ঠাকুরগাঁওয়ে ইউনিয়ন পরিষদের সহকারী কাম-কম্পিউটার অপারেট পদে নিয়োগ স্থগিতের আদেশ

আব্দুল আউয়াল ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি : ঠাকুরগাঁওয়ের ৫৩টি ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) ডিজিটাল সেন্টারের হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে ৫৩টি পদ সংরক্ষণের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।
রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি শেষে গত বুধবার (১৮ ডিসেম্বর) বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি মুহাম্মদ মাহমুদ হাসান তালুকদারের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

ঠাকুরগাঁও, ময়মনসিংহ, ঝিনাইদহ, রাজবাড়ী, পটুয়াখালী, বরিশাল ও ঝালকাঠিসহ ১৫ জেলার আবেদনকারীর জন্য এ আদেশ দিয়েছেন আদালত।

ঠাকুরগাঁও জেলার পীরগঞ্জ উপজেলার জাবরহাট ইউনিয়ন পরিষদের ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা আনসারুল ইসলাম, ময়মনসিংহের মোহাম্মদ নাসিরুল ইসলাম, মোসলেম উদ্দিন, নাহিদ হাসান, নঈম উদ্দিন, বিলাল হোসেন, মিনারা আকতার, আতিকুল ইসলাম, ঝিনাইদহের রফিকুল ইসলাম, শামিমা খাতুনসহ ৭৬ জন এ রিট আবেদন করেন।

একই সঙ্গে এসব জেলার ইউপি ডিজিটাল সেন্টারে উদ্যোক্তা পদে কর্মরতদের রাজস্ব খাতে আত্তীকরণ না করে হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার পদে প্রকাশিত নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না এবং উদ্যোক্তা পদে কর্মরতদের রাজস্ব খাতে আত্তীকরণের নির্দেশ কেন দেয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছেন আদালত।

আদেশের বিষয়টি আইনজীবী মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্লাহ মিয়া সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন। রিট আবেদনকারীরা ইউনিয়ন পরিষদে হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করেন। তারা ইউনিয়ন পরিষদের ডিজিটাল সেন্টারে উদ্যোক্তা পদে কর্মরত। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করে অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ছিদ্দিক উল্লাহ মিয়া। তাকে সহযোগিতা করেন অ্যাডভোকেট মনিরুল ইসলাম ও সোহরাওয়ার্দী সাদ্দাম। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার।

আদেশের পর আইনজীবী ছিদ্দিক উল্লাহ মিয়া বলেন, ইউনিয়ন পরিষদের ডিজিটাল সেন্টারে ৯ বছর কর্মরত আছেন রিট আবেদনকারীরা। অথচ তাদের রাজস্ব খাতে আত্তীকরণ না করে হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়েছে। রিটের প্রাথমিক শুনানি শেষে আদালত ৭৬ জনের জন্য হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটর পদ ৬ মাসের জন্য সংরক্ষণ করার নির্দেশ দিয়েছেন।

এ আদেশের ফলে ঠাকুরগাঁও জেলার ৫৩টি ইউনিয়ন পরিষদে হিসাব সহকারী কাম কম্পিউটার অপারেটরদের নিয়োগ প্রক্রিয়া বন্ধ থাকবে এবং পদগুলো সংরক্ষিত থাকবে বলে জানান তিনি।

ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার আক্চা ইউনিয়ন পরিষদের ডিজিটাল সেন্টারের উদ্যোক্তা সোহেল রানা বলেন, রিটকারীরা ঠাকুরগাঁওয়ের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক নুর কুতুবুল আলমের সঙ্গে দেখা করেছেন এবং আদালতের আদেশটি সম্পর্ক অবগত করেছেন।

জামালপুর ইউনিয়নের উদ্যোক্তা রুস্তম খান সহ আরও অনেক উদ্যোক্তা জানান, দীর্ঘদিন ধরে আমরা বেতন ছাড়াই ইউনিয়ন পরিষদের ডিজিটাল সেন্টারে সার্ভিস দিয়েছি। এ পদে কোন নিয়োগ আসলে সেটি আমাদের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নিয়োগ দেয়ার কথা ছিল; অথচ এখন অগ্রাধিকার বাদ দিয়ে নিয়োগ দেয়ার পায়তারা করছে একটি মহল। আমার চাই এ পদে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে নিয়োগ দেয়া হোক।

এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁওয়ের জেলা প্রশাসক ড. কেএম কামরুজ্জামান সেলিম বলেন, উচ্চ আদালতের আদেশের নথি এখনো আমাদের হাতে আসেনি। আদেশের নথি পেলে অবশ্যই ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

পুরোনো সংবাদ

ঠাকুরগাঁও 8256842789981826000

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

কৃষিকথা

ফেসবুক লাইকপেজ

আপনি যা খুঁজছেন

গুগলে খুঁজুন

আর্কাইভ থেকে খুঁজুন

ক্যাটাগরি অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item