের বার্ন ইউনিটে পাঠানোর ব্যবস্থা করেন। ওই দিন বিকালে এ্যাম্বুলেন্সে বৃষ্টিকে ঢাকা নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। রাত ৯টায় এ্যাম্বুলেন্সটি বগুড়া পৌছালে গাড়িতে বৃস্টি মারা যায়। ফিরিয়ে এসে বুধবার দুপুরে নামাজে জানাজা শেষে বৃস্টির দাফন করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেন  ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জয়শ্রী রানী রায়। #

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী 6433147526700158399

অনুসরণ করুন

মুজিব বর্ষ

Logo

সর্বশেষ সংবাদ

শিল্প-সাহিত্য

ফেসবুক লাইকপেজ

তারিখ অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item