কুড়িগ্রামে আগাম জাতের পাতা পেঁয়াজ চাষে লাভবান হচ্ছে কৃষকরা

হাফিজুর রহমান হৃদয়, কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ 

পেঁয়াজের দাম আকাশ চুম্বী হওয়ায় কুড়িগ্রামের কৃষকরা ক্ষেত থেকে আগাম জাতের পাতা পেঁয়াজ তুলে বাজারে বিক্রি করছেন।
এতে কিছুটা কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম। তবে বর্তমান বাজারে নতুন পাতা পেঁয়াজের দাম বেশি পেলেও ভরা মৌসুমে পেঁয়াজের দাম না পাওয়ার আশংকা করছেন পেঁয়াজ চাষীরা।কুড়িগ্রামের অনেক কৃষক ভালো দাম পাওয়ার আশায় তড়িঘড়ি করে আগাম জাতের পাতা পেঁয়াজের চাষ করেন। ৪০ থেকে ৪৫ দিন পরিচর্যার পরেই এসব পেঁয়াজ বাজারে তুলতে শুরু করেছেন তারা। আর এ পাতা পেঁয়াজ বাজারে উঠতে শুরু করায় অন্যান্য পেঁয়াজ দাম কমতে শুরু করেছে।পরিপুর্ণ হওয়ার আগেই এসব পাতা পেঁয়াজ বাজারে তুলে ২ হাজার ৫শ টাকা থেকে ২ হাজার ৬শ টাকা মন দরে বিক্রি করছেন কৃষকরা। তারা বলছেন পাতা পেঁয়াজ উত্তোলন করে একই জমিতে পুনরায় পেঁয়াজ রোপন করবেন। সেজন্য পেঁয়াজের চারা তৈরি করছেন তারা।

কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার কাঁঠালবাড়ি ইউনিয়নের খালিশা কালোয়া গ্রামের পেঁয়াজ চাষী আজিজুল বলেন, বর্তমানে বাজার খুবই ভালো তাই দামও ভালো পাচ্ছি। আমি ৫০ হাজার টাকা ব্যায়ে ৩০ শতক জমিতে পেঁয়াজ চাষ করেছি। আশা রাখি এ পেঁয়াজ আমি ১ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা বিক্রি করতে পারবো। তিনি আরও বলেন, ভরা মৌসুমে পেঁয়াজের দাম না পাওয়ার আশংকা করছি।
ব্যবসায়ীরা বলছে, পেঁয়াজের দাম বেশি হওয়ায় ভোক্তারা ঝুকছেন অপেক্ষাকৃত কম মূল্যের পাতা পেঁয়াজের দিকে।
কুড়িগ্রাম কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের প্রধান, উপ-পরিচালক,  ড. মো: মোস্তাফিজুর রহমান জানান,চলতি মৌসুমে জেলায় দেড় হাজার হেক্টর জমিতে পেঁয়াজ চাষের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারন করা হলে পেঁয়াজের মূল্য বৃদ্ধির কারনে আরো অনেক বেশি পরিমান জমিতে পেঁয়াজের আবাদ হবে বলে আশা করছেন কৃষি বিভাগ।

পুরোনো সংবাদ

কৃষিকথা 1243656058497399251

অনুসরণ করুন

সর্বশেষ সংবাদ

সর্বাধিক পঠিত

শিল্প-সাহিত্য

ফেসবুক লাইকপেজ

তারিখ অনুযায়ী খুঁজুন

অবলোকন চ্যানেল

item