নীলফামারীতে আদালতের কাঠগড়ায় আসামীর আত্নহত্যা চেষ্টা

ইনজামাম-উল-হক নির্ণয়, নীলফামারী ৪ নভেম্বর॥ আদালতের কাঠগড়ায় দাড়িয়ে মোটরসাইকেল চুরি মামলার হাজতি আসামী জাহিদুল ইসলাম শুভ (৩০) নীলফামারীতে আদালতের কাঠগড়ায় আসামীর আত্নহত্যা  চেষ্টা করেছে।
আজ সোমবার(৪ নভেম্বর) দুপুরে নীলফামারীর চীফ জুডিসিয়াল আদালতের সিনিয়র জুডিসিয়াল আমলী আদালত-২ এর এজলাসে এ ঘটনা ঘটে। আহত আসামীকে নীলফামারী আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। সে চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলার লক্ষীপুর গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে।
হাসপাতালের জরুরী বিভাগ সূত্রমতে, শুভকে পুলিশ হাসপাতালে নিয়ে আসে। এসময় তার গলার ক্ষত স্থান দিয়ে রক্ত ঝড়ছিল। ওই ক্ষতস্থানে ১০টি সেলাই দেওয়া হয়েছে।
   ওই আদালতের পুলিশের সিএসআই উপ-পরিদর্শক (সৈয়দপুর) ফজলুল হক জানান, চলতি বছরের ২৬ সেপ্টেম্বর রাতে নীলফামারীর সৈয়দপুর উপজেলার নিজপাড়া মহল্লার বাসা  থেকে তিনটি মোটরসাইকেল চুরি হয়। ওই ঘটনায় তালুকদার নজরুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তি বাদি হয়ে ২৯ সেপ্টেম্বর সৈয়দপুর থানায় একটি মামলা দায়ের করেন (মামলা নম্বর ১৭)। ওই মামলায় প্রাথমিক তদন্তে উক্ত জাহিদুল ইসলাম শুভ, নীলফামারীর জলঢাকা উপজেলার পশ্চিম কাঁঠালী গ্রামের মৃত রমজান আলীর ছেলে লেলিন (৩০), একই উপজেলার চাওড়াডাঙ্গী গ্রামের মোফাজ্জল হোসেনের ছেলে লেলিন ইসলাম (২২), লালমনিরহাট জেলার কালিগঞ্জ উপজেলার উত্তর দোলগ্রামের মৃত আনোয়ারুল ইসলামের ছেলে আশরাফুল ইসলাম ওরফে আশরাফ (৩৫) সহ চার জনের জড়িত থাকার তথ্য পাওয়া যায়। এরই মধ্যে চলতি বছরে ৩ অক্টোবর ঠাকুরগাঁও জেলা সদরে  অপর একটি মোটরসাইকেল চুরির মামলায় জাহিদুল ইসলাম শুভসহ গ্রেপ্তার হয় ওই চার আসামী (মামলা নম্বর ৪, তারিখ ৩ অক্টোবর/ ২০১৯)। এই  খবরে সৈয়দপুর থানায় দায়ের হওয়া তিনটি মোটরসাইকেল চুরির মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওই থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রেজওয়ানুল হক ম-ল চার আসামীকে শ্যোন অ্যারেস্টের আবেদন করে নীলফামারী আমলী -২ ত আদালতে। আদালত বিষয়টি আমলে নিলে ওই চারজনকে ঠাকুরগাঁও থেকে এনে সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নীলফামারী সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আমলী আদালত -২ এ হাজির করা হয়। তিনি বলেন ওই সময় আসামী শুভ হাতকড়া দিয়ে তার গলায় টান দিলে গলার চামড়া কেটে রক্ত বের হয়।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, আদালতের এজলাসে শ্যোন অ্যারেস্টের শুনানী চলাকালে আদালতের বিচারক সহদেব চন্দ্র রায় এই চারজনকে সৈয়দপুর থানার তিনটি মোটরসাইকেল চুরির মামলায় গ্রেফতারের আবেদন মঞ্জুর করেন। আসামীর পক্ষে কোন আইনজীবী না থাকায় জাহিদুল ইসলাম শুভ নিজেই বিচারকের সঙ্গে কথা বলছিল। এক পর্যায়ে আসামী শুভ নিজের গলা কেটে আত্মহত্যার চেষ্টা করে। এতে তার গলার চামড়া লম্বা করে কেটে যায় ও রক্ত ঝড়তে থাকে। তাৎক্ষনিকভাবে পুলিশের  এসে তাকে হাসপাতালে নেয়। প্রত্যক্ষদর্শী বেশ কয়েকজন নাম প্রকাশ না করার সর্ত্বে বলেন আসামী শুভর পকেটে ব্লেড ছিল। সেই ব্লেড দিয়ে সে আতœহত্যার জন্য নিজের গলা কাটে।
নীলফামারী আধুনিক সদর হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক জাহাঙ্গীর আলম বলেন,‘হাতকড়ার ভোতা কোন অংশ গলায় চালিয়ে নিজেকে আহত করেছে সে। এতে করে গলার কিছুটা অংশের চামড়া কেটে গেছে। তাকে হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা প্রদান করা হচ্ছে। রোগির অবস্থা আশঙ্কামুক্ত।
   এ ব্যাপারে নীলফামারী সদর থানার ওসি মোমিনুল ইসলাম জানান প্রাথমিক ভাবে আমরা এ ঘটনায় একটি জিডি করেছি।
অপর দিকে নীলফামারী জজ আদালতের আইনজীবী জাহাঙ্গীর আলম সাগর বলেন, একাধিক ‘মোটরসাইকেল  চুরির মামলায় আদালতে জাহিদুল ইসলাম  শুভর নামে একাধিক মামলা চলমান আছে। এসব মামলায় আসামীর বাবা কোন আইনজীবী নিয়োগে স্বীকৃতি জানালে সরকারী আইনগত সহায়তার জন্য আমাকে নিযুক্ত করা হয়। এই মামলাটি নূতন হওয়ায় তার পক্ষে কোন আইনজীবী নিযুক্ত ছিল না।
তিনি আরো জানান তার ওই মামলা গুলো চালাতে গিয়ে জাহিদুল ইসলাম  শুভর বাবা আব্দুল মান্নানের সঙ্গে মোবাইলে একাধিকবার কথা বলতে হয়েছিল। সে সময় শুভ-র বাবা জানিয়েছিল তিনি নীলফামারীর সৈয়দপুর রেলওয়ে কারখানায় চাকুরী করতেন। অবসর গ্রহনের পর পরিবার নিয়ে তিনি চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলার লক্ষীপুর গ্রামে এসে বসবাস করছেন। তার ছেলে শুভ অপরাধ জগতের সঙ্গে জড়িয়ে গেছে। সে বাড়ির সঙ্গে যোগাযোগ রাখেনা। ওই বাবা এমন ছেলেকে আইনী সহায়তা দিতে বারন করতেন। #

পুরোনো সংবাদ

নীলফামারী সদর 3531747817050519900

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

শিল্প-সাহিত্য

ফেসবুক লাইকপেজ

তারিখ অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item