হরিপুরে ১৪৪ ধারা জারি

জসিমউদ্দিন ইতি, হরিপুর ॥ দুগ্রুপের সংঘর্ষের আশংকায় ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলার বকুয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা বাতিল করে ওই স্থানে ১৪৪ ধারা জারি করেছে প্রশাসন। সেই সাথে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে বর্ধিত সভার স্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।
গতকাল বুধবার সকাল ১১টায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আব্দুল করিম এ আদেশ জারি করে বলেন, হরিপুর উপজেলার বকুয়া ইউনিয়নের রুহিয়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বর্ধিত সভাকে ঘিরে আওয়ামীলীগের দু-গ্রুপের সংঘর্ষ হওয়ার আশংকায় সভা শুরুর আধা ঘন্টা পূর্বে এ আদেশ জারি করা হয়েছে। পরবর্তী ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত এ আদেশ বহাল থাকবে। 
এর আগে মঙ্গলবার রাতে রুহিয়া গ্রাম থেকে নুরুল হুদার বাড়ী থেকে লাঠিসোটা উদ্ধার সহ তাকে গ্রেফতার করে হরিপুর থানা পুলিশ।
জানা গেছে, চলমান আওয়ামী লীগের কাউন্সিলের জন্য হরিপুর উপজেলার রুহিয়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে বুধবার সকাল ১১টায় বকুয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভার দিন ও তারিখ নির্ধারণ করা হয়। তবে দলটির একাধিক নেতাকর্মীকে বর্ধিত সভায় আমন্ত্রণ না করায় এবং বর্ধিত সভার স্থান ইউনিয়নের কেন্দ্রবিন্দুতে না করে দূরে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে আয়োজন দুপক্ষের মধ্যে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়।
ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের একাধিক নেতার অভিযোগ, কমিটির অনুমোদন ছাড়াই নতুন করে সদস্য অন্তর্ভুক্ত করায় এ ধরনের দ্বন্দ লেগেই আছে। ওয়ার্ড, ইউনিয়ন ও উপজেলা আওয়ামী লীগের চিত্র একই রকম। আর এ দ্বন্দ্ব সৃষ্টি করেছে আওয়ামী লীগের কিছু সুবিধাবাদি নেতা। যার জন্যই এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে।
বকুয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুস সাত্তার ও বহরমপুর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম জানান, বর্ধিত সভা হবে কাদের নিয়ে। যদি ত্যাগী নেতারা বাদ পরে তাহলে কোন ভাবেই বর্ধিত সভা হতে দেয়া হবে না। দীর্ঘ দিন ধরে যারা আওয়ামী লীগের হাল ধরে আছে তাদের বাদ দিয়ে বর্ধিত সভার আয়োজন করায় এ পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের অধিকাংশ সদস্যকে বাদ দিয়ে মনগড়া ভাবে একপক্ষ বর্ধিত সভার আয়োজন করে। আর বর্ধিত সভা সফল করতে একপক্ষের লোকজন রাত থেকে লাঠিসোটা নিয়ে অবস্থান করায় একজনকে রাতেই একজনকে আটক করে পুলিশ। আমরা চাই সুষ্ঠু পরিবেশের মধ্য দিয়ে সবাইকে সাথে নিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সকল কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হোক। তা না হলে উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রতিটি সভায় এ ধরনের বিশৃংখলার সৃষ্টি হবে। এমন অবস্থা কেউ মেনে নিতে পারবে না।
তবে বকুয়া ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি আবু তাহের ও সাধারণ সম্পাদক জাহিরুল ইসলাম দাবী করে মুঠোফোনে জানান, রুহিয়া নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় মাঠে বুধবার সকাল ৮টা ১৫ মিনিটে বর্ধিত সভা শুরু হয় এবং শেষ হয় ১০টার পরে। এরপর আমরা সকলে আ’লীগের ওয়ার্ড সদস্য জাহিরুলকে কবর দেওয়ার জন্য চলে যায় বলে মুঠোফোনটা কেটে দেন সম্পাদক জাহিরুল ইসলাম।
হরিপুর থানার ওসি আমিরুজ্জামান মুঠোফোনে জানান, এর আগে বুধবার (৯ অক্টোবর) বিকাল সাড়ে ৫টায় উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ে বর্ধিত সভায় আওয়ামী লীগের দুগ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছিল। গতকাল থেকে আয়োজিত বর্ধিত সভায় একই ঘটনার আশংকা করেছি আমরা। বর্তমানে ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। তাছাড়া রাতে পুলিশ ঘটনাস্থলের পার্শ্বেই একটি বাড়ী থেকে লাঠিসোটাসহ একজনকে আটক করেছে।

পুরোনো সংবাদ

নির্বাচিত 2413530442986089254

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

শিল্প-সাহিত্য

ফেসবুক লাইকপেজ

তারিখ অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item